পুকুর সংস্কারেও দলতন্ত্র কলকাতায়
তালিকায় বিরোধী দলের একটি ওয়ার্ড

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৭ই এপ্রিল , ২০১৮

কলকাতা, ১৬ই এপ্রিল— শহরে জলাশয় সংস্কারের টাকা দেওয়া নিয়ে তৃণমূল বোর্ডের বিরুদ্ধে দলতন্ত্রের অভিযোগ তুলল বিরোধী কাউন্সিলররা। ‘জল ধরো জল ভরো’ প্রকল্পে যে ৩৭টি পুকুর সংস্কারের টাকা এসেছে তার ৩৬টি পুকুরই শাসকদলের ওয়ার্ডে। একটি মাত্র জুটেছে বিরোধীদের।

কলকাতা কর্পোরেশন সূত্রে খবর, সম্প্রতি শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে জলাশয় পুনরুদ্ধার ও পরিষ্কার করার উদ্দেশ্যে রাজ্য সরকার ‘জল ধরো জল ভরো’ প্রকল্পে খাতে ১৫কোটি টাকা দিয়েছে। এই টাকায় মোট ৩৭টি জলাশয় পুনরুদ্ধার ও পরিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে নজিরবিহীনভাবে এই সিদ্ধান্তে তৃণমূল পরিচালিত কর্পোরেশনের বিরুদ্ধে দলতন্ত্র কায়েম করার অভিযোগ তুলেছেন বিরোধী কাউন্সিলররা।

এই প্রকল্পে যে ৩৭টি জলাশয় পুনরুদ্ধার ও পরিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়েছে তাতে মাত্র বাঘাযতীন জে ব্লক ঝিল অনুমোদন পেয়েছে যা ১০২নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত। এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সি পি আই (এম)-র রিঙ্কু নস্কর। বাকি ৩৬টি পুকুরই শাসকদলের কাউন্সিলরদের ওয়ার্ডে। তালিকা অনুসারে দেখা গিয়েছে ১২৩ নম্বর ওয়ার্ডে ৩টি, ১২৪নম্বর ওয়ার্ডে ৩টি করে পুকুর অনুমোদন পেয়েছে। ৬৭নম্বর, ৯৫নম্বর ও ১১৫নম্বর ওয়ার্ডে ২টি করে জলাশয় অনুমোদন পেয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য ওয়ার্ডগুলিতে একটি করে। তবে বিরোধী দলের একাধিক কাউন্সিলর তাঁদের ওয়ার্ডের পুকুর সংস্কার করার আবেদন জানালেও এই তালিকায় স্থান মেলেনি। গত মেয়র পারিষদের বৈঠকেই এই তালিকা অনুমোদন হয়েছে বলেই জানা গিয়েছে।

৯৮নম্বর ওয়ার্ডের সি পি আই (এম) কাউন্সিলর মৃত্যুঞ্জয় চক্রবর্তীর দাবি, পদ্মপুকরসহ একাধিক পুকুর সংস্কারের জন্য বারে বারে আবেদন জানিয়েছি। কোনও সাড়া মেলেনি। ৯৯নম্বর ওয়ার্ডের আর এস পি কাউন্সিলর দেবাশিস মুখার্জির দাবি, ওয়ার্ডের ৬টি পুকুর সংস্কারের জন্য আবেদন করেছি একাধিক বার। ৩টি পুকুর পরিদর্শনও করে গিয়েছেন আধিকারিকরা। তবে এই তালিকায় একটাও রাখল না হতাশ হলাম। কংগ্রেস কাউন্সিলর প্রকাশ উপাধ্যায়ের কথায় ওয়ার্ডের দুটি পুকুরের জন্য বারে বারে বলে আসছি। কর্তৃপক্ষ ‘হচ্ছে, হবে’ বলে যাচ্ছে। বিরোধীদের অভিযোগ, শাসকদলের কাউন্সিলরদের এক একটি ওয়ার্ডে দুটি বা তিনটি করে পুকুর সংস্কারের জন্য টাকা দেওয়া হলেও বিরোধীদের ১টি করেও দেওয়া হলো না। দলতন্ত্রের রাজনীতি স্পষ্ট এই ঘটনায়। এভাবে দল বিচার করে উন্নয়নের কাজ হয় না। যে সমস্ত এলাকায় বিরোধী দলের কাউন্সিলররা আছেন তাঁদের ওয়ার্ডের নাগরিকদের বঞ্চিত করা হচ্ছে।

Featured Posts

Advertisement