মূর্তি ভাঙার বিরুদ্ধে সভা
সামাজিক ন্যায় মঞ্চের

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৩ই মার্চ , ২০১৮

কলকাতা, ১২ই মার্চ — দেশজুড়ে বি জে পি-র উদ্যোগে মূর্তি ভাঙার অভিযান, মুসলিম-দলিত-আদিবাসীদের ওপর ক্রমবর্ধমান আক্রমণ, ত্রিপুরায় নজিরবিহীন গেরুয়া সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সোমবার মৌলালি মোড়ে প্রতিবাদ সভা করল পশ্চিমবঙ্গ সামাজিক ন্যায় মঞ্চ।

এদিনের প্রতিবাদ সভায় সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক অলকেশ দাশ বলেন, ত্রিপুরার বিলোনিয়ায় নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের মাত্র ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বুলডোজার চালিয়ে লেনিন মূর্তি ভেঙেছে আর এস এস- বি জে পি। ওদের এই ন্যক্কারজনক কাজের প্রতিবাদ ধ্বনিত হয়েছে সারা দেশে। স্বভাবসুলভ বিভ্রান্তি ছড়াতে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী হুংকার দিয়েছেন, তিনি এরাজ্যে লেনিনের মূর্তি ভাঙতে দেবেন না। কিন্তু এরাজ্যে ২০১১সালে পালাবদলের পর এই তৃণমূলই একের পর এক মার্কস লেনিনের মূর্তি ভেঙেছে। তৃণমূলের এহেন বি জে পি বিরোধিতাও পুরোপুরি চালাকি। কিন্তু এদের জেনে রাখা ভালো, লেনিন মূর্তি ভেঙে মার্কসবাদ লেনিনবাদের মতাদর্শকে ধ্বংস করা যাবে না।

বি জে পি-আর এস এস একইসঙ্গে আম্বেদকরের মূর্তি, পেরিয়ারের মূর্তি ভেঙেছে। সভায় রবীন মণ্ডল বলেন, মূর্তি ভাঙার সংস্কৃতি নতুন ধরনের বিপদ হাজির করেছে। বিলোনিয়ার মত উত্তরপ্রদেশে ভাঙা হয়েছে আম্বেদকরের মূর্তি, তামিলনাডুতে ভাঙা হয়েছে পেরিয়ারের মূর্তি। পেরিয়ার ছিলেন দ্রাবিড় সাংস্কৃতিক রাজনৈতিক আন্দোলনের দিশারী। আম্বেদকর নিজের জীবন দিয়ে লড়াই করে এসেছেন পিছড়ে বর্গের মানুষদের জন্য। সাংস্কৃতিক বিভিন্নতার মধ্যে ভারতের ঐক্য এভাবে মূর্তি ভেঙে শেষ করা যাবে না। নীতীশ বিশ্বাস বলেন, সামাজিক ন্যায় মঞ্চের প্রচার আন্দোলন শুধু কলকাতায় একটি পথসভায় সীমাবদ্ধ করলে চলবে না। জেলায় জেলায় আর এস এস-বি জে পির আগ্রাসী হিন্দুত্বের রাজনীতির বিরুদ্ধে প্রচার গড়ে তুলতে হবে। এছাড়াও এদিন বক্তব্য রাখেন বংশীবদন মৈত্র, স্বপন মাখাল, অশোক সমাজদার। সভাপতিত্ব করেন বিমল মিস্ত্রী।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement