মৃত্যুকে ডজ দিয়েছিলেন
ইস্টবেঙ্গলের মহম্মদ গাম্বো

মৃত্যুকে ডজ দিয়েছিলেন<br>ইস্টবেঙ্গলের  মহম্মদ গাম্বো
+

নিজস্ব প্রতিনিধি: কলকাতা, ২০শে আগস্ট— রাশিয়া বিশ্বকাপ চলার সময় একটি খবর প্রকাশ্যে এসেছিল। নাইজেরিয়া জাতীয় দলের অধিনায়ক জন ওবি মিকেলের বাবা অপহৃত হয়েছিলেন। অপহৃত হয়েছিলেন আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া ম্যাচের ঠিক আগে। ওই অবস্থাতেও মাঠে নেমেছিলেন মিকেল। আফ্রিকার এই দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুবই খারাপ। আক্রমণের হাত থেকে বাদ যান না ফুটবলাররাও। ইস্টবেঙ্গলের নতুন বিদেশি মহম্মদ গাম্বোকেও ফিরতে হয়েছে মৃত্যুর হাত থেকে। গুলিতে আহত হয়েছিলেন তিনি। নতুন এই বিদেশিকে নিয়ে কৌতূহলের শেষ নেই। ইউটিউবে ভিডিও দেখা থেকে ইন্টারনেট থেকে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ। চেষ্টার কসুর নেই সমর্থকদের। কিন্তু অনেকেই এখনও জানেন না গাম্বোর জীবনের এই অংশটি। 
৩ বছর আগের ঘটনা। ২০১৫সালের ৫ই মার্চ। কানো পিলার্সের গোটা দল নাইজেরিয়ার কানো শহর থেকে ওয়েরি যাচ্ছিল। হার্টল্যান্ড এফ সির বিরুদ্ধে নাইজেরিয়া ফুটবল লিগের ম্যাচ খেলতে। ১৮জন ফুটবলারসহ ২৫জনের দলটিকে নিয়ে যাচ্ছিল একটি ছোট বাস। লোকোজা শহরের কাছে হঠাৎ আক্রমণ। স্থানীয় সময় তখন দুপুর ১টা। ছিনতাইবাজদের হামলা হয় বাসে। নির্বিচারে চলে গুলি। লুকানোর কোন জায়গা পাননি ফুটবলাররা। আহত হন কানো পিলার্সের পাঁচ ফুটবলার। ছিনিয়ে নেওয়া হয় মোবাইল এবং টাকা। সবথেকে গুরুতরভাবে আহত হয়েছিলেন মহম্মদ গাম্বো। তাঁর হাতে গুলি লেগেছিল। মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল তাঁর হাত। বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে থাকতে হয়েছিল গাম্বোকে। 
ফুটবল জীবনের গোটা সময়টাই তিনি কাটিয়েছেন কানো পিলার্সে। ২০১৬-১৭ মরশুমে তিনি ছিলেন নাইজেরিয়া লিগের অন্যতম দামি ফুটবলার। তবে ২০১৬-এর এপ্রিল মাসে মারাত্মক চোট পেয়েছিলেন তিনি। নাইজেরিয়া লিগে রিভার্স ইউনাইটেডের সঙ্গে ম্যাচে মাথায় চোট পেয়েছিলেন। নিয়ে যেতে হয়েছিল হাসপাতালে। বেশ কয়েকদিন ভর্তি থাকতে হয়েছিল। ২০১৭-১৮মরশুমে তাঁকে সই করাতে চেয়েছিল প্লাটিউ ইউনাইটেড। কিন্তু শেষ অবধি কানো পিলার্সেই থেকে যান। চোটের জন্য শেষ মরশুমে অনিয়মিত হয়ে পড়েছিলেন। তাও দল ছাড়া নিয়ে কিছুটা দোটানায় ছিলেন। শেষ অবধি ইস্টবেঙ্গলের প্রস্তাবে সায় দিয়ে ১২ বছরের সম্পর্ক ভেঙেছেন কানো পিলার্সের সঙ্গে। কলকাতায় এখনও পা রাখেননি। কর্তারা আপ্রাণ চেষ্টা করছেন তাঁকে বড় ম্যাচের আগেই নিয়ে আসতে। এই নতুন নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকারকে নিয়ে আশায় বুক বাঁধছেন সমর্থকরা।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement