বিফলে অভিমন্যুর ইনিংস
ফাইনালে হার বাংলার

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৪ই ফেব্রুয়ারি , ২০১৮

কলকাতা, ১৩ই ফেব্রুয়ারি — শেষ মুহূর্ত অবধি লড়াই করেও অনূর্ধ্ব ২৩ জাতীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনালে অল্পের জন্য হার বাংলার। মঙ্গলবার পাঞ্জাবের কাছে ৪ উইকেটে হেরে গেল সৌরভ সিং, অভিমন্যু ঈশ্বরণরা। টসে জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন পাঞ্জাব অধিনায়ক এ কে মালহোত্রা। ইন্দোরের পিচে শুরুর দিকে ব্যাটিং সহজ ছিল না। যার পুরো ফায়দা তোলেন পাঞ্জাব বোলাররা। শুরুতেই বাংলার ওপেনার সৌরভ পালকে (০) রান আউট করেন নভনীত। এরপর একের পর এক উইকেটের পতন বাংলার। ৫৪ রানের ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে অগ্নিভ পানের দল। কিন্তু বাংলাকে ম্যাচে ফেরায় অভিমন্যু ঈশ্বরণ এবং অধিনায়ক সৌরভ সিংয়ের অনবদ্য যুগলবন্দি। ২০১ রানের জুটি গড়েন দুজনে। ১৩৭ বলে ১৪২ রানের অপরাজিত শতরানের ইনিংস খেলেন অভিমন্যু। ১৩টি চার এবং ৩টি ছয়ের সৌজন্যে। যোগ্য সঙ্গ দেন সৌরভ। ৮৩ রান করে আউট হন তিনিও। ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ২৬৪ রানে পৌঁছায় সৌরাশিস লাহিড়ির দল।

লড়াই করার মঞ্চ তৈরি ছিল। কিন্তু বাংলাকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় বোলার প্রীতম চক্রবর্তীর চোট। ফলো থ্রুয়ের সময় পা মুচকে যায় তাঁর। পাঞ্জাব ইনিংসের শুরুতেই অভিজিৎ গর্গকে ১০ রানে ফিরিয়ে জয়ের আশা দেখান বাংলার পেসার অমিত কুইলা। ৩১ রানে নভনিৎ ভির্ককে ৩ রানে ফিরিয়ে চাপ বাড়ান বাংলার বোলার প্রামাণিক। কিন্তু পাঞ্জাবকে বিপদমুক্ত করেন সনবীর সিং (৮২) এবং রমনদীপ সিং (৭৫)। তৃতীয় উইকেটে ১৪১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন পাঞ্জাবের দুই তরুণ ক্রিকেটার। সেখানেই ম্যাচে ফিরতে ব্যর্থ বাংলা। পরের দিকে অভিনব শর্মা ১২ বলে ৩৩ এবং পাঞ্জাব অধিনায়ক ২৯ বলে ৩৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন। ম্যাচ হারলেও ছাত্রদের লড়াইয়ে খুশি কোচ সৌরাশিস। ইন্দোর থেকে ফোনে বললেন, ‘শুরুর দিকে উইকেট হারিয়ে চাপে ছিলাম। অভিমন্যু, সৌরভরা দারুণ ব্যাটিং করেছে। কিন্তু প্রীতম চোট পাওয়ায় একজন বোলার কম হয় যায়। তার উপর স্পিনাররা উইকেট নিতে পারেনি। হতাশ হওয়ার কিছু নেই। দারুণ অভিজ্ঞতা হয়েছে প্রয়াস, অমিত, সৌরভদের। আগামীতেও ভালো খেলবে এরা।’

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement