এ কোন ‘সকাল’?

মধুসূদন চ্যাটার্জি

২৪ ডিসেম্বর, ২০১১

Image

+

‘‘এক্ষুনি এখান থেকে বেরিয়ে যান। না হলে আপনাকে জ্যান্ত কেটে ফেলবে। কাকপক্ষীও টের পাবে না। মরা দেহটা গোরস্থানে পুঁতে ফেলা হবে।’’ ভদ্রমহিলার আতঙ্কিত চোখমুখ দেখেই বোঝা যাচ্ছিল তিনি আর একমুহূর্তের জন্যও এখানে থাকতে দিতে রাজি নন। পেশাগত কারণে এ‍‌ই গৃহবধূর ছবি তোলার জন্য ক্যামেরা বের করেছিলাম। আতঙ্ক, আশঙ্কার পারদ আরও বেড়ে যায় তখন বাংলার ঐ গরিব গৃহবধূর চোখে-মুখে।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

অচল গাড়ি সচল করো

পীযূষ ব্যানার্জি

১৭ ডিসেম্বর, ২০১১

Image

+

বাসে উঠলে কর্মস্থলে যেতে সময় লাগে ২০মিনিট। এখন সেই পথ যেতে সময় লাগছে দেড় ঘন্টারও বেশি।

কেন এমন অবস্থা?

রাস্তা খারাপ ? এমন অভিযোগ করছেন না কেউই। ঘুরপথে যেতে হচ্ছে ? অভিজ্ঞতাও একথা বলছে না। তবে সমস্যা কোথায়? ভুক্তভোগী হাজার, হাজার মানুষ বলছেন, বাস নেই। একটাও সরকারী বাসের দেখা মিলছে না।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

পেনশান অধরাই

১৭ ডিসেম্বর, ২০১১

অনিল রঞ্জন গুহ

বাড়ি আক্রা সন্তোষপুরের গভঃ কলোনির এ ব্লক-এ। পেনশন পাননি গত সাত মাসে তিন মাস। কিন্তু অভাবের সংসারে খরচ থেমে থাকনি। নিজের শরীর অসুস্থ। চোখের চিকিৎসায় অস্ত্রোপচার দরকার। কিন্তু টাকা কোথায়? কীভাবে চলছে তাঁর? সন্তোষপুরের গভঃ কলোনির ঝিল পারে তখন সূর্য ডুবছে। ছোট্ট একতলা বাড়িতে গাছগাছালির উঠোনে বসে প্রশ্নের উত্তরে একটু চুপ করে গেলেন ৭৬বছরের বৃদ্ধ সি এস সি টি’র অবসর প্রাপ্ত কর্মচারী অনিল রঞ্জন গুহ।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

অঘ্রাণের নবান্নে কেন বিষণ্ণতা?

শঙ্কর ঘোষাল

৩ ডিসেম্বর, ২০১১

Image

+

সহসা মনে হতেই পারে, আমার মনের পর্দায় লুকানো স্মৃতির সাথে মিলছে না এই চিত্র। হেমন্তের মিঠে শীতে সোনালি ধান ওড়নার মতো দুলতে দেখেছি। নতুন ফসলের ডাকে যে উন্মাদনা, অঘ্রাণে ঘরে ঘরে নবান্নের প্রস্তুতি, সন্ধ্যায় বারোয়ারি তলায় অ্যা মেচার যাত্রা? কোথায় সেই গাঁয়ের বধূর হাতে আঁকা ঘন ছায়া আঙিনাতে আলপনা? উৎসবের তার যেন ছিঁড়ে গেছে। সেখানে শুধুই আজ বিষণ্ণতা! নতুন ফসলের আগমনী বার্তা যেন কৃষককে ভাবিয়ে তুলেছে।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

বরণীয়া এক বঙ্গনারী

জলধর মল্লিক

২৬ নভেম্বর, ২০১১

Image

+

অসম্ভব!

অবিশ্বাস্য তো বটেই!

অথচ যে ঘটনার কথা শুনলে অসম্ভব বলে মনে হয় কিংবা অবিশ্বাস্য বলে বোধ হয়, সেটাই সম্ভব করে তোলা হলো, বিশ্বাস করতে বাধ্য করা হলো স্রেফ সাহস, একাগ্রতা আর সব রকমের বাধা-বিপত্তিকে ডিঙিয়ে যাবার সুদৃঢ় সঙ্কল্পের জোরে।

শিক্ষার আঙিনায় একটা নয়, দুটো নয়, এমনকি কি তিনটেও নয়, বরং বলা ভালো চার-চারটে ভারতীয় রেকর্ড গড়ার জোরে এই অসম্ভবের বেড়াটা...

বিস্তারিত বিবরণ >>

মন ভুলায় রে

দীপ চ্যাটার্জি

১৯ নভেম্বর, ২০১১

Image

+

একটু পিছনে তাকানো, ফিরে দেখা। তবুও সেইসব গানের দোলায় আজও আলোড়িত হয় বাঙালী মন। বার বার শুনেও যেন আশ মেটে না।



বাংলা ছবিতে প্রা‌য় ৭৫বছর আগে চালু হয় প্লে-ব্যাক প্রথা। ১৯৩৫সালে নীতিন বসুর ‘ভাগ্যচক্র’ ছবিটি দিয়ে প্লে-ব্যাক প্রথার সূত্রপাত। এর আগে বাংলা ছবিতে অভিনেতা-অভিনেত্রীরাই গান গাইতেন।....

বিস্তারিত বিবরণ >>

জাহাজটা চালাতে হবে

অশোক দাস

১২ নভেম্বর, ২০১১

Image

+

১৯৫২সালের এক শীতের অপরাহ্ণে যখন আমাদের স্কুলের ছুটির সময় হয়েছে, তখন ক্লাস রুমের জানালা দিয়ে বাসস্ট্যান্ডের দিকে তাকিয়ে দেখি, একটি পুরনো অস্টিন গাড়ির মাথায় দু’দিকে দুটো চোঙা লাগিয়ে মাইকে কে যেন বলছেন, কৃষক মজদুর প্রজা পার্টির প্রার্থী দেবেন সেনকে ‘কুঁড়েঘর’ মার্কা বাক্সে ভোট দিয়ে কংগ্রেসকে পরাস্ত করুন। সবে নতুন ক্লাসে উঠেছি, সরস্বতী পুজো এসে গেল বলে।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

বই প্রকাশেও শ্রেণীর লড়াই

রাহুল মজুমদার

৫ নভেম্বর, ২০১১

Image

+

এক নতুন পরিস্থিতির মুখে বাংলার কমিউনিস্ট আন্দোলন, বামপন্থা। বেনজির আক্রমণের মুখে দাঁড়িয়ে। আক্রমণ শারীরিক। বহু বামপন্থী কর্মীকে, দরদীকে শহীদের মৃত্যুবরণ করতে হয়েছে বামপন্থায়, কমিউনিজমে অটুট আস্থা রাখার মূল্য দিতেই। আক্রমণের ক্ষত এখনও হাজার হাজার বামপন্থী কর্মী, কমিউনিস্ট মতাদর্শে বিশ্বাসী কর্মী-সমর্থকের শরীরে। আক্রমণের ক্ষত এখন লক্ষ লক্ষ মননেও।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

সুন্দরের হাতছানি
ধ্বংসের ক্ষত

সত্যেন সরদার

৩০ অক্টোবর, ২০১১

Image

+

ঘুরতে যাওয়ার আগে প্রাকৃতিক বিপর্যয়। ঘুরে আসার পর আর এক বিপর্যয়। দুই বিপর্যয়ের শিকার সেই পাহাড়ী মানুষ। রাজ্য ভাগের আন্দোলনও পাহাড়ের ঢালে তৈরি করেছে ধ্বংসচিহ্ন। এত ধ্বংসের মাঝেও সৌন্দর্যের হাতছানি। সঙ্গে অকৃত্রিম আন্তরিকতা। সেই পাহাড় ঘুরে এসেই লিখেছেন সত্যেন সরদার।

বিস্তারিত বিবরণ >>

জঙ্গলের পরিবর্তন আর টুসু

চন্দন দাস

২২ অক্টোবর, ২০১১

Image

+

4Kab4Kas4Ka/OiDgprbgp43gpq/gpr7gpq7gprIg4Kau4Kac4KeB4Kau4Kam4Ka+4Kaw

কুর্চিবনীর রাজেন সেনাপতি ছিলেন জমি বাঁচাও কমিটির পাণ্ডা।

কুর্চিবনী নিমাইনগরে। নিমাইনগর নয়াগ্রামে। নয়াগ্রামের ওপারে কেশিয়াড়ি। মাঝে সুবর্ণরেখা।

সেতু হওয়ার কথা ছিল নদীর উপর। সেতুর সঙ্গে হওয়ার কথা ছিল ব্যারেজ। টাকার সহায়তা মিলতো কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে। ফলে সেচের জমি বাড়তো। আবার যোগাযোগও মসৃণ হতো। সুবর্ণরেখার উপর একটি সেতু আছে, সিদো-কানহু-বীরসা সেতু। আর একটির দরকার ছিল।...

বিস্তারিত বিবরণ >>

Featured Posts

Advertisement