দেশজুড়ে সর্বাত্মক
রেল অবরোধ

লাঠিতে জখম শতাধিক যুবকর্মী

দেশজুড়ে সর্বাত্মক<br>রেল অবরোধ
+

নয়াদিল্লি, ১৩ই ফেব্রুয়ারি — কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে এবং রেলদপ্তরে শূন্যপদে নিয়োগসহ অন্যান্য দাবিতে মঙ্গলবার দেশজুড়ে ট্রেন অবরোধ আন্দোলন করল ভারতের গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন (ডি ওয়াই এফ আই)। রাজস্থান, হিমাচল প্রদেশ, কেরালা, তেলেঙ্গানা, ওডিশা, কর্ণাটক, তামিলনাডু, হরিয়ানা, উত্তরাখণ্ড, বিহার, ঝাড়খণ্ডসহ বিভিন্ন রাজ্যে সফলভাবে এই আন্দোলন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। হাজার হাজার যুবক-যুবতীর অবরোধে এদিন সকাল দশটা থেকে সাড়ে দশটা পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বহু স্টেশনে ট্রেন থমকে যায়। প্রতিবাদ কর্মসূচি চলাকালীন জনস্বার্থের দাবিগুলি স্লোগানে, প্ল্যাকার্ডে তুলে ধরা হয়। অবরোধ তুলতে মাদুরাই, বেঙ্গালুরু এবং জয়পুরে রেলপুলিশ লাঠি চালালে ১০০জনেরও বেশি যুবকর্মী জখম হন। এদিনের আন্দোলনে যুবতীদের অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মতো। গ্রেপ্তারসহ দমনপীড়নের হুমকি অগ্রাহ্য করে দেশজুড়ে রেল রোকো আন্দোলন সর্বাত্মক করে তোলায় সংগঠনের কর্মী এবং সমর্থকদের অভিনন্দন জানিয়েছে ডি ওয়াই এফ আই-র কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি। প্রসঙ্গত, এদিন সারা দেশে ডি ওয়াই এফ আই-র রেল অবরোধ হলেও পশ্চিমবঙ্গে এই আন্দোলন হবে আগামী ১৬ই ফেব্রুয়ারি। মঙ্গলবার একটি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা থাকায় পশ্চিমবঙ্গে রেল অবরোধ কর্মসূচির পৃথক দিন আগেই ঘোষিত হয়েছিল।
রেলের সমস্ত শূন্যপদে অবিলম্বে নিয়োগ, রেলে ঠিকাশ্রমিক নিয়োগ বন্ধ করা, অবসরপ্রাপ্ত রেলকর্মীদের পুনর্নিয়োগ দিয়ে কাজ চালানো বন্ধ করা, রেলে বেসরকারিকরণের চেষ্টা রদ করা, ঐতিহ্যবাহী বা হেরিটেজ রেললাইন ও স্টেশনগুলি বিক্রির উদ্যোগ বন্ধ করা, বিবেক দেবরায় কমিটির সুপারিশ রূপায়ণ বন্ধ করা, রেলে ১০০শতাংশ প্রত্যক্ষ বিদেশি বিনিয়োগ প্রস্তাব বাতিল করার দাবিতে এদিন রেল অবরোধ কর্মসূচির ডাক দিয়েছিল ডি ওয়াই এফ আই। সিমলা, দেরাদুন, বেঙ্গালুরু, হিসার, মাদুরাই, জয়পুর, ভুবনেশ্বরে আন্দোলনের তীব্রতা ছিল উল্লেখযোগ্য। কেরালার সবকটি জেলার স্টেশনে স্টেশনে হাজার হাজার যুব জমায়েত হয়ে ট্রেন অবরোধ করেন।
এদিন নয়াদিল্লি থেকে প্রচারিত এক বিবৃতিতে ডি ওয়াই এফ আই-র সভাপতি মহম্মদ রিয়াজ এবং সাধারণ সম্পাদক অভয় মুখার্জি বলেছেন, এদিনের রেল অবরোধ কর্মসূচির পরে কেন্দ্রের মোদী সরকার যদি যুবসমাজের দাবিগুলি না মানে, তাহলে শীঘ্রই আরও বড়ো আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে। রেলসহ বিভিন্ন কেন্দ্রীয় দপ্তরে শূন্যপদ পূরণ না করে বহু বছর ধরেই বসে রয়েছে সরকার। অথচ নিয়োগের মিথ্যে পরিসংখ্যান প্রচার করে মানুষকে বোকা বানানোর চেষ্টা চলছে। নয়া উদার অর্থনৈতিক নীতির মাধ্যমে দেশের কোটি কোটি যুবকযুবতীর সর্বনাশের চেষ্টা কিছুতেই মেনে নেওয়া হবে না।
উল্লেখ্য, পশ্চিমবঙ্গে আগামী ১৬তারিখে রেল অবরোধ কর্মসূচি সর্বাত্মক করতে জোর প্রচার চলছে। আন্দোলনের জনস্বার্থবাহী দাবিগুলি রাজ্যবাসীকে জানাতে চলছে সই সংগ্রহ অভিযান। সম্প্রতি এক সাংবাদিক সম্মেলনে ডি ওয়াই এফ আই-র রাজ্য সভাপতি সায়নদীপ মিত্র এবং সম্পাদক জামির মোল্লা জানিয়েছেন, রাজ্যের পুলিশ বা আর পি এফ যদি ট্রেন অবরোধ আন্দোলনে বাধা দিতে আসে, তবে প্রতিরোধ করেই তার মোকাবিলা হবে। কোনও অবস্থাতেই রেল অবরোধ রোখা যাবে না। 

Featured Posts

Advertisement