রাজ্যসভার ভোটে মনোনয়ন
দাখিল বামফ্রন্ট প্রার্থীর

নিজস্ব প্রতিনিধি

কলকাতা, ১২ই মার্চ— রাজ্যসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে সোমবার রাজ্য বিধানসভায় মনোনয়ন জমা দিলেন বামফ্রন্টের পক্ষে রবীন দেব। এদিন সি পি আই (এম) প্রার্থী রবীন দেবের সঙ্গে মনোনয়ন জমা দিতে যান বিধানসভার বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী ও অন্যান্য বামফ্রন্ট বিধায়করা। মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর এদিন সাংবাদিকদের রবীন দেব বলেন, যে কোনও নির্বাচন আমাদের কাছে রাজনৈতিক লড়াই, একটা নীতির লড়াই। এরাজ্যে যেমন মানুষের যাবতীয় সমস্যার জন্য দায়ী তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার, তেমনই গোটা দেশে মানুষের যাবতীয় রুটিরুজির সমস্যা, সামাজিক বিভাজন, সাম্প্রদায়িক অস্থিরতার জন্যও দায়ী কেন্দ্রের মোদী সরকার। এই দুই শক্তির বিরুদ্ধেই আমাদের সুস্পষ্ট রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে রাজ্যসভার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি আমরা।

সুজন চক্রবর্তী সাংবাদিকদের বলেন, গোটা দেশে বি জে পি-র সাম্প্রদায়িকতার মোকাবিলায় দক্ষতার সঙ্গে লাগাতার লড়াই করার ক্ষমতা একমাত্র বামপন্থীদেরই আছে। মোদী জমানায় দেশে যেমন ধান্দার ধনতন্ত্র চলছে নীরব মোদীর লুটের মধ্য দিয়ে, তেমনই এরাজ্যেও একই লুটের রাজনীতি, অর্থনীতি চলছে শাসকদলের সৌজন্যে। সাংবাদিকরা এদিন রবীন দেবকে প্রশ্ন করেন কোনও ম্যাজিক অঙ্কে আপনারা এই পদে জয়লাভ করবেন? জবাবে রবীন দেব এদিন বলেন, কোনও ম্যাজিক অঙ্কের প্রশ্ন নয়। এই নির্বাচনে সরাসরি জনগণ ভোট দেবেন না আমরা তা জানি। জনপ্রতিনিধিরাই এখানে নির্বাচকমণ্ডলী। কিন্তু যেহেতু তাঁরা জনগণের প্রতিনিধিত্ব করছেন তাই মানুষের সমস্যাগুলির দিক থেকে ওই প্রতিনিধিরা মুখ ফিরিয়ে থাকলেও আমরা স্পষ্ট রাজনৈতিক অবস্থান নিয়েই প্রতিদ্বন্দ্বিতায় শামিল হয়েছি। তিনি বললেন, যারা বলছিল যে এ দেশে বামপন্থা অবলুপ্তির পথে তারা গত তিনদিন ধরে দেখছেন মহারাষ্ট্রের বুকে তোলপাড় করে দেওয়া লালঝান্ডার আন্দোলন। গোটা দেশ তাকিয়ে রয়েছে সেই লড়াকু কৃষক আন্দোলনের দিকে। আগামী কয়েকমাস পরে রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট। সেখানেও আমরা সুনির্দিষ্ট রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামব।

Featured Posts

Advertisement