হয়রানি ও বঞ্চনার প্রতিবাদে নির্মাণ
শ্রমিকদের বিক্ষোভ, ডেপুটেশন

নিজস্ব সংবাদদাতা

বারুইপুর, ১২ই অক্টোবর — সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পের চালু বেনিফিট ছাঁটাই, হয়রানি ও বঞ্চনার প্রতিবাদে সোচ্চার হলেন নির্মাণ শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা নির্মাণকর্মী ইউনিয়নের আহ্বানে বারুইপুরে ডেপুটি লেবার কমিশনারের কাছে বিভিন্ন দাবিতে ডেপুটেশন দেওয়া হয়। এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে জেলা শ্রম দপ্তরের সামনে অবস্থান বিক্ষোভ করেন নির্মাণ শ্রমিকরা। তাঁদের অভিযোগ, সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে অন্তর্ভুক্তি ও অন্তর্ভুক্ত শ্রমিকদের নবীকরণ, বেনিফিট পাওয়ার ক্ষেত্রে শ্রম দপ্তরে হয়রানি, বঞ্চনা করা হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। এবিষয়ে দপ্তরের কর্মীদের একাংশের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছেন তাঁরা। বিক্ষোভকারী নির্মাণ শ্রমিকরা এদিন অভিযোগ করে বলেন, রাজ্য সরকার সামাজিক সুরক্ষা যোজনা ২০১৭ প্রকল্পের নামে অন্তর্ভুক্ত নির্মাণ শ্রমিকদের চালু সুযোগ সুবিধাগুলি ছাঁটাই করার চেষ্টা করছে। এর বিরুদ্ধে নির্মাণ শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধভাবে লালঝান্ডা নিয়ে প্রতিবাদ আন্দোলনে শামিল হয়েছেন। সমস্ত চালু সুযোগ সুবিধাগুলি দ্রুত প্রদান করার দাবিতেও সরব হয়েছেন তাঁরা।

এদিকে নির্মাণ শ্রমিকদের স্বার্থে হয়রানি, বঞ্চনার প্রতিবাদে সাত দফা দাবিতে এদিন দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা নির্মাণ কর্মী ইউনিয়ন ডেপুটি লেবার কমিশনারের কাছে ডেপুটেশন দেয়। সংগঠনের জেলা সম্পাদক শ্যামাপ্রসাদ রায়ের নেতৃত্বে ৯জনের এক প্রতিনিধি দল দাবিসনদ পেশ করে আলোচনা করেন। এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে আয়োজিত অবস্থান বিক্ষোভসভায় বক্তব্য রাখেন শ্যামাপ্রসাদ রায়, অলোক নস্কর, সুশান্ত পাল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। সভাপতিত্ব করেন সন্ন্যাসী দলুই। নেতৃবৃন্দ জানান, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় প্রায় তিন হাজার নির্মাণ শ্রমিকের নবীকরণ হয়নি। সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে প্রায় ১৫০০ বেনিফিসিয়ারির উপকরণ বকেয়া রয়েছে। এছাড়াও জেলার পাঁচ শতাধিক শ্রমিকের পেনশন বাকি রয়েছে। দ্রুত, স্বচ্ছতার সঙ্গে নির্মাণ শ্রমিকদের নবীকরণ, নতুন নাম নথিভুক্তকরণ, বকেয়া বেনিফিট, পেনশনের ব্যবস্থার দাবি জানানো হয়েছে। সোনারপুর, বারুইপুর, বিষ্ণুপুর ছাড়াও ক্যানিং, গোসাবা, বাসন্তী, কুলপিসহ জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে নির্মাণ শ্রমিকরা এই কর্মসূচিতে যোগ দেন।

Featured Posts

Advertisement