গিরীশ কারনাডসহ বুদ্ধিজীবীদের হত্যার পরিকল্পনা ছিল হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসবাদীদের

গিরীশ কারনাডসহ বুদ্ধিজীবীদের হত্যার পরিকল্পনা ছিল হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসবাদীদের
+

বেঙ্গালুরু, ১৩ই জুন— কানাঘুষো আগেই ছিল যে কর্ণাটকের লেখক, শিল্পী, বুদ্ধিজীবী যাঁরা প্রগতিশীল, ধর্মনিরপেক্ষ এবং যুক্তিবাদী তাঁদের হত্যার ষড়যন্ত্র করছে উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা। গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে গিয়ে সেই ঘটনাই এবার প্রমাণসহ সামনে আসছে। গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডের বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিটের তদন্তে এই সব তথ্য জানা যাচ্ছে। বিশিষ্ট চলচ্চিত্র এবং নাট্যব্যক্তিত্ব গিরিশ কারনাডসহ আরও অনেক সাহিত্যিক এবং যুক্তিবাদীরা হিন্দুত্ববাদীদের ‘হিট লিস্ট’-এ ছিলেন গৌরী লঙ্কেশকে হত্যার সময়ে। 
গিরিশ কারনাড ছাড়াও জ্ঞানপীঠ পুরস্কার জয়ী রাজনৈতিক-সাহিত্যিক বি টি ললিতা নায়েক, নিদুমামিডি মঠের প্রধান বীরভদ্র চান্নামাল্লা স্বামী এবং যুক্তিবাদী সি এস দ্বারকানাথ এই তালিকায় ছিলেন বলে সিটের সূত্রে জানা গেছে। বিশেষ তদন্তকারী দল সন্দেহভাজনদের কাছ থেকে একটি ডায়েরি উদ্ধার করেছে যেখানে দেবনাগরীতে লেখা রয়েছে। সেখানে এইসব ব্যক্তিদের নাম লেখা রয়েছে যাঁরা উগ্র হিন্দুত্বের বিরোধী। যাঁদের হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমণ করার পরিকল্পনা ছিল বলে মনে করা হচ্ছে। সিটের সূত্রেই এই তথ্য জানা গেছে। 
মঙ্গলবার পরশুরাম ওয়াঘমারে নামে এক যুবককে গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডে যুক্ত থাকার সন্দেহে গ্রেপ্তার করে বিজয়পুরা থেকে। তার চেহারার গড়নের সঙ্গে সি সি টিভি ফুটেজে যে ব্যক্তি গৌরী লঙ্কেশকে গুলি করে তার মিল রয়েছে। এই জেরে প্রচার ছড়িয়ে পড়ে যে পরশুরাম ওয়াঘমারেই খুন করেছে গৌরী লঙ্কেশকে। যদিও পরে সিটের প্রধান পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল বি কে সিং জানিয়েছেন, এই ব্যক্তিই গৌরী লঙ্কেশকে খুন করেছে আমাদের তদন্তে এমন বিষয় উঠে আসেনি। তাই এই নিয়ে ধারণা তৈরি করে নেওয়া সঠিক নয়। পুরো বিষয় তদন্তের পর সামনে আসবে। 
হিন্দুত্ববাদীদের বিরুদ্ধে গিরিশ কারনাডের কঠোর অবস্থান সম্পর্কে সকলেই অবহিত। একইরকমভাবে ললিতা নায়েক বা বীরভদ্র চান্নামাল্লা স্বামী এবং যুক্তিবাদী সি এস দ্বারকানাথও হিন্দুত্ববাদীদের বিরুদ্ধে সরব থেকেছেন বরাবর। যুক্তিবাদী দ্বারকানাথ তো রামের অস্তিত্ব নিয়েই প্রশ্ন তুলেছিলেন। সেই জন্য হিন্দুত্ববাদীরা তাঁকে হেনস্তাও করেছে। এরা সকলেই গৌরী লঙ্কেশকে সম্মান করতেন বা তাঁর সমর্থক ছিলেন। ডায়েরিতে এই কথার উল্লেখ রয়েছে বলে জানিয়েছে সিট সূত্র। 
গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডে ইতিমধ্যে ৬জনকে গ্রেপ্তার করেছে সিট। পরশুরাম ছাড়াও অন্যতম অভিযুক্ত নবীন কুমারের জবানবন্দি নথিভুক্ত করা হয়েছে। তার বেশ কিছু অংশ সামনেও চলে এসেছে। এছাড়াও সুজিত কুমার ওরফে প্রবীণ, অমল কালে, পোন্ডার অমিত দেগউইকার, বিজয়পুরার মনোহর ইদাভেকে গৌরী লঙ্কেশ হত্যায় গ্রেপ্তার করেছে সিট।

Featured Posts

Advertisement