ওষুধের অ-সুখ

সুমহান চক্রবর্তী

১০ জুলাই, ২০১১

Image

+

আভিধানিক অর্থে ওষুধ বা ঔষধ বলতে বোঝায় — রোগের প্রতিকারক বা রোগের প্রতিষেধক অর্থাৎ রোগহারী। অর্থাৎ যা প্রয়োগের ফলে রোগের উপশম, নিরাময় অথবা রোগ প্রতিরোধ হয়। স্বভাবতই আর পাঁচটা পণ্যের মতো, ওষুধ কেউ খুশিমতো, স্বইচ্ছায় কেনে না; কেনে নিতান্ত বাধ্য হয়েই, উপায়ান্তর না থাকায়। আমাদের বিশাল দেশে, বিপুল সংখ্যক মানুষের রোগ প্রতিকার বা প্রতিরোধে ওষুধের ভূমিকাটা একটু দেখে নেওয়া যাক।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

শেষ কোথায়?

সুকান্ত দাশগুপ্ত

৩ জুলাই, ২০১১

Image

+

এমনই হওয়ার কথা ছিল। এমনই হয়েছে। এমন আরো হবে।

২০০৯ সালের লোকসভা ভোটের আগে কংগ্রেস যে নির্বাচনী ইশতেহার দিয়েছিল, তার পাতা উলটালে দেখা যাবে, আমাদের দেশের একেবারে গরিব মানুষ সহ সাধারণ মানুষের জন্য দরদের ডালি সেখানে উপুড় করে দেওয়া হয়েছিল। বড়লোক বা বেজায় বড়লোক ব্যবসায়ী-শিল্পপতি কিংবা উচ্চবিত্ত চাকরিজীবীদের কথা বাদ।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

শীর্ষবিন্দুতে দুই তরুণ

শুভ্র মুখোপাধ্যায়

২৬ জুন, ২০১১

Image

+

এভারেস্ট মানেই রোমাঞ্চ, এভারেস্ট মানেই গা ছমছম। আরোহনের নেশা থেকে জীবনের দীপশিখা— সবেতেই তাঁদের জুড়ি মেলা ভার। বেলানগরের দীপঙ্কর ঘোষ ও ডানলপের রাজীব ভট্টাচার্য দ্বিতীয় বাঙালী জুটি হিসাবে এভারেস্ট জয়ের কাহিনী শোনালেন শুভ্র মুখোপাধ্যায়’কে।

বিস্তারিত বিবরণ >>

রাইটার্সে বারুদের গন্ধ

দেবব্রত বিশ্বাস

১৯ জুন, ২০১১

Image

+

পরাধীনতার নাগপাশ থেকে দেশকে মুক্ত করার শপথ নিয়ে বিপ্লবের বীজ বুনেছিলেন একঝাঁক দেশপ্রেমিক। ১৯৩০সালে এক শীতের সকালে সেই শপথকে বাস্তব রূপ দিতেই তিন বাঙালী বিপ্লবী অসীম সাহসে ভর করে ঢুকে পড়েছিলেন রাইটার্স বিল্ডিংয়ে। গর্জে উঠেছিল তাঁদের বন্দুকের নল। লক্ষ্য ছিল সিম্পসন সাহেব। সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী সংগ্রামে সেই ত্রয়ীর অন্যতম ছিলেন দীনেশ গুপ্ত। তাঁদের লড়াই এখনও প্রেরণা জোগায় আমাদের। চলতি বছরটি এই অমর শহীদের জন্মশতবর্ষ। তাঁকে স্মরণ করেই লিখেছেন দেবব্রত বিশ্বাস।

বিস্তারিত বিবরণ >>

কালো টাকার রমরমায়
আত্মহারা ‘ধান্দার ধনতন্ত্র’

বরেন সরকার

১২ জুন, ২০১১

Image

+

রাজধানীর রাজপথের কানুন বোঝাতে কড়া দণ্ড আছে। মাঝে মধ্যে তা মালুম করানোর জন্য বেকুব পথচারীদের জরিমানা করে পুলিস। আন্দোলন দমাতে রয়েছে নানা বিধিনিষেধ। যেমন এখন রাজধানী দিল্লির যন্তর মন্তরে কোন বিক্ষোভ সভা করা যাবে না। নিষিদ্ধ।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

তেলের দামের হিসাব দিক কেন্দ্র

শুদ্ধসত্ত্ব গুপ্ত

৫ জুন, ২০১১

Image

+

এবার ডিজেল আর কেরোসিনের দাম বাড়বে। অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখার্জি বুঝিয়ে দিয়েছেন কলকাতায়। এ রাজ্যে কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেস সরকার গড়ার নির্ণায়ক রায় পাওয়ার দিনই।

