প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত র‌্যাফ জওয়ানদের
মারধরের প্রতিবাদে ধরনা

নিজস্ব সংবাদদাতা

শিলিগুড়ি, ১৬ই এপ্রিল— প্রশিক্ষণ নিতে আসা র‌্যাফ জওয়ানদের মারধর করার অভিযোগ উঠলো এক রিজার্ভ ইন্সপেক্টরের বিরুদ্ধে। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়ি শহর সংলগ্ন অম্বিকানগরে। এই ঘটনায় রবিবার গভীর রাতে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে অম্বিকানগরে। যদিও পালটা মারধর করারও অভিযোগ উঠেছে। জানা গিয়েছে, ঘটনায় ছয়জন জখম হয়েছেন। জখমদের মধ্যে একজনের মাথা ফেটে গেছে। রাতেই জখমদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। 

গোলমালের সৃষ্টি হয় মেসে সামান্য রুটি বানানোকে কেন্দ্র করে। প্রশিক্ষণ নিতে আসা র‌্যাফ জওয়ানদের অভিযোগ, মত্ত অবস্থায় রিজার্ভ ইন্সপেক্টর সৌরভ চক্রবর্তী রবিবার রাতে আই আর বি ব্যারাকে এসে সামান্য রুটি বানানো নিয়ে তাঁদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। এর প্রতিবাদ জানালে কয়েকজনকে মারধর করেন অভিযুক্ত রিজার্ভ ইন্সপেক্টর। এমনকি বন্দুক কপালে ঠেকিয়ে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়ারও অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে।

রাতেই এই ঘটনার প্রতিবাদে প্রশিক্ষণ নিতে আসা র‌্যাফ জওয়ানরা মেস থেকে বাইরে বেরিয়ে এসে আই আর বি ব্যারাকের সামনে ঐক্যবদ্ধভাবে ধরনায় বসেন। গভীর রাত পর্যন্ত ধরনা চলতে থাকে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তড়িঘড়ি বৈঠকে বসেন পদস্থ আধিকারিকরা। আলোচনার মাধ্যমে তখনকার মতো ধরনা প্রত্যাহার করা হলেও ঘন্টাখানেকের মধ্যেই আবার জওয়ানরা আই আর বি কনফারেন্স হলের সামনে ধরনায় বসেন। সোমবারও ধরনা অব্যাহত রয়েছে। সোমবার সকালে বিক্ষোভ স্থলে আসেন ডি আই জি (আই আর বি) জয়ন্ত পাল। তিনিও বৈঠক করেছেন এদিন। তবে ঘটনা নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ই মার্চ র‍্যাফের প্রায় ৬০০ জন জওয়ানের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে শিলিগুড়িতে অম্বিকানগরে এসে প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন এই জওয়ানরা। অভিযোগ, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ওই জওয়ানদের মাঝেমধ্যেই অকারণে গালিগালাজ করা হতো। তাঁদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি নিয়মের বাইরে গিয়ে গভীর রাতে বাঁশি বাজিয়ে আচমকা লাইন আপ করানো হতো। পারিবারিক সমস্যার কারণে ছুটি চাইলেও ছুটি দেওয়া হতো না। পানীয় জলসহ নানা অব্যবস্থার মধ্যে রাতের পর রাত কাটাতে হয়েছে তাঁদের। জওয়ানদের আরও অভিযোগ, রান্না করা, কাপড় কাচা, বাসন মাজা, ঘর মোছা, বাথরুম পরিষ্কারের মতো কাজ জওয়ানদের দিয়ে করানো হয়েছে।

এছাড়াও নানা বিষয় নিয়ে জওয়ানদের মধ্যে ক্ষোভ পুঞ্জীভূত হয়েছিল। রবিবার রাতে জওয়ানদের সঙ্গে অভব্য আচরণ ও তাঁদেরকে মারধরের ঘটনায় ক্ষোভ আরও তীব্র হয়। এরপরেই প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত র‌্যাফ জওয়ানরা ধরনায় বসেন। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত রিজার্ভ ইন্সপেক্টরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement