ক্যালিফোর্নিয়াতে নিহত ২৩, নিখোঁজ ২৮৫
দমকা হাওয়াতে দ্রুত ছড়াচ্ছে দাবানল

সংবাদসংস্থা

ক্যালিফোর্নিয়া, ১২ই অক্টোবর— নতুন করে দমকা হাওয়াতে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে দাবানল। উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার মদ প্রস্তুতকারক কাউন্টিগুলির অধিকাংশ এলাকা পুড়ে খাক হয়ে গিয়েছে। ভয়াবহ আগুন এখনও নিয়ন্ত্রণের বাইরে। নিহতের সংখ্যা অন্তত ২৩। এখনও নিখোঁজ ২৮৫ জন। বহু মানুষকে এদিনও অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত বহু এলাকার মানুষকে ব্যাগ গুছিয়ে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

ক্যালিফোর্নিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাণঘাতি এই দাবানলের ধোঁয়া ৬০ মাইলেরও বেশি এলাকা ছাড়িয়ে পৌঁছেছে সানফ্রান্সিসকোর দক্ষিণে। ‘অত্যন্ত জটিল, আর এক সর্বনাশা আগুন। সামনের অনেকগুলো দিন আমরা অরণ্যের বাইরে বের হতে পারব না বলেই মনে হচ্ছে,’ জানিয়েছেন দমকলের প্রধান কেন পিমলট। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা। অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা আবহাওয়া, মৃদু বাতাস ও উপকূলীয় কুয়াশার সুযোগ নিয়ে মঙ্গলবার দাবানল কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনা গেলেও, বুধবার নতুন করে তীব্র দমকা হাওয়া দাবানলকে আরও উসকে দিয়েছে। বুধবার ঘণ্টায় ২০ থেকে ৪০ মাইল বেগে বাতাস বয়েছে। আবহাওয়া ছিল খুবই শুষ্ক। আর্দ্রতা ছিল একেবারেই কম, বৃষ্টির দেখা মেলেনি। বৃহস্পতিবারও আবহাওয়া একইরকম থাকবে বলে পূর্বাভাস।

এরমধ্যেই দিনরাত লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন দমকলকর্মীরা। ঘুম ছুটেছে তাঁদের, অনেকেরই বাড়ি আগুনের গ্রাসে। ‘কারও পক্ষেই এটা খুব সহজ কাজ নয়। আমাদের আছেন এমন অনেক দমকলকর্মী, যাঁরা হারিয়েছেন তাঁদের বাড়ি, আবার আছেন এমন অনেক মানুষ, যাঁরা হারিয়েছেন তাঁদের স্বজন।’ জানিয়েছেন জোনাথন কক্স, ক্যাল ফায়ার ব্যাটেলিয়ানের প্রধান।

অন্তত ২০,০০০ মানুষকে বুধবার অন্যত্র সরে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বাকিদের ‘ব্যাগ নিয়ে প্রস্তুত’ থাকতে বলেছে।

আগুন নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকা থেকে দুশোর বেশি ফায়ার ইঞ্জিনিয়ার ও ক্রুকে পাঠানো হয়েছে। আগুন নেভাতে ৭৩টি হেলিকপ্টার, ৩০টি এয়ার ট্যাঙ্কার ও প্রায় ৮,০০০ দমকলকর্মীকে ‘যুদ্ধ করতে হচ্ছে’ বলে দমকলের প্রধান পিমলট জানিয়েছেন।

দাবানল ইতিমধ্যেই ১,৭৫,০০০ বাসিন্দার সান্তা রোজা শহরকে ভস্মীভূত করেছে। নাপা কাউন্টির কালিস্তোগা এলাকাসহ বেশ কয়েকটি এলাকার মানুষদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে নিরাপদ এলাকায়। এলাকাগুলোতে গাড়ি চলাচলও বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। স্যোশাল সাইটে অনেকেই তাঁদের নিখোঁজ বন্ধু ও স্বজনের সন্ধানে আবেদন জানিয়েছেন। ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর জেরি ব্রাউন সোনোমা, নাপা এবং আরও ৫টি এলাকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন।

নাপায় মারা গিয়েছেন এক দম্পতি। সারা ও চার্লস রিপে। সারার বয়স ৯৮, চার্লসের ১০০। ছেলে মাইককে রেখে ছবি তুলেছে অ্যাসোসিয়েট প্রেস, গোটা বাড়িটাই ভস্মীভূত, কিছুই নেই, বলে দিতে হবে এখানে একদিন কিছু ছিল।

Featured Posts

Advertisement