শ্লীলতাহানির জেরে শিক্ষিকার
আত্মহত্যার চেষ্টা, ধৃত এক

নিজস্ব সংবাদদাতা

আলিপুরদুয়ার, ১২ই অক্টোবর — বেসরকারি এক স্কুল শিক্ষিকাকে মারধর ও তাঁর শ্লীলতাহানি করার অভিযোগে তৃণমূলের আলিপুরদুয়ার জেলা প্রধান কার্যালয়ের কেয়ারটেকারকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। বুধবার রাতে আলিপুরদুয়ার পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ডের পলাশবাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। অপমান সহ্য করতে না পেরে ওই শিক্ষিকা ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রতিবেশীরা তাঁকে উদ্ধার করে আলিপুরদুয়ার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে ওই শিক্ষিকা আলিপুরদুয়ার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শিক্ষিকার পরিবারের পক্ষ থেকে আলিপুরদুয়ার থানায় অভিযুক্ত কেয়ারটেকারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতেই বৃহস্পতিবার তৃণমূলের আলিপুরদুয়ার জেলা প্রধান কার্যালয়ের অভিযুক্ত কেয়ারটেকার মদন ভক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। দায়ের করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা গেছে, জমি জবরদখলের বিবাদকে কেন্দ্র করেই ঘটনার সূত্রপাত হয়। বুধবার রাতে আলিপুরদুয়ার পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ডের পলাশবাড়িতে ওই স্কুল শিক্ষিকাকে তাঁর জমি ছেড়ে দেবার জন্য অভিযুক্ত মদন ভক্ত গালিগালাজ করে। শিক্ষিকা জমি ছাড়তে অস্বীকার করলে তাঁকে মারধরও করা হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তি তাঁর শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ। এরপরেই শিক্ষিকা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হবার চেষ্টা করেন।

স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের সাথে যুক্ত থাকায় জোর করে বেশ কিছুদিন ধরেই জমিটি জবরদখলের চেষ্টা করছিলো মদন। তার বিরুদ্ধে এলাকায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে। জমির দালালচক্রের সাথেও মদনের যোগাযোগ রয়েছে বলেছে খবর। স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। আলিপুরদুয়ারের পুলিশসুপার জানান, তাঁরা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন।

Featured Posts

Advertisement