রীতিমতো লড়াই করে দুই মেয়ে
ধরলো দুই ছিনতাইকারীকে

নিজস্ব সংবাদদাতা

মল্লারপুর, ১২ই অক্টোবর — দুই ছাত্রীর সাহসিকতার সাক্ষী থাকল বীরভূমের মল্লারপুরের গ্রাম। ছিনতাইবাজ ষন্ডাগন্ডা দুই যুবকের সাথে সমানে পাল্লা দিয়ে তাদের নাস্তানাবুদ করে ঠাঁই করে দিল শ্রীঘরে। মল্লারপুর থানার শিবপুর গ্রামের দুই মেয়ের সাহসিকতা বাহবা কুড়োলো সব মহলে।

বৃহস্পতিবার ভোর। শিবপুর গ্রামের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ঋতুপর্ণা মোদী ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী অরুণা মোদী রোজের মতোই বেরিয়েছিল শরীরচর্চা ও অনুশীলন করতে। কারণ, তাদের দুজনেরই ইচ্ছা পুলিশ হওয়ার। তাই নিয়ম করে কঠোর অনুশীলন তাদের রোজনামচা। এদিন শরীরচর্চা শেষে দুজন যখন বাড়ি ফিরছিল, তখনই ঘটে বিপত্তি। পেছন থেকে বাইকে করে আসা দুই যুবক আচমকা তাদের হাতে থাকা মোবাইল ও গলার সোনার চেন ছিনিয়ে চম্পট দেওয়ার চেষ্টা করে। নাছোড় দুই ছাত্রীও ধাওয়া করে পেছনে। বাইকের গতি কম থাকায় তাদের ধরে ফেলে দুই ছাত্রী। বাইক আটকে তার চাবি ছিনিয়ে নেয় তারা। চাবি ছিনিয়ে উলটে ছাত্রী দুজন দৌড় শুরু করে। বিপাকে পড়ে দুই ছিনতাইবাজ অরুণার গলায় চাকু ঠেকিয়ে তাকে রাস্তের পাশে থাকা জঙ্গলের দিকে টেনে নিয়ে যায়। দেখে দাঁড়িয়ে পড়ে ঋতুপর্ণাও। দুই যুবকের সঙ্গে দশ মিনিট ধরে সমানে চালায় ধস্তাধস্তি। দুই মেয়ের এমন বেপরোয়া মূর্তি দেখে হতচকিত হয়ে যায় দুই ছিনতাইবাজ।

ঋতুপর্ণা ও অরুণা জানায়, আচমকা আমাদের মোবাইল ও সোনার চেন ছিনতাই করতেই আমরাও জেদ ধরেছিলাম, ওদের ধরবই। গ্রামের রাস্তা, খুব বেশি স্পিড তুলতে পারেনি ওরা। আমরা চাবি ছিনিয়ে নিতেই ওরা পড়ে যায় ফাঁপরে। তারপর আমরা দুজনে মিলে ওদের দুজনকে যখন চেপে ধরি, তখন ওরা অনুনয় করতে থাকে ছিনতাই করা জিনিসগুলি নিয়ে গাড়ির চাবি ফেরত দেওয়ার জন্য। আমরা দুজনই গলা ছেড়ে চিৎকার শুরু করি। শুনেই আশপাশ থেকে লোকজন ছুটে আসে।

দুই মেয়ের চিৎকার শুনে ছুটে আসা গ্রামবাসীরা দুই ছিনতাইবাজকে আচ্ছা করে ধোলাই দেয়। বিধ্বস্ত দুই যুবককে তুলে দেওয়া হয় পুলিশের হাতে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ছিনতাইবাজ দুজন হলো সোঁতসালের হাসিবুল শেখ ও বাতাসপুরের শেখ হাসিবুর।

Featured Posts

Advertisement