গরিব মানুষের পঞ্চায়েত
শিয়াখালার সাফল্ অনন্য

অনন্ত সাঁতরা   ১৭ই এপ্রিল , ২০১৮

চণ্ডীতলা, ১৬ই এপ্রিল— গ্রামবাসীদের সঙ্গে নিয়ে গরিব মানুষের পঞ্চায়েত গড়ে তোলো। এই ভাবনাকে সামনে রেখে একটানা চার দশক অর্থাৎ ৪০ বছর ধরে বামফ্রট পরিচালিত হুগলীর চণ্ডীতলা থানার শিয়াখালা গ্রাম পঞ্চায়েত গোটা রাজ্যের মধ্যে উল্লেখযোগ্য নজির স্থাপন করেছে। গ্রামের মানুষ, গ্রাম সংসদ, গ্রামসভা এমনকি বিরোধী দলের সদস্যদের সম মর্যাদা দান ও মতামত আদান প্রদানের মধ্য দিয়েই এই পঞ্চায়েতের অনন্য সাফল্য।

৪০বছর ধরে গ্রাম পঞ্চায়েত ধারাবাহিকভাবে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গ্রামীণ বিদ্যুতায়ন, নলবাহিত পানীয় জল সরবারহ, কৃষিসেচ সম্প্রসারণ, সার্বিক সাক্ষরতা ও সচেতনতা প্রকল্প, গ্রামীণ মহিলাদের স্বনির্ভর কর্মসূচি, রাস্তার উন্নয়ন, গরিব মানুষের পাকা বাড়ি ও শৌচাগার নির্মাণ, জল সংরক্ষণ, বনসৃজন প্রকল্প ও স্বল্পমূল্যে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন ইত্যাদি উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড ঘিরে মানুষের পাশে থেকেছে সর্বদাই। শিক্ষাক্ষেত্রে পরিকাঠামো উন্নয়নে, গ্রামীণ বিদ্যুতায়ন প্রকল্পের (আর ই সি ) মধ্য দিয়ে পঞ্চায়েত এলাকার গরিব পরিবারে লোকদীপ পৌঁছে দেওয়ার সুবাদে শিয়াখালা গ্রাম পঞ্চায়েতের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের প্রতি মানুষের অটুট আস্থা রয়েছে। এমনটাই শোনা গেল শিয়াখালা পীরতলার বাসিন্দাদের কথায়। সুজাতা সরকার বললেন,‘এই পঞ্চায়েতের কর্মকর্তারা সব সময়ই গরিব মানুষের পাশে থাকেন। কোথাও কিছু সমস্যা দেখা দিলে আন্তরিকভাবে কাজ করেন।’ শেখ আকতার বললেন, ‘চারিদিকে গন্ডগোল চলছে। আমরা কিন্তু এখানে শান্তিতে আছি। উন্নয়নের কাজও খুব ভালো।’ শিয়াখালা চৌমাথায় চায়ের দোকানে বসেছিলেন শেখ মনসুর। তিনি জানালেন, ‘পাশেই জাঙ্গীপাড়া ব্লকের ফুরফুরা গ্রাম পঞ্চায়েত। গতবার ওখানে বামফ্রণ্টের জেতা পঞ্চায়েত তৃণমূলীরা জবর দখল করে। এখন লুটের পঞ্চায়েত চলছে। কিন্তু শিয়াখালা পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে কোন বিরূপ অভিযোগ নেই।’ এমন সুস্থির গ্রাম পঞ্চায়েতকে অস্থির করে তুলতে বার বার চেষ্টা করেছে তৃণমূলীরা। গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে হামলাও চালিয়েছিল তারা। সেই হামলা রুখে দেন গ্রামবাসীরাই, বিশেষ করে মহিলারা। সব আক্রমণ ও হামলার বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ও উন্নয়নের ধারাকে বজায় রাখতে পঞ্চায়েতে বামফ্রন্টকেই চাইছেন শিয়াখালার মানুষ। এবারে বামফ্রন্ট কর্মীরা ভোটের কাজে জোরকদমে নেমে পড়েছেন। দেওয়াল লিখনের কাজ প্রায় শেষ। বাড়ি বাড়ি দল বেঁধে নতুন বছরের প্রথম দিন থেকেই নেমে পড়েছেন কর্মীরা। জেলাপরিষদ প্রার্থী সোমনাথ ঘোষসহ গ্রাম পঞ্চায়েত ও সমিতির প্রার্থীদের নিয়ে প্রচারে মানুষের উৎসাহ দেখার মতো।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement