সরকারি অবহেলা চরমে
পানচাষে আগ্রহ হারাচ্ছে মালদহ

উৎপল মজুমদার

৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮

মালদহ ‍জেলায় পান চাষ হয় মূলত ১৫টি ব্লকের মধ্যে ৬টি ব্লকে। এর মধ্যে বামনগোলা ব্লকের ৬টি অঞ্চল, পুরাতন মালদহের মু‍‌বিয়া অঞ্চল, হরিশচন্দ্রপুর-২ ব্লকের ফতেপুর অঞ্চলে ব্যাপক পান চাষ হয়। এছাড়া হবিবপুর, চাঁচল-২ ও রতুয়া-১ ব্লকের কোন কোন এলাকায় বিচ্ছিন্নভাবে পানের চাষ হয়। তবে নতুন বছরের প্রথম দিন থেকেই জেলায় তীব্র শৈত্য প্রবাহের কারণে পানচাষিরা নিদারুণ সংকটে পড়েছেন। এ বিষয়ে কোনও হেলদোল নেই জেলা প্রশাসন বা উদ্যানপালন বিভাগের। শীতের প্রভাবে জমিতেই পানপাতা কুঁচকে যাচ্ছে। ফলে জেলার পানচাষিরা এক অসহায় অবস্থার মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। প্রশাসন ও উদ্যানপালন বিভাগের উদাসীনতার ‍তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন হবিবপু‍‌রের বিধায়ক তথা কৃষক আন্দোলনের নেতা খগেন মুর্মু।

খগেন মুর্মু অভিযোগ করে বলেন, পানচাষির স্বার্থে কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্য সরকারের সুনির্দিষ্ট নীতি নেই। পানের দাম, বরজের ক্ষতিপূরণের জন্য সাহায্য অথবা পানচাষিদের নিরাপত্তায় কোনও নীতি না থাকায় মালদহেও পানচাষের এলাকা ক্রমশই কমছে। এখন ৬টি ব্লকের মধ্যে একমাত্র বামনগোলা ব্লকের ৬টি অঞ্চলে চাষ হলেও সেখানেও চাষের এলাকা ও বরজের সংখ্যা কমছে। এবছরে প্রথমে প্রচণ্ড ঝড়, পরে ভয়াবহ বন্যা এখন শৈত্যপ্রবাহ পানচাষিদের সমস্যাকে তীব্র করেছে। ২০০৩সালে প্রবল শৈত্যপ্রবাহে পানচাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও সে সময় রাজ্যের বামফ্রন্ট সরকার উদার হাতে পানচাষিদের পাশে দাঁড়িয়ে সার্বিক সহায়তা করেছিল। যার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও পানচাষিরা বিপদ সামলাতে সক্ষম হয়েছিলেন। কিন্তু এবার এই রাজ্য সরকার কোনভাবেই পানচাষিদের পাশে দাঁড়াচ্ছে না। শুধু পানচাষিরাই নন, রেশম চাষি-সহ অন্যান্য কৃষক, মধ্যবিত্ত কর্মচারী-শ্রমিকদের স্বার্থেও কোন পরিকল্পনা নেই রাজ্য সরকারের।

রাজ্য সরকার ও উদ্যানপালন বিভাগ পানচাষিদের স্বার্থে কোনও উদ্যোগ না নেওয়ায় পানচাষিদের সমস্যার কোনও সমাধান হয়নি। বিভিন্ন এলাকায় কর্মশালা হলেও জেলা পরিষদ ও উদ্যানপালন বিভাগের নীরবতায় পানচাষিরা ক্ষুব্ধ। পানচাষিদের দাবি, স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী কৃষিপণ্যের মূল্য নির্ধারণ, সার, বীজ, কীটনাশক ও অন্যান্য কৃষি উপকরণের উপর ভরতুকি দিতে হবে। জেলার পানচাষি আনন্দ মণ্ডল, ‍গিয়াসু‍‌দ্দিন আহমেদ প্রমুখের বক্তব্য, এভাবে চললে পানচাষই বন্ধ করে দিতে হবে। ফলে এই জীবিকা হারিয়ে অন্য জীবিকা খুঁজতে হবে বা অন্য রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিক হিসাবে কাজ করতে যেতে হবে জীবন হাতে নিয়ে। এছাড়া কোনও বিকল্প নেই মালদহ জেলার পানচাষিদের।

Featured Posts

Advertisement