রিয়াল-মেঘে বজ্রপাত
কোচ বদল স্পেনের

রিয়াল-মেঘে বজ্রপাত<br>কোচ বদল স্পেনের
+

মস্কো, ১৩ই জুন— শুক্রবার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে পর্তুগালের বিরুদ্ধে নামছে স্পেন। মাত্র ৪৮ঘণ্টা আগে চাকরি খোয়ালেন কোচ জুলেন লোপেতেগুই। ফেডারেশনকে না জানিয়ে বিশ্বকাপের পরেই রিয়াল মাদ্রিদের কোচ হবার চুক্তিতে পৌঁছেই পদ খোয়াতে হলো লোপেতেগুইকে। নতুন কোচ হচ্ছেন দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক, এখন ফেডারেশনের ফুটবল ডিরেক্টর ফার্নান্দো হিয়েরো। এমন ভূমিকম্পে ক্রাসনোডারে স্পেন শিবিরে পুরোই অনিশ্চয়তা। 
জিনেদিন জিদান রিয়াল মাদ্রিদের কোচের দায়িত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন নাটকীয় ভাবেই। তারপর থেকেই জোর চর্চা চলছিল কে হবেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ীদের নতুন কোচ। আকস্মিক ভাবেই ঘোষিত হয় জাতীয় কোচ লোপেতেগুইয়ের নাম। মঙ্গলবার এই নাম ঘোষণার পরেই তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়। বিশেষ করে স্পেনের ফুটবল ফেডারেশন এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেনি। ফেডারেশনের সভাপতি লুইস রুবিয়ালেস মস্কোয় ফিফার সভায় ছিলেন। সেই সভায় ভোটাভুটি করে ২০২৬-র বিশ্বকাপের স্থান নির্বাচন হয়েছে। কিন্তু ভোট না দিয়েই মস্কো থেকে বিমান ধরে রুবিয়ালেস চলে যান ক্রাসনোডারে। কথা বলেন লোপেতেগুই, হিয়েরো, খেলোয়াড়দের সঙ্গেও। থমথমে পরিবেশের মধ্যেই ক্রুদ্ধ ফেডারেশন সভাপতি সিদ্ধান্ত নেন নীতি-নৈতিকতা মেনে লোপেতেগুইকে বিদায়ই দেওয়া হবে। পরে, সাংবাদিক সম্মেলনে রুবিয়ালেস বলেন, কোচ হিসাবে জুলেন সম্পর্কে আমার কোনও অভিযোগ নেই। কিন্তু ফেডারেশনের কিছু নিয়মকানুন আছে, যা মানতে সকলেই বাধ্য। রিয়াল মাদ্রিদ কোচের নাম ঘোষণার পাঁচ মিনিট আগে আমাকে ফোন করে জানায়। আমি তাঁদের অপেক্ষা করতে বললেও তা করেনি। আমি কোচের সঙ্গে কথা বলার সুযোগও পাইনি। ক্লাব তাঁর নাম জানিয়ে দেয়। এভাবে জাতীয় দল চলতে পারে না। খুবই দুঃখের সঙ্গে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে।  নির্দিষ্ট অভিযোগের আঙুল না তুললেও রুবিয়ালেসের ইঙ্গিত ছিল রিয়ালের আচরণের দিকেই। 
ফেডারেশন সভাপতি স্পেনের অনুশীলন শিবিরে যাবার পরে খেলোয়াড়দের সঙ্গেও কথা বলেছেন। খেলোয়াড়দের প্রতিক্রিয়া নিয়ে একাধিক খবর মিলেছে। দলের অধিনায়ক এবং রিয়ালের খেলোয়াড় সার্জিও রামোস লোপেতেগুইকে রেখে দেওয়ার পক্ষেই সওয়াল করেছিলেন। শোনা যাচ্ছে, ইনিয়েস্তা, সিলভা, রেইনা, বুসকেতসের মতো পুরানো খেলোয়াড়রাও ফেডারেশন সভাপতিকে বলেছিলেন, এখন কোচ বদলে দলের সমস্যা হবে। কিন্তু রুবিয়ালেস শোনেননি। তিনি জানিয়ে দেন নৈতিকতার প্রশ্নে আপস করা যাবে না। পরে, সাংবাদিক সম্মেলনে রুবিয়ালেস বলেন, খেলোয়াড়রা কথা দিয়েছেন এই পরিস্থিতিতে তাঁরা যতদূর সম্ভব চেষ্টা করবে। রামোসের বিদ্রোহের কথা বাইরেও ছড়িয়েছিল। তিনি টুইটারে বলেছেন, ‘এখানে আমরা জাতীয় দলের, কারও কোনও রং নেই, অন্য কোনও পরিচয় নেই। গতকাল ঐক্যবদ্ধ ছিলাম, আজও আছি, আগামীকালও থাকব।’ 
স্পেনের ক্লাব ফুটবলের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার ছায়া পড়েছে এই ঘটনায়। রিয়াল মাদ্রিদ একমাস অপেক্ষার ধৈর্য ধরেনি, জাতীয় দলে অস্বস্তি তৈরি হবে জেনেও লোপেতেগুইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে, তাঁকে রাজি করিয়েছে এবং প্রকাশ্যে তা জানিয়েও দিয়েছে। জাতীয় দলে অস্থিরতা তৈরি হয়েছিল, এমন খবর ফেডারেশনের কাছেও ছিল। 
লোপেতেগুই স্পেনকে ভালোই পরিচালনা করছিলেন। একটানা অপরাজিত থেকে রাশিয়া এসেছে লা রোজা। এমনকি সম্ভাব্য চ্যাম্পিয়নের তকমাও বহন করছে তারা। 
নতুন কোচ হিয়েরো স্পেনের হয়ে ৮৯ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। ১৯৯০-র ইতালি বিশ্বকাপে দলে ছিলেন, খেলেননি। ১৯৯৪, ১৯৯৮, ২০০২ বিশ্বকাপে খেলেছেন, শেষ দুবার অধিনায়কও ছিলেন। ডিফেন্ডার হিয়েরো বিশ্বকাপে ১২ ম্যাচে ৫ গোলও করেছেন, রক্ষণের খেলোয়াড় হিসাবে যা উল্লেখযোগ্য। রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড় হিসাবে ৫বার লা লিগা, ৩ বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছেন। কিন্তু কোচ হিসাবে রিয়াল মাদ্রিদের এক মরশুমের সহকারী ম্যানেজার, মালাগার টেকনিক্যাল ডিরেক্টর, রিয়াল অভিয়েদোর এক মরশুমের কোচ ছাড়া কোনও বড় অভিজ্ঞতা নেই। 

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement