পারদ নামলো, শীতের জাঁকিয়ে
বসার অপেক্ষায় রাজ্যবাসী

নিজস্ব প্রতিনিধি   ২৩শে নভেম্বর , ২০১৭

কলকাতা, ২২শে নভেম্বর — শীতের জন্য অপেক্ষার দিন শেষ। কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা এক লাফে ৫ ডিগ্রি কমে বুধবার হইহই করে এসে পড়ল শীত। বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.৬ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছালো। এটাই এখনও মরশুমের সবচেয়ে কম তাপমাত্রা। দিন তিনেক আগে দেওয়া আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাষ মিলে গেল। রবিবার হাওয়া অফিস জানিয়েছিল, মঙ্গলবার থেকেই কমবে তাপমাত্রা। শুরু হবে শীতের আমেজ। সেই কথা মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই টের পেয়েছেন শহরবাসী।

একটা শিরশিরানি আমেজ ছিল দুদিনই। আর বুধবার দুপুরের পরে সূর্য পশ্চিমে ঢলতেই বোঝা গেল হা হুতাশের দিন শেষ। তবে শীত পড়ে যাওয়া মানেই টানা এটা চলবে তা অবশ্য মনে করছে না আবহাওয়া দপ্তর। পাঁচ ডিগ্রি কমে যাওয়ার কথা ঘোষণা করলেও হাওয়া অফিস বুধবারেই আবহাওয়ার মেজাজ পালটানোর একটা পূর্বাভাস দিয়ে রেখেছে। এর কারণ পশ্চিম ভারতে সক্রিয় একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। তার জেরে রবিবার থেকেই বদলাতে পারে শীতের মেজাজ।

আবহাওয়া দপ্তর জানাচ্ছেন, একটানা নিম্নচাপের বাধা কাটিয়ে দুদিন ধরেই উত্তরে হাওয়ার জোর বাড়ছিল। তা দেখেই শীত পড়ার পূর্বাভাষ দেওয়া হয়েছিল। তবে পারদ এক ধাক্কায় পাঁচ ডিগ্রি কমে যাবে তা আশার কিছুটা বাইরে ছিল। গত সপ্তাহে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২২ডিগ্রির আশেপাশে ঘুরছিল। তবে হঠাৎ এই পারদ নেমে যাওয়ার জেরে কিছুটা হলেও অপ্রস্তুতির মধ্যে পড়তে হয়েছে অনেককে। ছাতা সামলাতে সামলাতে অনেকেরই বাড়ির লেপ-কম্বল নামানোর কথা মনে নেই।

সর্বত্র বুধবারের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমতে দেখা গিয়েছে। বাঁকুড়ায় এদিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৫ডিগ্রি সেলসিয়াস। মালদহে ১৭.১ডিগ্রি, ডায়মন্ডহারবারে ১৪.২ডিগ্রি, সৈকত শহর দীঘায় পারদ নেমে এসেছে ১৫.৫ডিগ্রি সেলসিয়াসে। এদিন এবং বর্ধমানে পারদ নেমেছে ১৪ডিগ্রিতে। বুধবার দক্ষিণবঙ্গের সবচেয়ে কম তাপমাত্রা ছিল বীরভূমের শান্তিনিকেতনে। সেখানকার তাপমাত্রা এদিন নেমেছে ১১.৬ডিগ্রিতে। কৃষ্ণনগরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২.৪ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এদিন যতই ঠান্ডা পড়ুক না কেন, এখনকার পরিস্থিতিকে পুরোদস্তুর শীত বলতে নারাজ আবহবিদরা। আবহাওয়া দপ্তরের মতে, নিম্নচাপের বাড়তি জলীয় বাষ্প আর মেঘ কেটে যাওয়ার জেরে আগামী কয়েক দিন আকাশ পরিষ্কার থাকলেও শীতের এই আমেজ বেশিদিন স্থায়ী হবে না। যার অর্থ, উত্তরবঙ্গ ও পশ্চিমের জেলায় তাপমাত্রা কমলেও এখনই কলকাতার তাপমাত্রা সেই অর্থে আর কমবে না। এর কারণ সেই পশ্চিমী ঝঞ্ঝা।

পশ্চিমী ঝঞ্ঝা এখন পশ্চিম ভারতে প্রবেশ করেছে। তার জেরে ভারতীয় ভূখণ্ডে আগামী কয়েক দিনে কমবে উত্তর-পূর্ব মৌসুমি বায়ুর প্রভাব। এদিন ওই ঝঞ্ঝাকে কাশ্মীরের ওপর অবস্থান করতে দেখা গিয়েছে। আগামী রবিবার পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাব পশ্চিমবঙ্গে পড়তে পারে। সেইজন্যই নভেম্বরে শীতের প্রকোপ নতুন করে বাড়ার সম্ভাবনা কম। তেমন শীত পড়তে পড়তে ডিসেম্বর প্রথম সপ্তাহ পার হয়ে যাবে। তবু ডেঙ্গুতে ওষ্ঠাগত রাজ্যবাসীর কাছে এই ঠান্ডাই কিছুটা হলেও স্বস্ত্বি দেবে। কেননা শীতেই কাবু হয় ডেঙ্গু মশা।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement