ডি এ মামলায় আদালতের
প্রশ্নবাণে জর্জরিত রাজ্য

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৪ই ফেব্রুয়ারি , ২০১৮

কলকাতা, ১৩ই ফেব্রুয়ারি — ডি এ মামলায় আদালতের প্রশ্নে জর্জরিত রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার হাইকোর্টে রাজ্য সরকারের তরফে ফের বলা হয় ডি এ (মহার্ঘভাতা) সরকারি কর্মচারীদের আইনত স্বীকৃত পাওনা নয়। অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত বলেন, মহার্ঘভাতার আইনি বৈধতার কথা কোথাও নেই। বিচারপতি শেখর বি শরাফ অ্যাডভোকেট জেনারেলকে বলেন, সরকারের যে রোপা (রিভিসন অব পে অ্যান্ড অ্যালায়েন্স) রুল আছে সেখানেই কর্মচারীদের পাওনাগন্ডা স্বীকৃতি পেয়েছে। অ্যাডভোকেট জেনারেল বলার চেষ্টা করেন, রোপা রুলের সঙ্গে ডি এ কোন সম্পর্ক নেই। এর পরই তিনি রাজ্য ট্রাইব্যুনালের দেওয়া ডি এ মামলার রায় পড়ে আদালতকে শোনানোর চেষ্টা করেন।

উল্লেখ্য, ট্রাইব্যুনাল কর্মচারীদের ডি এ আইনি পাওনা নয় বলে রায় দিয়েছিল। বিচারপতি শরাফ এর মধ্যেই সরকারি আইনজীবীকে বলেন, ট্রাইব্যুনালের রায়ে রোপা-র কোন উল্লেখ নেই। বিচারপতি বলেন, মন্ত্রীসভার বৈঠকে নির্দিষ্টভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে রোপারুল। এই সিদ্ধান্তে রাজ্যপাল সই করেছেন। সরকার সেই রুলের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সেখানেই কর্মচারীদের নায্য পাওনার কথা স্বীকৃত হয়েছে। অথচ ট্রাইব্যুনাল তার রায়ে এই রুলের কোন কথা উল্লেখ করেনি কেন? বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্ত সে সময় অ্যাডভোকেট জেনারেলকে প্রশ্ন করেন, কোন আইনি কারণে ট্রাইব্যুনাল ডি এ বৈধ নয় বলেছে? সেই ব্যাখ্যা কোথায়? কলকাতা হাইকোর্টে বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্ত এবং বিচারপতি শেখর বি শরাফ এবং এই দুই বিচারপতির ডিভিসন বেঞ্চে ডি এ মামলার শুনানি চলছে। ডিভিসন বেঞ্চ দীর্ঘ শুনানি গ্রহণ করছে। আগামী সোমবার আবার শুনানির দিন ধার্য হয়েছে। সেখানে রাজ্য সরকারকে ব্যাখ্যা করতে হবে কেন ডি এ-র আইনি বৈধতা নেই।

Featured Posts

Advertisement