শততম উপগ্রহ মহাকাশে পাঠিয়ে
ইসরো জানাল, এবার ‘চন্দ্রযান’

সংবাদসংস্থা

শ্রীহরিকোটা (অন্ধ্র প্রদেশ), ১২ই জানুয়ারি — ভারতের ‘চন্দ্রযান-২’ প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত সূচি মেনেই এগচ্ছে বলে জানিয়ে দিল ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ‘ইসরো’। শুক্রবার এখানে দেশের শততম উপগ্রহ সফলভাবে উৎক্ষেপণের পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ইসরো-র চেয়ারম্যান এ এস কিরণকুমার বলেন, ফের চাঁদে পাড়ি দেবার ভারতীয় পরিকল্পনা রূপায়ণে ঠিকঠাক এগচ্ছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজ্ঞানীরা। আপাতত ফ্লাইট মডেলের শেষমুহূর্তের পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে। আগামী মার্চ মাসে নির্ধারিত সময়েই চন্দ্রযান উৎক্ষেপণ করে দেওয়া যায় কিনা, সে সম্পর্কেই ভাবনাচিন্তা চলছে। প্রসঙ্গত, চাঁদে ভারতের দ্বিতীয় অভিযান প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘চন্দ্রযান-২’। চাঁদের মাটিতে ছচাকার রোভার নামিয়ে সেখানকার মাটির বিশ্লেষণসহ নানান তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করতে চাওয়া হচ্ছে এই প্রকল্পে। এদিন একইসঙ্গে ইসরো-র লিকুইড প্রোপালসন সিস্টেম সেন্টারের ডিরেক্টর এস সোমনাথ সাংবাদিকদের জানান, তামিলনাডুর মহেন্দ্রগিরিতে তাঁর প্রতিষ্ঠানেও ‘চন্দ্রযান-২’ প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে। চাঁদের মাটিতে রোভারের সফ্‌ট ল্যান্ডিং নিশ্চিত করার ব্যাপারে দক্ষতার প্রমাণ রাখতে চাই আমরা, বলেছেন সোমনাথ।

এদিকে শুক্রবারই শ্রীহরিকোটা থেকে সাফল্যের সঙ্গে উৎক্ষিপ্ত হয়েছে ভারতের শততম উপগ্রহ। মাত্র চার মাস আগে, গত বছরের আগস্টে পোলার স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিকেল (পি এস এল ভি-সি ৩৯) উৎক্ষেপণে ব্যর্থ হয়েছিল ইসরো। এদিন সেই ব্যর্থতার গ্লানি মুছে দিয়ে রীতিমতো ৩১টি স্যাটেলাইট নিয়ে মহাকাশে উড়ে যায় পি এস এল ভি-সি ৪০। এগুলির মধ্যে রয়েছে আবহাওয়া পর্যবেক্ষণে সক্ষম ‘কার্টোস্যাট-২’ সিরিজের উপগ্রহও। তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই ৩১টি উপগ্রহের মধ্যে ৩টি ভারতের, বাকিগুলি বিদেশের। এদিন ভোর ৫টা ২৯মিনিটে শুরু হয় উৎক্ষেপণ পর্ব, সকাল ৯.২৯ মিনিটে উৎক্ষিপ্ত হয় ‘কার্টোস্যাট-২’। ইসরোর এই সাফল্যে বিজ্ঞানীদের অভিনন্দন জানিয়ে একাধিক টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, ‘শততম উপগ্রহ উৎক্ষেপণে ইসরোর বিজ্ঞানীদের এই সাফল্য ভারতের মহাকাশ গবেষণা কর্মসূচির গৌরবোজ্জ্বল ভবিষ্যতই সূচিত করছে।’

Featured Posts

Advertisement