খাদ্যমন্ত্রীর আশ্বাসবাণীর
পরেও ধান কেনায় ডাহা
ফেল কোচবিহার

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৪ই ফেব্রুয়ারি , ২০১৮

মাথাভাঙা, ১৩ই ফেব্রুয়ারি— কোচবিহার আর আলিপুরদুয়ার জেলা ধান কেনার ক্ষেত্রে লক্ষ্যমাত্রার ধারে কাছে পৌঁছাতে পারেনি। আর সে কারণেই খাদ্যমন্ত্রী সোমবার দুই জেলার সংশ্লিষ্টদপ্তরে আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করলেন।

কিন্তু মিটবে কি সমস্যা? সে বিষয়ে তেমন আশার বাণী শোনা যায়নি। মন্ত্রী অবশ্য আশাবাদী এবারে ধান কেনায় লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করবে দুই জেলা। এদিনের বৈঠকে সরকারি আধিকারিকরা ছাড়াও জনপ্রতিনিধি, মিল মালিকরাও ছিলেন।

চলতি মরশুমে কোচবিহার জেলায় কৃষকদের থেকে সরাসরি সহায়ক মূল্যে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লক্ষ ৩০ হাজার মেট্রিক টন। এখনও কেনা হয়েছে মাত্র ২৮ হাজার মেট্রিক টন। নভেম্বর মাস থেকে কোচবিহারে ধান কেনা শুরু হয়েছিল। ৩১শে জানুয়ারি পর্যন্ত ৪৩ হাজার মেট্রিক টন ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা ছিল। তার মধ্যে এই সময়ে মাত্র ২৪ হাজার মেট্রিক টন ধান কিনতে পেরেছিল জেলা প্রশাসন। যার মানে দক্ষতার অভাব।

অবশ্য সহায়ক মূল্যে ধান কেনায় কোচবিহার জেলা এবারই প্রথম ফেল করেছে ব্যাপারটা এমন নয়। গত বছরও জেলা ফেল করেছিল। খাদ্যমন্ত্রী ধান কেনার মরশুমে ৪বার এসেও পাশ করাতে পারেননি কোচবিহার জেলার আধিকারিকদের। গত বছর লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লক্ষ ৫৯ হাজার মেট্রিক টন। পরে লক্ষ্যমাত্রা কমিয়ে করা হয় ১ লক্ষ ৪৭ হাজার মেট্রিক টন। বাস্তবে গত বছর কোচবিহার জেলা মাত্র ১ লক্ষ মেট্রিক টন ধান কিনে ভরতে পেরেছিল। স্বাভাবিকভা‍‌বেই প্রশ্ন উঠেছে গতবার যারা মাত্র ১ লক্ষ মেট্রিক টন ধান কিনতে পেরেছিল তারা এবার ১ লক্ষ ৩০ হাজার মেট্রিক টন ধান কিনবে কি করে?

এবারে নভেম্বর মাসেই ১২টি ব্লকে ১৮টি ধান ক্রয় কেন্দ্র ছাড়াও ৩০টি সোসাইটি এবং একাধিক স্বনির্ভর গোষ্ঠী ধান কিনতে এসেছিল।

সহায়‌ক মূল্য ১৫৫০ টাকা। তাই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে কৃষকরা। কৃষকের ধান ফড়েদের হাত ঘুরে চলে যাচ্ছে ভিন রাজ্যে।

সরকারের ধান কারা কিনছে তার জন্য নাকি নজরদারি টিম আছে। সে টিমের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। খাদ্যমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আরও সেল্ফ হেল্প গ্রুপকে নামানো হবে ধান কিনতে। ধান কেনা কম হওয়ার কারণ বলতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন, কৃষক ধানের দাম খোলা বাজারে বেশি পাচ্ছে বলে ধান কেনার সংগ্রহমাত্রা পূরণ করা যাচ্ছে না।

বাস্তব ছবিটা একেবারেই আলাদা, জেলাজুড়ে আমন ধানের অভাবী বিক্রি চলছেই। যা মন্ত্রী স্বীকার করেননি।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement