আজ প্রতিবাদসভা
ইতিহাস সংসদের

বেসরকারি হাতে লালকেল্লা

নিজস্ব প্রতিনিধি   ১৬ই মে , ২০১৮

কলকাতা, ১৫ই মে— লালকেল্লার রক্ষণাবেক্ষণ বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার বিরোধিতায় সরব হলেন ইতিহাসবিদ, পুরাতত্ত্ববিদরা। মঙ্গলবার কলকাতায় পশ্চিমবঙ্গ ইতিহাস সংসদের তরফে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই সিদ্ধান্তের নিন্দা করা হয়েছে। বুধবার রাণুছায়া মঞ্চে প্রতিবাদসভার ডাক দেওয়া হয়েছে।

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংসদের সভাপতি ড. রঞ্জিত সেন, সহসভাপতি ড. সুস্নাত দাশ, সম্পাদক আশিসকুমার দাস, অধ্যাপক পবিত্র সরকার, অধ্যাপক রজতকান্ত রায়। এদিন বক্তারা বলেন, কেন্দ্রের বর্তমান সরকার সাম্প্রদায়িক দৃষ্টিভঙ্গিতে থেকে ভারতের ইতিহাসকে দেখছে। কোনও কর্পোরেট সংস্থাকে পার্ক রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব দেওয়া আর দেশের ঐতিহ্য রক্ষা করা দুটো এক নয়। লালকেল্লাকে একটি কর্পোরেট সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া আসলে দেশের ঐতিহ্যকে বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার সমান। কেন্দ্রের শাসক ইতিহাসকে অস্বীকার করছে। এমন ঐতিহ্য সংরক্ষণ করতে না পারলে সরকার কী শুধু অস্ত্র কিনে যুদ্ধের জিগির তুলতে ব্যস্ত থাকবে? সেটা কোনও সরকারের কাজ হতে পারে না।

তাঁরা বলেন, সচেতন নাগরিকরা জানেন যে নানা কারণে দিল্লির লালকেল্লা গুরুত্বপূর্ণ সাংবিধানিক মর্যাদার অধিকারী। স্বাধীনতা আন্দোলনে লালকেল্লার স্থান ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা। মহাবিদ্রোহের কেন্দ্র ছিল এই স্থান। আজাদ হিন্দ বাহিনীর বন্দিদের ঐতিহাসিক বিচার এখানে হয়েছিল। এখানেই প্রতি বছর ১৫ই আগস্ট স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী। লালকেল্লাসহ দেশের ঐতিহাসিক স্থাপত্য রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব বেসরকারি সংস্থাগুলির হাতে দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত বাতিল করে নয়া নীতি প্রণয়নের দাবি জানাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ ইতিহাস সংসদ। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সর্বস্তরের মানুষকে বুধবারের প্রতিবাদসভায় আসার আহ্বান জানান বক্তারা।





Current Affairs

Featured Posts

Advertisement