সরকার দু’বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে যে রিপোর্ট কার্ড প্রকাশ করেছে সেখানেও জানানো হয়েছে এবার ডিজেলের দামের ক্ষেত্রেও চালু হবে বিনিয়ন্ত্রণ। পশ্চিমবঙ্গে ভোটের ফল বেরনোর পর তখন উচ্ছ্বাসে ভাসছে কংগ্রেস শিবির। কলকাতায় সাংবাদিক বৈঠক করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ও কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা প্রণব মুখার্জি। ভোট শেষ হওয়ার রাতেই লিটার প্রতি পাঁচ টাকা বেড়েছিল পেট্রোলের দাম।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

আত্মসমর্পণ নয়
চাই মাথা তোলার সাহস

নীলোৎপল বসু

২৯ মে, ২০১১

Image

+

একজন সাংবাদিক বর্ণনা দিচ্ছিলেন। জায়গাটা প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন। নয়াদিল্লির ৭নং রেসকোর্স রোড। উপলক্ষ দ্বিতীয় ইউ পি এ সরকারের ২ বছরের বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান। জয়োল্লাস আর ধরে রাখা যাচ্ছিলো না। এটাই স্বাভাবিক। দু’দিন আগে করুণানিধি তনয়া কানিমোঝি গ্রেপ্তার হয়ে তিহার জেলে। প্রাক্তন টেলিকম মন্ত্রী এ রাজা অনেক আগে থেকেই তিহারে। কংগ্রেসের ডাকসাইটে নেতা পুনের লোকসভা সদস্য সুরেশ কালমাদির অবস্থা তথৈবচ।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

ধর্মান্ধতা, কুসংস্কার্যবর. জাল ছেঁড়ার পালা

পঞ্চানন ঘোষাল

২২ মে, ২০১১

Image

+

ধর্মান্ধতা, কুসংস্কারের গর্ভেই মৌলবাদের জন্ম। মানুষ যাতে কুসংস্কারের আবর্তে বেশি বেশি করে ঘুরপাক খায় সেটাই কাম্য মৌলবাদীদের। এই সুযোগকে কাজে লাগাতে তৎপর সমাজের একাংশের মানুষ। তাদের উদ্দেশ্য— ধর্মান্ধতা, কুসংস্কারকে পুঁজি করেই নিজেদের আর্থিক দিক থেকে সমৃদ্ধ করা। এই শক্তি এখন দাপিয়ে বেড়াচ্ছে গোটা দেশে। শুধু সামাজিক পরিমণ্ডলে নয়, রাজনীতির অলিন্দেও তারা ঢুকে পড়েছে ধর্মীয় ভাবাবেগকে কাজে লাগিয়ে।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

সুবর্ণরেখার চিঠি

চন্দন দাস

৮ মে, ২০১১

Image

+

আমি সুবর্ণরেখা। আমার কোলে বালি।

সে বালি কোথাও কোথাও দিগন্ত ছুঁয়েছে। আমার স্রোত এখন দুর্বল। অবলীলায় আমাকে, তোমাদেরই গড়া তিনটি কাঠের সেতুর উপর দিয়ে পেরিয়ে যাওয়া যায়।

কিন্তু আমাকে অতিক্রম করা যায় না। আমি ঐতিহাসিক। আমি অমর। আমি ঋত্বিক।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

প্রতিক্রিয়ার শক্তিকে পরাস্ত করো

নিরুপম সেন

১ মে, ২০১১

Image

+

এবারের নির্বাচনের চরিত্র অতীতের নির্বাচনগুলির থেকে ভিন্ন। ১৯৭৭ সালে বামফ্রন্ট সরকার তৈরি হওয়ার পর থেকে এরাজ্যে বহুবার নির্বাচন হয়েছে। এমন কোন বছর নেই যে বছরে কোন-না-কোন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। পঞ্চায়েত, পৌরসভা, লোকসভা, বিধানসভা, বিদ্যালয়ের পরিচালন সমিতি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালন ব্যবস্থা পর্যন্ত সর্বত্র নির্বাচন হয়। নির্বাচন এ-রাজ্যে একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। কিন্তু এবারে যে নির্বাচন হচ্ছে তার প্রেক্ষিতে এ-রাজ্যের সবকটি বিরোধী রাজনৈতিক দল জোটবদ্ধ। একদিকে চরম দক্ষিণপন্থী তৃণমূল কংগ্রেস, কংগ্রেস, বি জে পি, অন্যদিকে চরম উগ্রপন্থী যারা আমাদের রাজ্যের গরিব মানুষদের অবাধে খুন করছে। এদের সবার একমাত্র শত্রু ‘বামফ্রন্ট সরকার’।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

Featured Posts

Advertisement