জেরুজালেমকে ইজরায়েলের
রাজধানী বলে বেনজির
স্বীকৃতি দিচ্ছে আমেরিকা

সংবাদসস্থা

ওয়াশিংটন, ৬ই ডিসেম্বর- গত সাত দশকে বিশ্বের কোনও দেশ যা করেনি, তা-ই করতে চলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। জেরুজালেমকে ইজরায়েলের রাজধানী হিসাবে ঘোষণা করবে হোয়াইট হাউস। ভারতীয় সময় বুধবার গভীর রাতে মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এই ঘোষণা করবেন বলে সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে। ট্রাম্প তাঁর নির্বাচনী প্রচারে এমন কথা বললেও বাস্তবে তা রূপায়ণ করলে পশ্চিম এশিয়া এবং আরব দুনিয়ায় তীব্র প্রতিক্রিয়া হতে চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

১৯৪৮সালে প্যালেস্তাইনের আরব ভূখণ্ড দখল করে ইজরায়েল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হবার পরে জেরুজালেমকেই ঘাঁটি করে চলে সেই রাষ্ট্র। তখন ইজরায়েলের দখলে ছিল এই প্রাচীন শহরের পশ্চিম ভাগ। ১৯৬৭সালের যুদ্ধের পরে তারা পূর্ব ভাগও দখল করে। জেরুজালেমে ইজরায়েলের সংসদ, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন, সুপ্রিম কোর্ট। ইজরায়েল দখলকৃত জেরুজালেমকে ‘ঐক্যবদ্ধ জেরুজালেম’ বলে দেখায় এবং এই শহরকেই তাদের রাজধানী বলে মানে। কিন্তু এ পর্যন্ত তারা একাই এই কথা মানত। প্যালেস্তাইন মনে করে, পূর্ব জেরুজালেমই হবে ভবিষ্যতের ঐক্যবদ্ধ, দখলমুক্ত প্যালেস্তাইনের রাজধানী। বিশ্বের কোনও দেশই জেরুজালেমকে ইজরায়েলের রাজধানী বলে স্বীকৃতি দেয়নি। বিশ্বের কোনও দেশের দূতাবাসই তাই জেরুজালেমে নেই, রয়েছে তেল আভিভে। আমেরিকার দূতাবাসও রয়েছে তেল আভিভে। ট্রাম্পের ঘোষণার পরে সেই দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেবার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

পূর্ব জেরুজালেমকে ইহুদি, খ্রিস্টান ও মুসলিমরা ধর্মীয় স্থান হিসাবেও খুবই গুরুত্ব দেয়।

ট্রাম্পের এই পদক্ষেপে ইতিমধ্যেই তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে মার্কিন মিত্র সৌদি আরব, মিশর। এই পদক্ষেপ মধ্য প্রাচ্যে সমস্যা তীব্র করবে বলে তারা জানিয়েছে। প্যালেস্তাইন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই ঘোষণার পরে ইজরায়েল-প্যালেস্তাইন আলোচনায় ওয়াশিংটনের কোনও ভূমিকাই আর থাকবে না। রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আব্বাস বলেছেন, এর পরিণতি হবে বিপজ্জনক। প্যালেস্তাইনের সংগঠন হামাস বলেছে নতুন ইন্তিফাদা বা বিদ্রোহের সূচনা হবে। ভয়াবহ প্রতিক্রিয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ইরান। জর্ডান আরব লিগের জরুরি বৈঠক ডেকেছে। তুরস্ক বলেছে, জেরুজালেম মুসলিমদের কাছে লাল সতর্কতা, মার্কিন রাষ্ট্রপতি তা অতিক্রম করতে পারেন না। রাষ্ট্রসঙ্ঘের তরফ থেকে বলা হয়েছে, জেরুজালেমের ভবিষ্যৎ আলোচনার মাধ্যমে স্থির হবে। কিন্তু এইসব প্রত্যাশিত প্রতিক্রিয়া জেনেও এগচ্ছেন ট্রাম্প।

Featured Posts

Advertisement