দুষ্কৃতীদের ব্যবহৃত গুলির খোল হাতে
রায়গঞ্জ থানায় মহিলাদের বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা

রায়গঞ্জ, ১৬ই এপ্রিল— সোমবার সকাল ১০টা। আগাম কোনও খবর নেই পুলিশের কাছে। শতাধিক মহিলা রায়গঞ্জ থানার বাইরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। দেখা গেল থানার বাইরে একাধিক গুলির খোল হাতে মহিলারা থানা ঘিরে রেখেছেন। সোমবার সকালেই এই দৃশ্যই দেখা গেল উত্তর দিনাজপুরের জেলা সদর শহর রায়গঞ্জে।

‘বোল্ডার, ডন, টাইগার’ নামে দুষ্কৃতী ও তোলাবাজের দাপটে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন শহরের মানুষ। এদিন সকালে রায়গঞ্জ শহর সংলগ্ন সোহারই এলাকার মহিলারা রায়গঞ্জ থানায় এসে যৌথভাবে তাঁদের অভিযোগ জানান।

মহিলাদের অভিযোগ, শনিবার গভীর রাতে ওই দুষ্কৃতীরা এলাকায় সন্ত্রাস তৈরি করতে এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। ব্যবহৃত ওই গুলির খোল সঙ্গে করে নিয়ে এসে এলাকার মহিলারা পুলিশের কাছে প্রমাণ হিসেবে জমা দেন। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

এদিন সকাল ১০টা নাগাদ প্রায় শখানেক মহিলা রায়গঞ্জ থানায় এসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। নিরাপত্তার দাবিতে তাঁরা থানায় স্লোগান দিতে থাকেন। বিক্ষোভকারী ওই মহিলাদের হাতে কম করে দশ থেকে পনেরোটি ব্যবহৃত গুলির খোল দেখা গিয়েছে।

এলাকার বাসিন্দা তুলসী বিশ্বাস, ষষ্ঠী সরকার, মালতী দেবীরা জানিয়েছেন, গত কয়েকমাস ধরে এলাকায় ‘টাইগার’ (জয়ন্ত বিশ্বাস) নামে এক দুষ্কৃতী তার দলবল নিয়ে কার্যত তাণ্ডব চালাচ্ছে। এলাকায় ঢোকার মুখে তারা একটি ক্লাবঘর বানিয়েছে। ওই ক্লাবে আবার নেতা-মন্ত্রীদের আনাগোনা। সেখানে সকাল থেকে একদল বহিরাগত রায়গঞ্জ শহরের দুষ্কৃতীরা ভিড় করে থাকে। পাশের রাস্তা দিয়ে এলাকার বাসিন্দারা যাতায়াত করার সময় তাদের থেকে ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করে। এলাকার মহিলারা ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াতের সময় তাদের লক্ষ্য করে কটূক্তি চলতে থাকে। সন্ধ্যার পর থেকে ওই রাস্তা দিয়ে এলাকার কোনও মহিলা যাতায়াত করার সাহস পায় না। এই নিয়ে বারবার আমরা প্রতিবাদ করেছিলাম। কিন্তু কেউ কর্ণপাত করেনি। তারা শনিবার রাতে এলাকায় ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলি চালায়।

মহিলা বিক্ষোভের জেরে পুলিশ জানিয়েছে, ওই এলাকার মহিলাদের থেকে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। বেশ কিছু ব্যবহার করা গুলির খোল এলাকার মহিলারা থানায় জমা দিয়েছেন। এই বিষয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement