কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
কর্মচারি সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৭ই এপ্রিল , ২০১৮

কলকাতা, ১৬ই এপ্রিল—শিক্ষকদের পাশাপাশি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাকর্মীদের বেড়ি পরানোর যে আচরণ বিধি রাজ্য সরকার আনতে চলেছে তার বিরুদ্ধে তীব্রতর আন্দোলনের ডাক দিয়ে শেষ হলো ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশনের তিনদিনের সম্মেলন। শনিবার অলক দাস নগর (কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের আলিপুর ক্যাম্পাস) ও কৌশিক নায়েক মঞ্চে গত শনিবার থেকে শুরু হয়েছে সম্মেলন। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন রাজ্য কো-অর্ডিনেশন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিজয়শংকর সিনহা। দুদিনের প্রতিনিধি সম্মেলনের পর সোমবার হয় প্রকাশ্য সমাবেশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ ষ্ট্রিট ক্যাম্পাসে প্রকাশ্য সমাবেশের উদ্বোধন করেন রাজ্য কর্মচারি আন্দোলনের নেতা প্রণব চট্টোপাধ্যায়। এই সম্মেলন থেকে অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সুব্রত চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক অভিজিৎ চৌধুরি ও কোষাধ্যক্ষ পদে সুদীপ্ত ব্যানার্জি নির্বাচিত হয়েছেন।

কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীদের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাজ্য সরকার ‘পশ্চিমবঙ্গ কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় (প্রশাসন ও বিধি), ২০১৭’ আইন পাশ করেছে। সেই আইনকে কার্যকরী করতে খসড়া বিধি তৈরি করেছে উচ্চশিক্ষা দপ্তর। সেই বিধিতে এমন কয়েকটি ধারা রয়েছে যা শিক্ষক-সহ শিক্ষাকর্মীদের অপমান করা ছাড়াও তাঁদের গতিবিধির ওপর বেড়ি পড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে আন্দোলন গড়ে তোলার ডাক উঠেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী ইউনিয়নের সম্মেলন থেকে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ে শূন্যপদে নিয়োগ, কর্মচারীদের পে-কমিটি গ‌ঠন, ক্যাম্পাস জুড়ে তৃণমূলের দুষ্কৃতীদের দাপাদাপি রুখতে যৌথ আন্দোলনের কথা প্রতিনিধিরা বলেছেন সম্মেলন মঞ্চে। ৯৪জন প্রতিনিধি, ৩৭জন দর্শক এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। পঞ্চায়েতে মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি, শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্য, নারী ও শিশুদের ওপর যৌন নির্যাতন রোধ-সহ ৬টি প্রস্তাব এই সম্মেলন থেকে গৃহীত হয়েছে।

Featured Posts

Advertisement