অবাধে টুকলি চলছে
হাসনাবাদের স্কুলে

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৪ই মার্চ , ২০১৮

কলকাতা, ১৩ই মার্চ- টুকলি চলছে অবাধে। নেই পুলিশি পাহাড়াও। সোমবার ছিল মাধ্যমিকের প্রথম ভাষার পরীক্ষা। মঙ্গলবার দ্বিতীয় ভাষার পরীক্ষা। পরীক্ষার প্রথম দুদিনই অবাধে টোকাটুকি চলল হাসনাবাদের এম সি ইনস্টিটিউশনে। অভিযোগ, হাসনাবাদ থানার পূর্ব খেজুরবেড়িয়া গ্রামের ওই বিদ্যালয়ে শৌচালয়ের ঘুলঘুলি দিয়ে পাচার করা হয় টুকলি। স্কুলে পরীক্ষা চলাকালীন নেই পুলিশি পাহাড়াও। ফলে বাইরে থেকে টুকলি পাচারে কোনও বাধা নেই। বিশপুর হাইস্কুল, দুর্গাপুর বাইলানী, হলদা বাসতলা, রূপমারি হাইস্কুল এবং ভাণ্ডারখালি হাইস্কুলের প্রায় পাঁচশো ছাত্রছাত্রীর ওই স্কুলে সিট পড়েছে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, পরীক্ষার দুদিনই বাইরের কয়েকজন কাগজে লিখে টুকলি পাচার করছে স্কুলের ভেতরে।

মঙ্গলবার দ্বিতীয় ভাষার পরীক্ষায় পরীক্ষাকেন্দ্রে বাজেয়াপ্ত করা হয় দুই জেলার ছজন পরীক্ষার্থীর মোবাইল ফোন। পর্ষদ সূত্রের খবর, এদের মধ্যে দুই পরীক্ষার্থী মালদহের এবং বাকি চারজন উত্তর ২৪ পরগনার। এদিন, পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার তিন পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে মোবাইল পাওয়া যায়। পরীক্ষা শুরুর আগেই মোবাইল বাজেয়াপ্ত হওয়ায় এদিন পরীক্ষায় বসতে পারে তারা। অন্যদিকে উত্তর ২৪ পরগনার আরেক পরীক্ষার্থী এবং মালদহের দুই পরীক্ষার্থীর মোবাইল পাওয়া যায় পরীক্ষা চলাকালীন। বাতিল হয়ে যায় তাদের দ্বিতীয় ভাষার পরীক্ষা।

Featured Posts

Advertisement