চর্মনগরীতে ভস্মীভূত কারখানা

চর্মনগরীতে ভস্মীভূত কারখানা
+

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভাঙড়, ১০ই অক্টোবর— বিধ্বংসী আগুনে ভাঙড়ের ‘কলকাতা চর্মনগরী’তে ভস্মীভূত হলো একটি কারখানা। কারখানায় আগুন লাগার ঘটনায় রিঙ্কু মণ্ডল (২৮) ও সাগর দাস (২৪) নামে ২জন শ্রমিক জখম হয়েছেন। তাঁদেরকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জখমদের মধ্যে রিঙ্কু মণ্ডলের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। দমকলের ৪টি ইঞ্জিন দেড় ঘণটার প্রচেষ্টায় আগুন আয়ত্তে আনে। তবে ঘটনাস্থলে পরে আরও ৩টি ইঞ্জিন নিয়ে আসা হয়। বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগেছে বলে দমকল কর্মীদের প্রাথমিক অনুমান। 
ভাঙড়ে বাসন্তী হাইওয়ের পাশে কলকাতা লেদার কমপ্লেক্সের ২ নম্বর গেটের ভিতরে তিন তলা বাড়ির ওই ট্যানারিতে এদিন বেলা ১২টা নাগাদ আগুন লাগে। সেই সময় শ্রমিকরা কাজ করছিলেন। প্রচুর পরিমাণে দাহ্য পদার্থ ওই চামড়া কারখানায় মজুত ছিল। ওই বাড়ির দোতলাতে কেমিক্যাল দিয়ে চামড়া পরিষ্কার করার কাজ করছিলেন প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন শ্রমিক। প্রথমে মেশিনে আগুন লাগে। প্রচুর দাহ্য পদার্থ থাকায় দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আগুনের শিখা বহুদূর পর্যন্ত উঠতে দেখা যায়। আকাশ কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে যায়। আতঙ্কে শ্রমিকরা নিচে নেমে আসেন। কমপ্লেক্সের আশপাশের কারখানার শ্রমিকরাও বেরিয়ে পড়েন। শ্রমিকরা এদিন জানান, প্রথমে মেশিনে আগুন লাগে তারপর আগুন ছড়িয়ে পড়ে। কারখানার অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা থাকায় শ্রমিকরা নিজেরাই আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। তবে প্রচুর পরিমাণে দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন ভয়াবহ হয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে কারখানায়। এর বেশি কিছু জানাতে চাননি শ্রমিকরা। পার্ক লেদার প্রাইভেট লিমিটেড নামে ওই কারখানায় এদিন আগুন লাগার ঘটনায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। 
ভাঙড়ের বাসন্তী হাইওয়ের পাশে কলকাতা লেদার কমপ্লেক্সের এই চর্মনগরীতে প্রায় চারশো ট্যানারি রয়েছে। দমকল কেন্দ্র থাকলেও পর্যাপ্ত অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা না থাকায় শ্রমিকদের আতঙ্কের মধ্যে কাজ করতে হয়। সব কারখানায় উপযুক্ত পরিকাঠামো নেই। এমনকি চর্মনগরীতে প্রশাসনিক নজরদারি নেই বলে শ্রমিকরা এদিন অভিযোগ করেন। 

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement