অশনি সঙ্কেত

স্বর্ণেন্দু দত্ত

৪ অক্টোবর, ২০১৫

Image

+

শিয়ালদহ শাখার লোকাল ট্রেনের কামরার ভেতরে মার্কারে লেখা অক্ষরগুলি রয়েছে এখনও। খানিক অস্পষ্ট হলেও মুছে যায়নি পুরোটা। ‘‘ইয়াকুব ইজ ডেড। মোদী ইজ গ্রেট। ইন্ডিয়া ইজ উইন।’’ মুম্বাই বিস্ফোরণে দোষী সাব্যস্ত ইয়াকুব মেমনের ফাঁসির পর কে বা কারা যেন ট্রেনের কামরার ভেতরের দেওয়ালে লিখে গিয়েছিল ওই কথাগুলো। বক্তব্য স্পষ্ট। উদ্দেশ্য পরিষ্কার। রোজ কয়েকশো লোক দেখবে। অজান্তেই হয়তো মাথায় গেঁথে বসছে অন্য রকম কিছু। তার কী প্রতিক্রিয়া হচ্ছে জানার কৌতূহল জাগতো।

দাদরি জবাব দিলো।

বিস্তারিত বিবরণ >>

এক রুটি পাইলে
হাজার মিঞা খায়

আবদুস সাত্তার

১৯ জুলাই, ২০১৫

Image

+

ভারতের রাজনীতিতে সংরক্ষণ একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, একথা অস্বীকার করার উপায় নেই। এই গুরুত্বপূর্ণ উপাদানটিকে অনেক সময়েই ‘ভোট ব্যাঙ্কে’র রাজনীতি হিসাবেই চিহ্নিত করা হয়। দেশে যখন আর্থ সামাজিক শিক্ষাগতভাবে পশ্চাৎপদ সংখ্যালঘু মুসলিমদের সংরক্ষণের কথা ওঠে তখন সেটিকে ‘মুসলিম তোষণ’ হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

কী সেই গোপন কথা?

নীলোৎপল বসু

১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৫

Image

+

পঁচিশে জানুয়ারি সন্ধেবেলা চমকে উঠেছিলাম টেলিভিশনে খবর দেখতে দেখতে। খবরটা মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বোঝাপড়া নিয়ে। চমকানোর কারণ — খবরটা এমন একটি চ্যানেলে দেখছিলাম যারা অধুনা বি জে পি এবং নরেন্দ্র মোদীর প্রধান প্রচারক। তৃণমূল কংগ্রেস সরকারকে হটিয়ে বি জে পি-কে প্রধান বিকল্প তুলে ধরতে সদা তৎপর — জনসংযোগকারীর ভূমিকায়‌।

খবরে প্রকাশিত হলো যে উদ্বেলিত কর্পোরেট মিডিয়াকুল যখন একটি আনন্দঘন পরিবেশ গড়ে তুলেছে সারাদিনের পুরোটা সময় ওবামা সফরকে ঘিরে, ঠিক তখনই এই ছন্দপতন।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

রং নাম্বার

স্বর্ণেন্দু দত্ত

১৮ জানুয়ারী, ২০১৫

বিতর্কের শুরুতে ছিল ‘নগ্ন’ পোস্টার নিয়ে।

প্রকাশ হওয়ার পর যখন দেখা গেলো ধর্মের কারবারিদেরই আসলে নগ্ন করে ছেড়েছে এই সিনেমা। শুরু হয়ে গেলো চোখ রাঙানো, ভয় দেখানো। সম্প্রতি এই বিতর্কেরই আসল উৎস খুঁজে দেখতে স্বর্ণেন্দু দত্ত-র এই প্রতিবেদন

বিস্তারিত বিবরণ >>

টোটোপাড়ার চৌত্রিশ বছর

দীপক নাগ

৪ জানুয়ারী, ২০১৫

Image

+

এর আগেও একাধিকবার টোটোপাড়ায় এসেছি। কিন্তু এবার এসে কেন যেন প্রতারকদের কাছে ব্রাহ্মণের পাঁঠাকে কুকুর ভেবে ছেড়ে যাওয়ার গল্পটির কথা মনে পড়লো। টোটোপাড়ায় এসে গল্পটি মনে পড়ার কারণ আর কিছুই নয়, প্রায় প্রতিদিন খবরের কাগজ, টি ভি এবং সভাসমিতিতে দেখি বা শুনি অনেকে মিলে সুর করে বলছেন, ‘চৌত্রিশ বছরে বামফ্রন্ট সরকার কিছুই করেনি’। যা কিছু হয়েছে হয় ১৯৭৭-এর আগে বা ২০১১-র পরে। এর মাঝে যেন পশ্চিমবঙ্গে সরকার বলে কিছুই ছিল না। কথাটা যে কতোখানি অসত্য টোটোপাড়ায় পা দিলেই তা বোঝা যাবে।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

মমতার দিল্লির লাড্ডু
আসলে কী?

স্বর্ণেন্দু দত্ত

২ মার্চ, ২০১৪

Image

+

ডাহা মিথ্যেটা একবার নয়, দু-দু’বার বললেন। জোর দিয়ে বললেন।

এই ব্যাপারটায় ওঁর পারফরম্যান্স বরাবরই চোখ ধাঁধানো। বারে বারে মিথ্যাটাই বলে সেটাকেই ‘সত্য’ বলে দাঁড় করিয়ে দেওয়ার কৌশল এখানেও হয়তো খানিকটা কাজ করলো! না হলে, অতীতে বহু অ্যাটাকিং স্পোর্টস পার্সোনালিটি থেকে ডাইনামিক পলিটিসিয়ানকে যে দুঁদে সাংবাদিক-অ্যাঙ্কার একের পর এক প্রশ্নবাণে জর্জরিত করে ছেড়েছে, সেই তিনিই কেন হঠাৎ ব্যাকফুটে। সেই তিনিই কেন তৃণমূল নেত্রীকে ‘ক্রস’ করতে ভুলে গেলেন— কই ২০০২-এ যখন গুজরাটে দলে দলে মুসলিম-নিধন চলছিল, তখন তো আপনি সমর্থন প্রত্যাহার করেননি? কেন মিথ্যা বলছেন?

সম্প্রতি এক সর্বভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেলের সেই সাক্ষাৎকারে মমতা ব্যানার্জি অকপটেই বলে গেলেন, ‘‘...মনে রাখবেন যখন দাঙ্গা শুরু হলো, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা— আমরা সমর্থন প্রত্যাহার করে নিয়েছিলাম।’’ ফের জোর দিয়ে বললেন, ‘‘দয়া করে উপলব্ধি করবেন, আমরা সমর্থন প্রত্যাহার করে নিয়েছিলাম।’’

যে রাতে এই সাক্ষাৎকার প্রচারিত হয় সেদিন দুপুরেই নিঃসঙ্গ আন্না হাজারের সঙ্গে সততার ডিলিং সেরে এসেছেন তৃণমূল নেত্রী। কেননা সারদা থেকে টেট নানা দুর্নীতিতে ফেঁসে এখন কালো ছাপ মুছতে তাঁর আন্না ইউ এস পি-র শিলমোহর দরকার।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

কমিউনিস্ট ম্যান্ডেলা

শান্তনু দে

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৩

Image

+

একজন আদর্শ গান্ধীবাদী নেতার মৃত্যু হলো। বলেছেন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

অবিচার ও অসাম্যের বিরুদ্ধে নিজের মতো করে চালিয়ে যাওয়া ‘সত্যাগ্রহ’ কোনদিন থামাননি ম্যান্ডেলা। তাঁর দৃঢ়তা, ধৈর্য ভারতে মহাত্মা গান্ধীর পদ্ধতির কথা মনে করায়। বলেছেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি।

গান্ধীর সঙ্গে ম্যান্ডেলার মিল খুঁজে পেয়েছেন স্বয়ং মার্কিন রাষ্ট্রপতিও। তাঁর মতে, গান্ধীর মতো ম্যান্ডেলাও এমন আন্দোলনের পথে হেঁটেছিলেন যার সাফল্যের সম্ভাবনা ছিল খুবই কম।

