পুরুলিয়া পৌরসভা
বকেয়া বেতনের দাবিতে
অস্থায়ী কর্মী‍‌দের বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৩ই ফেব্রুয়ারি , ২০১৮

পুরুলিয়া, ১২ই ফেব্রুয়ারি — দুদফায় ২১মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে সোমবার সকাল থেকে তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পুরু‍‌‍লিয়া পৌরসভায় অস্থা‌য়ী কর্মীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি এবং অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করলেন। যার ফলে শহরের সাফাই অভিযানসহ অন্যান্য কাজ বন্ধ হয়ে যায়। পৌরসভার সামনে মাইক বেঁধে অস্থায়ী কর্মীরা স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ দেখান। যার ফলে পৌরসভার অন্যান্য স্বাভাবিক কাজও ব্যাহত হয়। জেলাশাসক অলোকেশপ্রসাদ রায় জানিয়েছেন, এটা পৌরসভার সমস্যা। তাই পৌরসভাকেই সমস্যার সমাধান করতে হবে। জেলাশাসক হিসাবে গোটা বিষয়টির ওপর তিনি নজর রাখছেন। সারাদিন অবস্থান বিক্ষোভ ও কর্মবিরতি চালানোর পর বকেয়া ‍‌২মাস অর্থাৎ নভেম্বর ও ডিসেম্বর মাসের বেতন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়াতে বিকালের দিকে তুলে নেওয়া হয় আন্দোলন। বাকি বকেয়া না দিলে অস্থায়ী কর্মীরা ফের আন্দোলনে নামবার হুমকি দিয়েছেন অস্থায়ী কর্মীরা।

ক্ষমতায় থাকার জন্য গত দশ বছর ধরে তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভা ও তার আগে কংগ্রেস-তৃণমূলের জোট পরিচালিত পৌরসভা প্রচুর অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ করে। সেই অস্থায়ী কর্মীদের বেতন দিতে নাভিশ্বাস উঠেছে পৌরসভার। লাগামছাড়া ভাবে কাজে নেওয়া অস্থা‌য়ী কর্মীদের বেতন দিতে বর্তমান পৌরসভা অন্য ফান্ড থেকে টাকা নিচ্ছে সেটা স্বীকার করে নিয়েছেন পৌরপ্রধান সামিমদাদ খান। তার স্বীকারোক্তি অন্য ফান্ড থেকে ঋণ নিয়ে অস্থায়ী কর্মীদের বেতন দেওয়া হয়। আর আঠারো মাসের বকেয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওটা আগের বোর্ডের আমলের বকেয়া। সে বোর্ডটি জোটের বোর্ড।

পৌরসভায় বর্তমানে ১৪২৬ জন অস্থায়ী কর্মী রয়েছে। তারা সাফাই, পানীয় জল, আলো, সাহেব বাঁধ রক্ষণাবেক্ষণ প্রভৃতি কাজ করেন। অস্থায়ী কর্মীদের দাবি — বর্তমান এই পৌরবোর্ডের আমলে তিন মাসের বেতন বকেয়া আছে তাদের। আর আগের পৌরবোর্ডের আমলের বকেয়া রয়েছে কারও দশ মাস, বারো মাস বা কারও আঠারো মাস। আগের পৌরবোর্ডের আমলে অস্থায়ী কর্মীর সংখ্যা ছিল ৬৫০ জন। আর এই পৌরসভার আমলে অস্থায়ী কর্মীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪২৬ জন। অর্থাৎ নতুন করে প্রায় আটশো অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে। অস্থা‌য়ী কর্মচারীদের পক্ষে স্মরজিৎ স্যামুয়েল, উত্তম তেওয়ারী, গণেশ কুম্ভকার প্রমুখ জানিয়েছেন, পৌরপ্রধানের আলোচনার সময়ই তাঁরা জানিয়েছিলেন দশই ফেব্রুয়ারির মধ্যে বকেয়া বেতন না দিলে তারা অবস্থান বিক্ষোভ ও কর্মবিরতি শুরু করবেন। তাই তারা সোমবার কর্মবিরতি শুরু করেছিলেন। সকালে গাড়িখানাতে সাফাই শেড-এ অস্থায়ী কর্মীরা কর্মবিরতি শুরু করে। আপাতত ২মাসের বকেয়া দেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে তু‍‌লে নেওয়া হয় কর্মবিরতি।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement