লালঝান্ডা হাতে সরব
সংগ্রামে ২০লক্ষ

জানালেন হান্নান মোল্লা

লালঝান্ডা হাতে সরব<br>সংগ্রামে ২০লক্ষ
+

অরূপ সেন: নয়াদিল্লি, ১০ই আগস্ট— কৃষিজীবীর মেজাজ বুঝিয়েছে ৯ই। সাড়া দিয়েছেন সব অংশের শ্রমজীবী। সারা দেশে জেল ভরো আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন প্রায় ২০লক্ষ মানুষ। গ্রেপ্তার হয়েছেন ১০লক্ষ। শুক্রবার আন্দোলন প্রসঙ্গে এই তথ্য জানিয়েছেন সারা ভারত কৃষকসভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা। তিনি জানিয়েছেন, দেশের ২২টি রাজ্যের ৪০৪টি জেলায় বিক্ষোভ হয়েছে। জেল ভরো-তে যোগ দিয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষও। তামিলনাডুতে কর্মসূচি স্থগিত ছিল ডি এম কে নেতা এম করুণানিধির প্রয়াণের কারণে। 
মোল্লা বলেছেন, বহু বছর বাদে দেশের বহু এলাকায় লালঝান্ডা হাতে বিক্ষোভে অংশ নিয়েছেন বিপুল অংশের মানুষ। সারা ভারত কৃষকসভার ডাকে এই আন্দোলনে বিভিন্ন প্রান্তে শামিল হয়েছে খেতমজুর ইউনিয়ন। সংহতিতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়েছেন সি আই টি ইউ-র কর্মী-নেতারা। বড় অংশগ্রহণ ছিল মিড ডে মিল, অঙ্গনওয়াড়ির মতো প্রকল্প কর্মীদের।
৯ই আগস্ট ভারত ছাড়ো দিবসে জেল ভরোর ডাক দিয়েছিল কৃষকসভা। কৃষিঋণ মকুব এবং ফসলের প্রকৃত খরচের সঙ্গে ৫০শতাংশ জুড়ে সহায়ক মূল্য নির্ধারণের কেন্দ্রীয় দাবিতে হয়েছে আন্দোলন। কৃষিজীবীর পক্ষে দাবিসনদে সই সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রী দপ্তরে। মোল্লা জানিয়েছেন, প্রতিটি এলাকায় আন্দোলনে অভিজ্ঞতা বিশদে পর্যালোচনা করবে সারা ভারত কৃষকসভা। এরপরই ২৩শে আগস্ট দুগ্ধ উৎপাদকদের পক্ষে দাবি দিবস পালন করবে সংগঠন। এখনই তার প্রস্তুতিতে নেমে পড়া হবে। 
কেন্দ্রের পদক্ষেপের কারণে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের থেকে দুগ্ধপণ্য ঢুকছে দেশে। দেশের ছোট এবং সাধারণ দুগ্ধ উৎপাদকরা ব্যাপক সংকটে। ভারতে এই ক্ষেত্রটির ওপর নির্ভরশীল প্রায় ১০কোটি কৃষিজীবী। ফসল চাষ করে যা আয় তাতে পরিবার চলে না। জীবনযাপনে সামান্য বাড়তি আয়ের জন্য দুগ্ধ উৎপাদনের ক্ষেত্রটিতে ভরসা রাখতে হয় এই অংশকে। বিদেশ থেকে পণ্য ঢোকার কারণে খরচের অনুপাতে দাম পাচ্ছেন না দেশের কৃষিজীবী। মোল্লা জানিয়েছেন, এই অংশের দাবিতে জাতীয় স্তরে কনভেনশনও করবে কৃষকসভা। 
৯ই আগস্টে কাশ্মীরের দুটি জায়গায় জেল ভরো-তে অংশ নেন কয়েক হাজার মানুষ। মহারাষ্ট্র এবং রাজস্থান, যে দুই রাজ্যে একাধিক নির্ণায়ক আন্দোলন গড়েছে কৃষকসভা, সেখানে জোরালো সাড়া মিলেছে ৯ই আগস্টেও। 
রাজস্থানের শিকর জেলাতেই অংশ নিয়েছেন ২০হাজার মানুষ। রাজ্যে ঋণ মকুবের দাবিতে শিকরেই টানা অবস্থানে বসেছিলেন কৃষিজীবীরা। রাজ্যের বি জে পি সরকারকে বাধ্য হয়ে আলোচনায় বসতে হয়েছিল। ৯ই-র কর্মসূচিতে স্রোতের মতো মিছিল ভাসিয়ে দিয়েছে জেলাকেন্দ্র শিকরকে। নজরকাড়া উপস্থিতি ছিল কৃষক পরিবারের মহিলাদের। সরবে স্লোগান দিয়ে পুলিশের গাড়িতে উঠেছেন তাঁরা। রাজস্থানের হনুমানগড়, দুঙ্গরপুর, চুরু, কোটা, গঙ্গানগরের মতো জেলাগুলিতেও জেল ভরো-তে প্রাণবন্ত সাড়া মিলেছে। কৃষকসভার প্রাথমিক হিসাব, অন্তত ২৭হাজার মানুষ গ্রেপ্তারি বরণ করেছেন রাজ্যে। রাজধানী জয়পুরে গ্রেপ্তার হন মহিলা আন্দোলনের নেত্রী এবং সি পি আই (এম) পলিট ব্যুরো সদস্য বৃন্দা কারাত। তিনি বলেছেন, রাজস্থানে এবং দেশের বি জে পি সরকার কৃষকবিরোধী, দলিতবিরোধী এবং আদিবাসী বিরোধী। 
মহারাষ্ট্রে কৃষকদের লং মার্চ আলোড়ন ফেলেছিল সারা দেশে। ৯ই কেবল থানে-পালঘর, নাসিক এবং সোলাপুর, এই তিন জেলাতেই গ্রেপ্তার হয়েছেন প্রায় ৪৫হাজার মানুষ। রাজ্যের মোট ২৫টি যোগ দিয়েছেন কৃষিজীবী-শ্রমিক-মহিলা-ছাত্র-যুবরা। জেলায় সারা ভারত কৃষকসভার সর্বভারতীয় সভাপতি অশোক ধাওলে থানে-পালঘর জেলার দাহানুতে গ্রেপ্তার হয়েছেন। সারা ভারত গণতান্ত্রিক মহিলা সমিতির মারিয়াম ধাওয়ালে গ্রেপ্তার হয়েছেন এই জেলারই বিক্রমগড়ে। ৪ঠা সেপ্টেম্বর দিল্লিতে মহিলাদের বিক্ষোভ সমাবেশ। ৫ই সেপ্টেম্বর শ্রমিক কৃষক সংগ্রাম সমাবেশ। দুই কর্মসূচিতেই বড় জমায়েত হবে  মাহারষ্ট্র থেকে, উৎসাহিত কৃষকনেতারা জানিয়েছেন শুক্রবার। 
জেল ভরো আন্দোলনের পরই, শুক্রবার টুইটে কেন্দ্রের মনোভাবে প্রশ্ন তুলেছেন সি পি আই (এম) সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে যে রেলমন্ত্রী এবং ভারপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলের বিমানযাত্রায় বেরিয়ে যাচ্ছে সরকারের বিপুল টাকা। রেলমন্ত্রকের অভ্যন্তরীণ চিঠির উল্লেখ করে সংবাদে বলা হয়েছে, সরকারি এয়ার ইন্ডিয়ার বদলে বেসরকারি সংস্থার নিজস্ব ভাড়া করা বিমানে চড়তে পছন্দ করেন গোয়েল। সাধারণভাবে যা খরচ হওয়ার উচিত তার ১৫-২০গুণ বেশি অর্থ রেলকে বইতে হচ্ছে মন্ত্রীর ভ্রমণে। কয়েকটি ক্ষেত্রে সপরিবারে কোষাগারের টাকা উড়িয়ে চার্টার্ড প্লেনে যাতায়াত করেছেন গোয়েল। 
ইয়েচুরি বলেছেন, কৃষকরা ঋণমকুবের দাবি জানালে সরকার বলছে টাকা নেই। অথচ মন্ত্রী নিজে বিশেষ ভাড়া করা বিমানে উড়ে বেড়াচ্ছেন। তার জন্য বিধি ভেঙে বিপুল খরচ করা হচ্ছে জনগণের টাকায়।  
 

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement