বিচারপতিদের শূন্যপদ পূরণের
দাবিতে মিছিল আইনজীবীদের

নিজস্ব সংবাদদাতা

কলকাতা, ১৩ই সেপ্টেম্বর — কলকাতা হাইকোর্টে বছরের পর বছর বিচারপতিদের পদ শূন্য। এর পরিণতিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত বিচারপ্রার্থীরা। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে আইন ও বিচার ব্যবস্থার ওপর সাধারণ মানুষের যে আস্থা তা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। কারণ সেই মানুষ, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা অন্যায়ের প্রতিকার চেয়েও দিনের পর দিন অবহেলিত হয়ে আসছেন। এই অবস্থার অবসান চেয়ে এবং বিচারপতিদের শূন্যপদগুলি পূরণের দাবিতে বুধবার সকালে ‘বার অ্যাসোসিয়েশন হাইকোর্ট ক্যালকাটা’ – র ডাকে তিন শতাধিক আইনজীবী হাইকোর্ট চত্বর ছেড়ে মিছিল করে যান রাজভবনে। বার লাইব্রেরি, ইনকর্পোরেট ল’ সোসাইটি-সদস্যরাও রাজভবন অভিযানে ছিলেন।

এদিন সকাল এগারটা নাগাদ আইনজীবীরা বার অ্যাসোসিয়েশনের বক্তব্য সংবলিত পোস্টার নিয়ে মিছিলে যান। রাজ্যপালের কাছে তাঁরা দাবি নিয়ে স্মারকলিপিও জমা দেন। এই স্মারকলিপিতে পরিস্থিতির ভয়াবহতা জানিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। রাজ্যপালকে জানানো হয়, হাইকোর্টের বর্তমান বিচারপতির সংখ্যা ৭২। এর মধ্যে আছেন মাত্র ৩১ জন। আগামী ডিসেম্বর মাসে তা আরও কমে যাবে। কারণ ঐ মাসে অবসর নিতে চলেছেন আরও ৫ জন বিচারপতি। তখন হাইকর্টের বিচারপতির সংখ্যা হবে ২৬। পক্ষান্তরে মামলা জমে রয়েছে লক্ষাধিক। এই অবস্থায় জমে থাকা মামলার নিস্পত্তি এবং রাজ্যের মানুষের পক্ষে আইন ও বিচার ব্যবস্থার প্রতি আস্থা রক্ষায় অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণ প্রয়োজনীয়।

রাজ্যপাল আইনজীবীদের আশ্বাস দেন, তিনি বিষয়টি কেন্দ্রীয় আইন ও বিচার মন্ত্রণালয়ের নজরে আনতে পদক্ষেপ নেবেন। সমস্যার সমাধান নিয়ে প্রয়োজনে সর্বোচ্চ ন্যায়ালয় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির সঙ্গেও আলোচনা করবেন।

উল্লেখ্য, এদিনের আইনজীবীদের এই মিছিলে ছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বার অ্যাসোসিয়েশনের সদ্য নির্বাচিত নেতৃত্ব ছাড়াও প্রবীণ এবং নবীন আইনজীবীরা। ছিলেন এ আই এল ইউ – র সর্বভারতীয় সভাপতি বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য, কাশীকান্ত মৈত্র, শক্তিনাথ মুখার্জি, জয়ন্ত মিত্র, সর্দার আমজাদ আলি, বার অ্যাসোসিয়েশনে নির্বাচিত এ আই এল ইউ প্রার্থী সহকারী সম্পাদক মলয় ভট্টাচার্য ও কার্যকরী সদস্যা মাল্যশ্রী মাইতি প্রমুখ।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement