সোনারপুরে মাদক খাইয়ে
ছাত্রীকে ধর্ষণ, খুনের চেষ্টা

নিজস্ব সংবাদদাতা

সোনারপুর, ১৪ই ফেব্রুয়ারি — সোনারপুরে মাদক খাইয়ে দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীকে পরপর ধর্ষণ ও খুনের চেষ্টার ঘটনায় পুলিশ মূল অভিযুক্ত অর্ঘ দাসসহ ৩ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। এদিকে, অভিযুক্ত ওই যুবকদের কঠোর শাস্তির দাবি করেছে নির্যাতিতার পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে সোনারপুর থানার রথতলা এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, অর্ঘ দাস নামে ওই যুবক তার প্রেমিকাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় রথতলায় এক বন্ধুর বাড়িতে। সেখানে ওই ছাত্রীকে মাদক খাইয়ে বেহুঁশ করে পরপর ধর্ষণ করে। তাঁকে মারধর করে খুনের চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা নির্যাতিতাকে উদ্ধার করে। তমোজিৎ মিত্র নামে একজনকে তাঁরা ধরে ফেলে। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। বাকি দুজন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় বলে তাঁরা জানান। নির্যাতিতা ওই তরুণীকে উদ্ধার করে প্রথমে সুভাষগ্রামে সোনারপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখান থেকে কলকাতায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় নির্যাতিতার মা স্থানীয় সোনারপুর থানায় ওই তিন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে পরপর ধর্ষণ ও খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এদিকে নির্যাতিতা ওই ছাত্রীর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, সে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। তাকে মাদক খাইয়ে বেহুঁশ করে পরপর ধর্ষণ করে। তার সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁরা অপরাধীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানান। এই ঘটনায় বারুইপুর জেলা পুলিশের পদস্থ এক আধিকারিক বুধবার জানান, সোনারপুর থানায় নির্যাতিতার পরিবার অভিযোগ করেছে। সোনারপুর থানা ঘটনার তদন্ত করছে। তিন অপরাধীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এই ঘটনায় আরও কেউ ছিল কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

Featured Posts

Advertisement