কোচির আদ্রতাই চিন্তা স্প্যানিশ কোচের

সংবাদসংস্থা

কোচি, ১২ই অক্টোবর — বিকেল থেকেই আকাশের মুখ ভার। প্রতি রাতেই বৃষ্টি হচ্ছে কোচিতে। দিনের বেলা কাঠফাটা রোদ। অ্যাসফল্টের রাস্তায় হলকা ছোটে। শরতের চিহ্নমাত্র নেই কোথাও। শীত আসেই না আরবসাগর তীরের এই শহরে।

এই গরমের দুপুরগুলিতেই অনুশীলন করতো স্পেন। গণতান্ত্রিক কোরিয়ার সঙ্গে রাতে ম্যাচ খেলতে হবে। তাই বৃহস্পতিবার অবশ্য সন্ধ্যায় প্রস্তুতির সময় নিয়েছিলেন কোচ সান্তিয়াগো স্যাঞ্চেজ। লা রোজা যখন মাঠে নামলো তখন, দু এক ফোঁটা বৃষ্টিও ঝরেছে। সন্ধ্যার অনুশীলন কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়েছে স্পেনকে। তবে পুরোপুরি নিশ্চিন্ত করতে পারেনি। গরম আর আর্দ্রতায় ফুটবলাররা একটুতেই ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। মেডিক্যাল টিম সেই বিষয়ে কাজ করলেও, প্রকৃতিকে বাগে আনা সম্ভব নয়। কোচির গরমকে যদিও পাত্তা দিচ্ছেন না কোচ সান্তিয়াগো। পানামপিল্লি নগরের মাঠে অনুশীলন শেষে চিন্তার কারণ বেরিয়েই আসে, ‘গরম নিয়ে আমি চিন্তিত নই। এইরকম বড় প্রতিযোগিতায় গরম সহ্য করেই খেলতে হয়। আমার চিন্তা হলো আর্দ্রতা। বিকেলে খেলি বা রাতে এই আর্দ্রতার জন্যই ক্লান্ত হয়ে পড়ছে ফুটবলাররা।’

নাইজারের বিরুদ্ধে জয় স্পেনের জন্য নক আউটের পথ খুলে দিয়েছে। তার জন্য অবশ্য গণতান্ত্রিক কোরিয়াকে পরাজিত করতেই হবে। ব্রাজিলের বিরুদ্ধে যেরকম রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলেছিল তা চিন্তা বাড়াতে বাধ্য। যদিও গণতান্ত্রিক কোরিয়ার রক্ষণ নিয়ে খুব বেশি মাথা ঘামাতেও চাইছেন না অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের প্রাক্তন এই ফুটবলার। বরং বলেছেন, ‘আমার মনে হয় না গণতান্ত্রিক কোরিয়া অতি রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলেছে। ওদের রক্ষণ খুব গোছালো। খুব দ্রুত কাউন্টার অ্যাটাকে যেতে পারে। তাই আমাদের তিনটি ম্যাচ তিন ধরনের হবে।’ স্পেন যদিও মাঝমাঠ নির্ভর ফুটবলই খেলতে পছন্দ করে। ফুটবলাররা নিজেদের মধ্যে পাস খেলেই আক্রমণে যায়। সেই পাসিং ফুটবল দিয়েই গণতান্ত্রিক কোরিয়ার রক্ষণ ভাঙার চেষ্টা করবে। স্পেন তিন পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও, এই ম্যাচে তিন পয়েন্ট জিততেই হবে। গণতান্ত্রিক কোরিয়া এখনও পর্যন্ত গ্রুপে একটিও ম্যাচ জিততে পারেনি। তাই গ্রুপের শেষ ম্যাচ জিতে মাথা উঁচু করেই ফিরতে চায়। গণতান্ত্রিক কোরিয়া রক্ষণাত্মক ফুটবলের সঙ্গেই দ্রুত আক্রমণে উঠতে পারে। ফলে স্পেনকে ম্যাচ জিততে হলে মাঝমাঠেই রুখতে হবে গণতান্ত্রিক কোরিয়াকে। একই সঙ্গে আক্রমণের দমকে প্রতিপক্ষের রক্ষণ ভাঙতে হবে। জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী স্প্যানিশ কোচ জানান, ‘কালকের ম্যাচ একটু আলাদা। আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি সেরেছি। তিন পয়েন্ট জিতে পরের রাউন্ডে যাওয়া ছাড়া আর কিছুই ভাবছি না। ছেলেদের উপর আমার ভরসা আছে।’

Featured Posts

Advertisement