রাজকোটে ধর্মীয় শিবিরে আগুন
হত ৩কিশোরী

সংবাদসংস্থা

রাজকোট, ১৩ই জানুয়ারি— ধর্মীয় শিবিরে অগ্নিদগ্ধ হয়ে প্রাণ গেল তিন কিশোরীর। জখম হয়েছে শিবিরে থাকা আরও পাঁচজন। গোটা শিবিরটি ভস্মীভূত হয়েছে।

এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে ‘রাষ্ট্র কথা শিবির’-এ শুক্রবার রাতে। ধর্মীয় গুরু স্বামী ধর্মবন্ধুজীর উদ্যোগে ৮-১৮বছর বয়সী শিশু-কিশোরদের নিয়ে শিবির বসে রাজকোট জেলার প্রান্সলা গ্রামে। ওইদিন রাতে আগুন লাগে প্রথমে কিশোরীদের তাঁবুতে। সেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে বলে অনুমান জেলাশাসক বিক্রান্ত পান্ডের। তবে তদন্ত শেষেই কারণ অনুধাবন সম্ভব হবে বলে শনিবার জানিয়েছেন তিনি। রাজকোটের পুলিশ সুপার অন্তরিপ সুদ এদিন জানিয়েছেন, ১৫জন কমবেশি অগ্নিদগ্ধ হয়েছে। তাদের চিকিৎসা চলছে হাসপাতালে। আগুন লাগার পর জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা এবং দমকল বাহিনীর তৎপরতায় শিবিরে থাকা প্রায় ৫০০জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। চার-পাঁচ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন আয়ত্তে আসে। শুক্রবারই ছিল ১০দিনব্যাপী শিবিরের শেষদিন। ফলে এবারের শিবিরে ১৬হাজার শিশু-কিশোরসহ অন্যান্যরা উপস্থিত থাকলেও অধিকাংশই চলে গিয়েছিল ওইদিন। শিবিরে অনাবাসী ভারতীয়রাও ছিলেন।

এরই পাশাপাশি শিবিরের অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা নিয়েও গুরুতর প্রশ্ন উঠেছে। অভিযোগ, শিবিরে যথোপযুক্ত অগ্নিনির্বাপক সামগ্রী ছিল না। এছাড়া শিবিরে ছিল না আপতকালীন কোনও গাড়ির ব্যবস্থাও। অথচ এতবড় শিবির চালালে সাধারণত প্রয়োজনীয় অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা এবং আপতকালীন ব্যবহারের গাড়ি এমনকি অ্যাম্বুলেন্স পর্যন্ত মজুত তাকে। জানা গিয়েছে, আগুন লাগে রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ। কিশোরীদের তাঁবুতে আগুন লাগার পর তা ছড়িয়ে পড়ে এবং পর পর ৪৭টি তাঁবু পুড়ে ছাই হয়ে যায় কয়েক ঘণ্টার মধ্যে।

দাবি করা হয়, শিশু-কিশোরদের মধ্যে দেশাত্মবোধ, ভারতীয় সংস্কৃতির ঐতিহ্য এবং নৈতিক মূল্যবোধ তৈরির লক্ষ্যে এই শিবির বসানো হয়। তবে স্বামী ধর্মবন্ধুজীর সঙ্গে যুক্ত আছেন সমাজের প্রভাবশালী ব্যক্তিরা। সমাজের সর্বস্তরের মানুষজনকে যুক্ত করেই স্বামী ধর্মবন্ধুজী তাঁর শিবির চালান। তাঁর উপদেষ্টামণ্ডলীর তালিকা দীর্ঘ। সেখানে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী থেকে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রের এন ডি এ সরকারের তাবড় তাবড় মন্ত্রীরা আছেন। এবারই যেমন শিবিরে এসেছিলেন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপাণি এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং। রাজ্যের বি জে পি সরকার নিহতদের পরিবারপিছু এককালীন ৪লক্ষ টাকা এবং আহতদের বিনামূল্যে চিকিৎসার কথা ঘোষণা করেছে এদিন।

১৮বছর ধরে শিশু-কিশোরদের নিয়ে রাজকোটের ওই গ্রামেই ‘রাষ্ট্র কথা শিবির’ করেন স্বামী ধর্মবন্ধুজী। কিশোর-তরুণ ছাড়াও সমাজের অন্যান্য অংশের কাছে নিজের কথা পৌঁছে দিতেই তিনি নানা ধরনের শিবির পরিচালনা করেন। মূল পরিচালন গোষ্ঠী হলো শ্রী বেদিক মিশন। প্রকৃতপক্ষে তিনি যোগের শিক্ষক। প্রচারে দারুণ পারদর্শী। কখনও গেরুয়া পড়েন না, মাঝে মাঝে ট্রাক স্যুটও পড়েন। শিবিরে ধরে আনা হয় মূলত গ্রামীণ ভারতের কিশোর-কিশোরীদের। শিবিরে যোগব্যায়াম, মার্শাল আর্ট, ঘোড়ায় চড়া, বন্দুক চালানোর পাশাপাশি ধ্যানও হয়। শোনানো হয় ধর্মকথাও।

Featured Posts

Advertisement