অনেকেই তাঁকে ‘দক্ষিণ আফ্রিকার গান্ধী’ বলে দেখানোর চেষ্টা করছেন। সেইসঙ্গেই সযন্তে এড়িয়ে চলেছেন সশস্ত্র আন্দোলনে ম্যান্ডেলার সংগ্রামী জীবনকে।

ইতিহাস জানে, ম্যান্ডেলা ছিলেন আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের সশস্ত্র শাখা উমখোনতো উই সিজোয় (এম কে, অথবা ‘জাতির বর্শা’)-র প্রথম প্রধান। ঘৃণ্য বর্ণবিদ্বেষী শাসনের বিরুদ্ধে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ যোদ্ধা।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

একদম বিশ্বাস করবেন না।
সব মিথ্যা। সব সাজানো।

২৮ এপ্রিল, ২০১৩

Image

+

গোটরা গ্রাম পঞ্চায়েতের লক্ষ্মণবাটির বাসিন্দা আবদুস মুকিদ পেশায় গ্রামের কোয়াক ডাক্তার হলেও তিনি নিজে একজন তৃণমূল কর্মী। তাঁর বাবা, ভাই সকলেই তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী। আবদুল মুকিদ বৈদ্যর ভাই সাহিদ বৈদ্য গোটরা অঞ্চলের তৃণমূল সভাপতি। বাবা ভাইয়ের রাজনৈতিক পরিচয় কাজে লাগিয়েই গোটরা এলাকা থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা তুলে জমা দিয়েছেন সারদা গোষ্ঠীর ফান্ডে। এই মুহূর্তে তার ৬লক্ষ টাকা কোম্পানির ঘরে জমা পড়ে রয়েছে। ...

বিস্তারিত বিবরণ >>

বাহাত্তরের প্রতিবিম্ব

দীপক হোড়রায়

২২ এপ্রিল, ২০১৩

Image

+

গত শতাব্দীর সাতের দশকের কংগ্রেসী জমানাকে মনে করাচ্ছে এই সময়। শিলিগুড়ির রাজনৈতিক সংস্কৃতি আজ বিপন্ন। আতঙ্ক দিনে-রাতে। অত‌্যাচারের সর্বশেষ নিদর্শন সন্তোষ সাহানি।

এখানে হিমালয় আর তরাইয়ের জঙ্গলের নিবিড় হাতছানি। মহানন্দা, বালাসন, পঞ্চনই আর অসংখ্য শাখা নদীর জ্যামিতিতে নদীমাতৃক উত্তরের প্রাণকেন্দ্র এই শিলিগুড়ি। জঙ্গলের পাশাপাশি তরাইয়ের চা বলয় ঘিরে রেখেছে শিলিগুড়িকে। রোদ ঝলমলে কাঞ্চনজঙ্ঘা এই শহরের সৌন্দর্য্য যেন আরো বাড়িয়ে তোলে। সেই শহর আজ রক্তাক্ত। বিগত ৩৪বছরের সুশাসন ভুলুণ্ঠিত।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

সেই ছেলেটা, স্যার এতো ‘বেচারা’ ছিলো না!

সৌম্যজিৎ রজক

১৪ এপ্রিল, ২০১৩

Image

+

মুখটা আপনায়, গত চার রাত্রি, ঘুমোতে দেয়নি। সুদীপ্তর নিষ্পাপ মুখটা। উজ্জ্বল দুটো চোখ। বুদ্ধিদীপ্ত এবং অপাপবিদ্ধ। সবকটা ছবিই খুব অ্যাপিলিং।

ছেলেটা ভালো গান গাইত। প্রবন্ধ লিখত। বন্ধুরা খুব ভালেবাসত। খুব ভালো ছেলে ছিল।

‘ভালো ছেলে’ কাকে বলে,স্যার? যদি ‘ভালো ছেলে’ই হত, তাহলে মঙ্গলবার দুপুরবেলা মিছিলে কী করছিল সুদীপ্ত? যদি ‘ভালো ছেলে’ই হত, তাহলে তো ওই সময় ক্লাসে থাকার কথা ছিল ওর! অথবা লাইব্রেরিতে! অন্তত, গুগ্‌ল সার্চ-এ! মিছিলে কী খুঁজছিল ছেলেটা?...

বিস্তারিত বিবরণ >>

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement