কোস্টারিকার বিশ্বকাপার
অ্যাকোস্তা ইস্টবেঙ্গলে

কোস্টারিকার বিশ্বকাপার<br>অ্যাকোস্তা ইস্টবেঙ্গলে
+

নিজস্ব প্রতিনিধি: কলকাতা, ১১ই জুলাই— একের পর এক চমক দিয়েই চলেছে ইস্টবেঙ্গল। নতুন বিনিয়োগকারী পেয়ে এমনিতেই ক্লাবে এখন অকাল বসন্ত। অর্থের সমস্যা মিটে যাওয়ার পর ইস্টবেঙ্গল রিক্রুটাররাও দুরন্ত ফর্মে। কোয়েসের নাম ঘোষণা করার আগেই এই বিশ্বকাপেই কোস্টারিকার জার্সিতে খেলা স্টপার জনি অ্যাকোস্তাকে চুক্তিপত্র পাঠিয়ে দিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। কোস্টারিকার বছর ৩৫-এর এই ডিফেন্ডারের একটি বিষয়েই প্রশ্ন ছিল আদৌ ইস্টবেঙ্গল আই এস এল খেলবে তো? তিনি পরিষ্কারই জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি আই এস এলে খেলতে চান। ইস্টবেঙ্গল কর্তারা তাঁকে নিশ্চিত করেন লাল হলুদ আই এস এলেই খেলবে। শেষ অবধি সই করেন জনি অ্যাকোস্তা। 
৩৫বছরের এই স্টপার কোস্টারিকার হয়ে ৭১টি ম্যাচ খেলেছেন। এই বিশ্বকাপেও তিনটি ম্যাচই খেলেছেন অ্যাকোস্তা। ব্রাজিল ম্যাচে তাঁর দল প্রায় আটকে দিয়েছিল নেইমারদের। শেষ মুহূর্তে দুগোল করে জেতে ব্রাজিল। বিশ্বকাপ খেলা ফুটবলার ভারতীয় ফুটবলে নতুন নয়। ফুটবলার জীবনের শেষপর্বে অনেক বিশ্বকাপারই ভারতে খেলেছেন। তবে সদ্য বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করা কোন ফুটবলার ভারতীয় কোন ক্লাবে যোগ দিচ্ছেন এ দৃশ্য বিরল। ইস্টবেঙ্গল কর্তারা বলছেন ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম সেরা সই। ৫ফুট ৯ ইঞ্চি উচ্চতার এই ফুটবলার আগস্টেই দলের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন। কলকাতা লিগেও তিনি খেলবেন বলেই জানালেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা।
তবে চমক এখানেই শেষ নয়। পানামার ফুটবল ইতিহাসে সবথেকে বেশি ম্যাচ খেলা ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার গ্যাব্রিয়েল গোমেজের সঙ্গেও কথা বলছে ইস্টবেঙ্গল। বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন গোমেজের এজেন্টও। তিনি ফোনে জানালেন, ‘ইস্টবেঙ্গলের তালিকায় এই বিশ্বকাপে খেলা বেশ কয়েকজন ফুটবলার আছে। সেই তালিকায় গোমেজও আছে। কথা অনেকদিন থেকেই হচ্ছে। তবে এখনও চূড়ান্ত কিছু নয়।’ পানামার জার্সিতে ১৪৮টি ম্যাচ খেলেছেন গোমেজ। বছর ৩৪-এর এই মিডফিল্ডারের উচ্চতা ৬ফুট। তবে মিডফিল্ডার নিয়ে ইস্টবেঙ্গল ধীরে চললেও খুব দ্রুত একজন ভালোমানের স্ট্রাইকারকে সই করাতে চাইছে ইস্টবেঙ্গল। সেখানেও চমকের পথেই হাঁটতে চলেছেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। মরোক্কো, ইরানসহ বেশ কিছু দেশের বিশ্বকাপ খেলা স্ট্রাইকারের তালিকা রয়েছে ইস্টবেঙ্গলের কাছে। 
ইস্টবেঙ্গলের আই এস এল খেলা সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করা হচ্ছে। আই এস এল খেললে অ্যাকোস্তাই হবেন মার্কি ফুটবলার। আই এস এল খেলার বিষয়টি দিন দশেকের মধ্যেই চূড়ান্ত হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। ভারতীয় ফুটবলার নেওয়ার বিষয়ে এবার ইস্টবেঙ্গল কিছুটা পিছিয়ে। তাই বিদেশি ফুটবলারে চমক দিয়েই ফাঁকটা মেটাতে চাইছে। বিনিয়োগকারীদের দিক থেকে সবুজ সংকেত পেয়েই সর্বশক্তিতে ঝাঁপিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। আই এস এলের সবুজ সংকেতের অপেক্ষা না করেই তারকা বিদেশি নিয়ে দল শক্তিশালী করার লক্ষ্য তাদের।

Featured Posts

Advertisement