শ্রমিক আন্দোনের চাপে দাবি
মেটানোর আশ্বাস কর্তৃপক্ষের

নিজস্ব সংবাদদাতা

হাওড়া, ১৩ই ফেব্রুয়ারি— ঐক্যবদ্ধ শ্রমিক আন্দোলনের জেরে পিছু হটলো হাওড়া মিলের কর্তৃপক্ষ। মিলের শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা মেটানোর জন্য গুরুত্ব সহকারে চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে এবং তা মেটানোর জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

হাওড়া মিলের শ্রমিকরা বছরের পর বছর তাঁদের ন্যায্য প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত। বারংবার তাঁরা তাঁদের প্রাপ্যের দাবি জানিয়েও কোনও সুরাহা হয়নি। বি সি এম ইউ-র নেতৃত্বে আরও জোরদার হয় শ্রমিকদের লড়াই। শ্রমিকরা গেটসভা, হেড অফিসের সামনে অবস্থান-বিক্ষোভ, ডি এল সি অভিযান, মিল কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা, ডেপুটেশন ইত্যাদি কর্মসূচি নিলেও দাবি মেটাতে মিল কর্তৃপক্ষ ছিল উদাসীন। কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা আর টালবাহানা শ্রমিকদের আন্দোলনের তীব্রতা আরও বাড়িয়ে দেয়। প্রথমে একঘণ্টা করে প্রতি সিফটে, পরে এক দিনের ধর্মঘট করেন শ্রমিকরা। তার পরেও প্রাপ্য না মেটানোর অবস্থানে অনড় থেকেছে মিল কর্তৃপক্ষ। শ্রমিকরা লাগাতার ধর্মঘটের পথে যাবার সিদ্ধান্ত নেন। ইউনিয়নের পক্ষ থেকে মিল কর্তৃপক্ষকে দশ দিনের নোটিস দেওয়া হয় ভাববার জন্য এবং সমাধানের জন্য। তাতেও সাড়াশব্দ করেনি কর্তৃপক্ষ। তারপর ১লা ফেব্রুয়ারি ধর্মঘটে যাবার বিষয়ে কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেওয়া হয়। সমর্থনে হাওড়া মিল গেটে সভা হয়। ৭ই ফেব্রুয়ারির সেই সভায় উপস্থিত থেকে ধর্মঘটের সমর্থনে বক্তব্য রাখেন শ্রমিকনেতা দীপক দাশগুপ্ত, সি আই টি ইউ পশ্চিমবঙ্গ সাধারণ সম্পাদক অনাদি শাহুসহ নেতৃবৃন্দ। প্রয়োজনে ২১টি ইউনিয়নকে নিয়ে হাওড়া মিলের শ্রমিকদের জন্য লড়াই শুরু হবে তাঁরা জানান। শ্রমিকরা এককাট্টা হয়ে ধর্মঘটের সিদ্ধান্তে অনড় ছিলেন।

শ্রমিকদের অদম্য লড়াইয়ের কাছে মিল কর্তৃপক্ষ কার্যত হেরে গিয়ে ১১ই ফেব্রুয়ারি নোটিস দেয়। তাঁদের ন্যায্য প্রাপ্যগুলি নিয়ে গুরুত্ব সহকারে ভাবনা চিন্তা করার সাথেসাথে তা মেটানোর উদ্যোগ নেবে বলে জানানো হয় নোটিসে।

মঙ্গলবার মিলগেটে সভায় দীপক দাশগুপ্ত মিল কর্তৃপক্ষের দেওয়া চিঠি পাঠ করে বলেন, শ্রমিকদের স্বার্থরক্ষায় সকল ইউনিয়নকে একত্রিত হয়ে লড়াইয়ের আবেদন করা হয়, কিন্তু তৃণমূলের ইউনিয়ন তাতে যোগ দেয়নি। তিনি বলেন, কর্তৃপক্ষ সময় চেয়েছে তা দেওয়া হবে। তবে দাবি না মিটলে লাগাতার ধর্মঘটের পথেই যাবেন শ্রমিকরা। সভায় এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, নেতা প্রণব চ্যাটার্জি, আসরাফ জাভেদ, রবিদাস প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন সি আই টি ইউ হাওড়া জেলা সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণস্বপন মিত্র। সভা পরিচালনা করেন এম পি সাউ।

Featured Posts

Advertisement