পিছিয়ে পড়েও জিতলো ম্যান ইউ

সংবাদসস্থা

বার্সেলোনা, ৬ই ডিসেম্বর — পিছিয়ে পড়েও ঘুরে দাঁড়ালো ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যাচ। প্রথমার্ধ প্রায় শেষের পথে। ভিতিনহোর শটে আচমকাই পিছিয়ে যায় জোশ মোরিনহোর দল। লুকাকু, পোগবারা যদিও অফ সাইডের আবেদন করেন। ভিতিনহো গোল লক্ষ্য করে শট নেওয়ার সময়, মস্কোর অ্যালান জাগোয়েভ অফ সাইডে দাঁড়িয়ে ছিলেন। শট থেকে বাঁচতে অ্যালান পিছন দিকে সরতে চাইলেও, সেই বল পিঠ ছুঁয়ে যায়। ম্যান ইউ ফুটবলাররা অফ সাইডের আবেদন করলেও তা নাকচ করে দেন রেফারি। প্রথমার্ধে পিছিয়ে গেলেও দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে আসে। দুই মিনিটের ব্যবধানে জোড়া গোলে জয় ছিনিয়ে নেয় রেড ডেভিলসরা। ৬৪ মিনিটে পোগবার সেন্টার থেকে লুকাকু গোল করে সমতা ফিরিয়েছিলেন। দুই মিনিটের ব্যবধানে জুয়ান মাতার চিপ করা বলে শট নিয়ে গোল করেন রাশফোর্ড। এক সময় গ্রুপ পর্যায়ে পর আর যেতে পারবে না বলেই মনে হলেও, গ্রুপ সেরা হয়েই পরের রাউন্ডে গেল ম্যাঞ্চেস্টার। আর ছয় ম্যাচে বারো পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্স হিসাবে পরের রাউন্ডে গেল বাসেল।

আবার আলিয়াঞ্জ এরিনায় প্যারিস স্যঁ জ্যঁকে ১-৩ গোলে হারিয়ে গত ম্যাচের বদলা নিল বায়ার্ন মিউনিখ। ম্যাচ শুরুর আট মিনিটে লেবানডৌস্কির গোলে এগিয়ে যায় বায়ার্ন। প্রথমার্ধে গোল করে সেই ব্যবধান আরও বাড়িয়ে দেন তোলিসো। দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই ব্যবধান কমিয়ে আনেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। ৬৯ মিনিটে গোল করে ফের ব্যবধান বাড়িয়ে দেন তোলিসো। এই ম্যাচ জিতলেও দুদলই ছয় ম্যাচে পনেরো পয়েন্ট নিয়ে পরের রাউন্ডে গেল প্যারিস স্যঁ জ্যঁ এবং বায়ার্ন। গোল পার্থক্যে শীর্ষে থাকলেন নেইমাররাই।

গ্রুপ শীর্ষে থেকে নক আউটের ছাড়পত্র আগেই আদায় করেছিল বার্সেলোনা। তাই মেসি, বুসকেতস, জোর্ডি আলবা, টের স্টেগানদের মতো প্রথম দলের ফুটবলারদের বাইরে রেখেই দল সাজিয়েছিলেন কোচ এর্নেস্তো ভেলভের্ডে। রিজার্ভ বেঞ্চ নিয়ে দল সাজালেও, গোলের জন্য দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়েছে কাতালান ক্লাবকে। ৫৯ মিনিটে পাকো আলকাসেরের হেড থেকে এগিয়ে যায় বার্সা। যদিও চাপ বাড়ানোর জন্য মেসিদেরও পরিবর্ত হিসাবে নামানো হয়। ম্যাচের সংযুক্ত সময়ে আত্মঘাতী গোলে ব্যবধান বেড়ে ২-০ হয় মেসিদের পক্ষে। বার্সেলোনা ছেড়ে স্পোর্টিংয়ে যাওয়া জেরেমি মাতিউয়ের পায়ে লেগেই বল গোলে প্রবেশ করে। এই গ্রুপ থেকে নক আউটে পৌঁছেছে জুভেন্টাসও।

Featured Posts

Advertisement