সপ্তম পরীক্ষায়
উত্তীর্ণ অগ্নি-৫

সপ্তম পরীক্ষায় <br> উত্তীর্ণ অগ্নি-৫
+

বালেশ্বর, ১০ডিসেম্বর— ক্ষেপণাস্ত্র গবেষণায় দেশীয় প্রযুক্তির ব্যবহারে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল ভারত। সোমবার পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ ছিল পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম অগ্নি-৫ ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের। ওডিশা উপকূলের ড. আবদুল কালাম দ্বীপ থেকে সেই উৎক্ষেপণে সাফল্যের সঙ্গেই উত্তীর্ণ হয়েছে অগ্নি-৫। এ দিন ছিল এই ক্ষেপণাস্ত্রের সপ্তম পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ। প্রতিবারেই ক্ষেপণাস্ত্রটিতে যুক্ত করা হয়েছে নতুন বৈশিষ্ট্য। এটির উদ্ভাবক সংস্থা ডিআরডিও (ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন) এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে এই খবর দিয়ে জানানো হয়েছে, ৫ হাজার কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম ভূমি থেকে ভূমি ক্ষেপণাস্ত্রটির এই পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ সম্পূর্ণ সফল হয়েছে।
সোমবার বিকালে বঙ্গোপসাগরের ড. আবদুল কালাম দ্বীপের ইন্টিগ্রেটেড টেস্ট রেঞ্জ-এর চার নম্বর লঞ্চ প্যাড থেকে কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থায় ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণ করা হয়। অগ্নি-৫ লম্বায় ১৭ মিটার, চওড়ায় ২মিটার। তিন ধাপের এই ক্ষেপণাস্ত্রটি দেড় টন ওজনের পারমাণবিক অস্ত্রমুখ বহন করতে পারে। ২০১২ সালে এর প্রথম পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ হয়েছিল। ২০১৩ সালে হয়েছিল দ্বিতীয় পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ। তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ হয়েছিল যথাক্রমে ২০১৫, ২০১৬ এবং চলতি বছরের জুনে। এবার সম্ভবত এটি ভারতীয় সেনাবাহিনীর অস্ত্রভাণ্ডারে যুক্ত হবে। প্রসঙ্গত, সেনাবাহিনীর হাতে এখন রয়েছে ৭০০ কিলোমিটার দূরত্বে আঘাত হানতে সক্ষম অগ্নি-১, দু’হাজার কিলোমিটারের অগ্নি-২, আড়াই থেকে সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটারের অগ্নি-৩ ও অগ্নি-৪।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement