গণতান্ত্রিক কোরিয়ার হুমকি
সত্ত্বেও বৈঠকের প্রস্তুতিতে
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদসংস্থা   ১৭ই মে , ২০১৮

ওয়াশিংটন, ১৫ই মে— পিয়ঙইয়ঙের হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং গণতান্ত্রিক কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জঙ উনের মধ্যে বৈঠকের প্রস্তুতি চালিয়ে যাচ্ছে ওয়াশিংটন। ঐতিহাসিক বৈঠক বাতিল না করার জন্য গণতান্ত্রিক কোরিয়ার কাছে আরজি জানিয়েছে চীন।

গণতান্ত্রিক কোরিয়ার সরকারি সংবাদমাধ্যম বুধবার সকালে জানায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে যৌথ সামরিক মহড়াকে কেন্দ্র করে সিওলের সঙ্গে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত রাখতে চলেছে পিয়ঙইয়ঙ। সেইসঙ্গেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে নির্ধারিত বৈঠক থেকে সরে আসার হুঁশিয়ারি দেয় তারা। কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কে সি এন এ) জানায়, মে মাসের ১১ তারিখ থেকে শুরু হওয়া যৌথ মহড়া রীতিমতো প্ররোচনামূলক।

পরে গণতান্ত্রিক কোরিয়ার বিদেশমন্ত্রকের এক পদস্থ কর্তা কে সি এন এ-কে জানান, পিয়ঙইয়ঙের সঙ্গে আলোচনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যদি তাদের পারমাণবিক অস্ত্র পরিত্যাগের জন্য একতরফা চাপ সৃষ্টি করে, তাহলে গণতান্ত্রিক কোরিয়া সেই আলোচনায় আগ্রহী নয় এবং অদূর ভবিষ্যতের বৈঠকের বিষয়টি আমাদের পুনর্বিবেচনা করতে হবে।

সিঙ্গাপুরে, জুনের ১২ তারিখ ট্রাম্প ও কিমের মধ্যে বৈঠক হওয়ার কথা। ওয়াশিংটনে এক সাংবাদিক বৈঠকে মার্কিন বিদেশদপ্তরের মুখপাত্র হিথার নাউয়ার্ট জানিয়েছেন, ‘রাষ্ট্রপতি ট্রাম্প ও কিম জঙ উনের মধ্যে বৈঠকের’ পরিকল্পনাকে ‘আক্ষরিক অর্থেই এগিয়ে নিয়ে যাবে’ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তিনি জানান, অতিরিক্ত তথ্যের জন্য কে সি এন এ-র প্রতিবেদন তারা খতিয়ে দেখবেন। সঙ্গে আরও জানান সামরিক মহড়া অথবা কিম-ট্রাম্প বৈঠক বৈতিল করা নিয়ে তিনি গণতান্ত্রিক কোরিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়া থেকে কোনও কিছু শোনেননি।

‘২০১৮ ম্যাক্স থান্ডার’ নামে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়া করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কে সি এন এ বলেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও গণতান্ত্রিক কোরিয়ার মধ্যে বৈঠক যখন এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার, তখন দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে মিলে পিয়ঙইয়ঙের বিরুদ্ধে এহেন প্ররোচনামূলক সামরিক মহড়া করার আগে ওয়াশিংটনের দুবার ভাবা উচিত।

Featured Posts

Advertisement