মার্কিন নৌসেনার বিমান
দুর্ঘটনায় নিখোঁজ ৩

সংবাদসংস্থা

টোকিও, ২২শে নভেম্বর— ফিলিপাইন্স সাগরে ১১ জন নৌসেনা ও কর্মী নিয়ে ভেঙে পড়লো মার্কিন নৌসেনার বিমান। বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টো বেজে ৪৫মিনিট নাগাদ দুর্ঘটনাটি ঘটে। মার্কিন নৌসেনার তরফে প্রকাশিত বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ইতিমধ্যে ৮জন কে উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ ৩জনের জন্য তল্লাশি চলছে।

জাপানের ওকিনাওয়ার দক্ষিণ পূর্বে দুর্ঘটনাটি ঘটে। গত ১৬ই নভেম্বর থেকে এখানেই মার্কিন-জাপান যৌথ নৌমহড়া চলছে। চলবে আগামী ২৬শে নভেম্বর পর্যন্ত। এদিন ভেঙে পড়া নৌসেনার ‘সি-২ গ্রেহাউন্ট’ বিমানটি মহড়ায় যোগ দিয়েছিল। তবে মহড়া চলাকালীনই বিমানটি বিপর্যয়ের কবলে পড়ে কিনা তা নিয়ে ফিলিপাইন্স সাগরে মোতায়েন সপ্তম নৌবহরের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

উদ্ধার ৮ বিমানকর্মীর ইউ এস এস রোনাল্ড রেগান বিমানবাহী রণতরীতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই রণতরীতে ফেরার পথেই বিপত্তি ঘটে। এদিকে মার্কিন সেনার ফের দুর্ঘটনার কবলে পড়ার খবরে গুঞ্জন ছড়িয়েছে। ‘নিখোঁজ ৩ নৌসেনার তল্লাশি চলছে’, জানানো হয়েছে ইউ এস নেভি অ্যান্ড জাপান মেরিটাইম সেল্ফ-ডিফেন্স ফোর্সেস (জে এম এস ডি এফ)-র তরফে প্রকাশিত বিবৃতিতে।

প্রশান্ত মহাসাগরের পশ্চিম ভাগে হাজারো সেনা এবং সর্বাধুনিক সামরিক সরঞ্জাম মজুত করে রেখেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় এমন মিলিটারি হার্ডওয়ার রাখা হয়েছে। লক্ষ্য চীন এবং গণতান্ত্রিক কোরিয়া। উদ্দেশ্য সমগ্র অঞ্চলে অস্থিরতা তৈরি।

কিন্তু গত কয়েক মাসে পূর্ব এশিয়ায় বেশ কতগুলি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে মার্কিন সেনা। শেষ আগস্টে সিঙ্গাপুরের উপকূলে ট্যাঙ্কারের সঙ্গে ইউ এস এস জন এস ম্যাকেইনের ধাক্কায় ১০জন নৌসেনার মৃত্যু হয়। আহত হন ৫জন নৌসেনা। এর আগে জুনে জাপানের কাছে একটি সমুদ্রে মালবাহী জাহাজের সঙ্গে ইউ এস এস ফিজগেরাল্ডের সংঘর্ষে ৭জন নৌসেনা প্রাণ হারান। এছাড়াও ছোটোখাটো দুর্ঘটনায় মাঝেমধ্যেই বেকায়দায় মার্কিন সেনা।

Featured Posts

Advertisement