বাইকবাহিনীর অসভ্যতার যোগ্য জবাব দিল নেধুয়া

বাইকবাহিনীর অসভ্যতার যোগ্য জবাব দিল নেধুয়া
+

নিজস্ব সংবাদদাতা: মেদিনীপুর, ১৫ই মে— দুপুরের স্নান-খাওয়া শিকেয় তুলে দিয়ে তৃণমূলের লুটের বাইকবাহিনীকে যোগ্য জবাব দিল নেধুয়া বুথ। বাইকবাহিনীকে রুখে দিয়ে পুরো গ্রাম জানান দিল এমন ‘অসভ্যতা, অত্যাচার করতে এলে হয় মরবি না হয় গ্রামবাসী মরবে।’
প্রায় চল্লিশটির মতো বাইক নিয়ে তৃণমূলের শতাধিক দুষ্কৃতী বেলা ১২-৩০টা নাগাদ নেধুয়া গ্রামের মধ্যে ধুলো উড়িয়ে ঢোকে। সেই সময় দুই গৃহবধূ এবং সবং কলেজের এক ছাত্রী নলকূপ থেকে খাওয়ার জল নিয়ে ফিরছিল। মদ্যপ বাইক বাহিনীর যেন জলের তেষ্টা বেড়ে যায়। দুই গৃহবধূকে বাদ দিয়ে ঐ ছাত্রীকে বলে জল খাবে, ছাত্রীটি সামনেই নলকূপ দেখিয়ে দিয়ে ওখানে গ্লাস, মগ আছে জল খেতে বলে। কিন্তু মদ্যপ বাইকবাহিনীর গোঁষা হয়। একজন তার জলের কুঁজো ধরে টান দেয়। সেই অবস্থায় আর একজন শ্লীলতাহানি করে। এমন ঘটনায় ঐ ছাত্রী ও দুই গৃহবধূ প্রতিবাদ করেন। তা থেকেই বচসা। গ্রামের মানুষ দুপুরের স্নান খাওয়া বাদ দিয়ে লাঠি, মহিলারা বঁটি নিয়ে ঘরের বাইরে বেরিয়ে বাইক বাহিনীকে ঘিরে ধরেন। শুরু হয় যোগ্য উত্তর। বেশিরভাগ দুষ্কৃতী গ্রামবাসীদের এই রণংদেহী মেজাজ দেখে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। ১৪টা-র মতো বাইকের জনাতিরিশ দুষ্কৃতী মানুষের ঘেরাটোপে পড়ে যায়। গ্রামবাসীরা মদ্যপ দুষ্কৃতী বাহিনীকে বুঝিয়ে দেয়, মহিলাদের প্রতি অশোভন আচরণ করার কি প্রতিক্রিয়া হতে পারে। পুলিশে খবর দেয় গ্রামবাসী। গ্রামবাসীরা পুলিশকে বাইকগুলি তুলে নিয়ে যেতে বলে, আর ঐ গাড়ির মালিক ও চালকদের গ্রেপ্তার করে শাস্তির দাবি জানায়। কিন্তু এখনো পর্যন্ত সেই গাড়িগুলি পুলিশ তুলে নিয়ে না যাওয়ায়, এলাকায় পুনরায় হামলার আশঙ্কাতে গ্রামের মানুষ প্রস্তুত থাকছেন।

Featured Posts

Advertisement