শুরুতেই চরায় ভেসেল
আটকে শঙ্কা গঙ্গাসাগরে

শুরুতেই চরায় ভেসেল <br> আটকে শঙ্কা গঙ্গাসাগরে
+

 অনিল কুণ্ডু : গঙ্গাসাগর, ১১ জানুয়ারি— যাত্রীদের আনাগোনা শুরু হয়েছে গঙ্গাসাগর মেলায়। দুর্ভোগের মধ্যেই নদী পেরোতে হচ্ছে যাত্রীদের। জোয়ারের সময়ে নদী পেরোতে না পারলে দুর্ভোগে পড়তে হবে যাত্রীদের। এমনই আশঙ্কা করেছেন কাকদ্বীপ, সাগরের স্থানীয় মানুষ। জোয়ারের জন্য প্রায় ৬ থেকে ৮ ঘন্টা কাকদ্বীপ-কচুবেড়িয়ার জেটি ঘাটে অপেক্ষা করতে হবে যাত্রীদের। শনিবার থেকে মেলার জন্য কাকদ্বীপ, নামখানার স্পেশাল ট্রেন চালু হবে। ভিড়ের চাপ ক্রমশই বাড়বে।

মেলার শুরুতেই ভাটায় মাঝ নদীতে চরায় আটকে পড়ে কচুবেড়িয়ামুখী যাত্রীবোঝাই ভেসেল। বৃহস্পতিবার বিকালে চরায় আটকে গেলে ভেসেলের আতঙ্কিত যাত্রীদের উদ্ধার করতে নামাতে হয় বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীদের। মুড়িগঙ্গা নদীতে চলছে ড্রেজিংয়ের কাজ। মরা কোটালে পড়েছে এবারের গঙ্গাসাগর মেলা। যাত্রী সমাগম বাড়লে নদীতে ভেসেলে যাত্রী পারাপার নিয়ে অস্বস্তিতে পড়তে হবে জেলা প্রশাসনকে। ড্রেজিং নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয়রা। তাঁদের কথায়, কাকদ্বীপের লট ৮এ জেটি ঘাটে ড্রেজিংয়ে বালি কেটে না তোলায় যাত্রীদের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে।

এদিকে নদীতে ড্রেজিং নিয়ে আশাবাদী জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা। এক আধিকারিক জানান, এবার মুড়িগঙ্গা নদীতে স্থায়ী ড্রেজিংয়ের উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার। প্রায় একশো কোটি টাকা ব্যয়ে সাত বছর ধরে নদীতে ড্রেজিংয়ের কাজ করা হবে। মেলার পরেও কাজ চালু থাকবে। তবে মেলার প্রাক্কালে প্রয়োজন মতো নদীতে ড্রেজিং না হওয়ায় যাত্রী পারাপার নিয়ে এবারে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে প্রশাসনকে এমনই বলেছেন সাগরদ্বীপের স্থানীয় বাসিন্দারা।

মেলাকে কেন্দ্র করে সরকারি উদ্যোগে পরিকাঠামো উন্নয়ন সহ বিভিন্ন দপ্তরের কাজ প্রায় সম্পূর্ণ। যাত্রীদের স্বার্থে সমস্ত রকম ব্যবস্থা ইতিমধ্যে নেওয়া হয়েছে। ঢেলে সাজানো হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় সিসিটিভি বসিয়ে মেলা প্রাঙ্গণ মুড়ে দেওয়া হয়েছে। সাধু, সন্তু থেকে দোকানদার, ব্যবসায়ীরা সকলেই হাজির হয়েছেন। শতাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন যাত্রীদের স্বার্থে এবারও মেলায় তাঁদের পরিষেবা নিয়ে হাজির। যাত্রীদের অপেক্ষায় প্রস্তুত দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা।

যাত্রী পরিষেবায় এবারও সরকার নির্ধারিত স্বেচ্ছাসেবকের ভূমিকায় রয়েছেন বিভিন্ন জেলা থেকে আসা কিশোর বাহিনীর ১১০ ভাইবোন। শুক্রবার মেলা প্রাঙ্গণে রাজ্য সংগঠক সেবা শিবিরের উদ্বোধন করেন কিশোর বাহিনীর মুখ্য সংগঠক পীযূষ ধর। সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করেন রাজ্য কার্যকরী প্রধান পরিচালক প্রবোধ মণ্ডল। দীপক রায়, নিরঞ্জন পাল, বিপ্লব দলুই প্রমুখ সংগঠক শিবিরে উপস্থিত রয়েছেন। মেলায় স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি শিবির সাথীরা বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement