মন্ত্রীর সঙ্গে দাদাগিরিতে
উপাচার্যের গাড়ির চালকও

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৭ই মে , ২০১৮

মাথাভাঙা, ১৬ই মে— পঞ্চায়েত ভোটের দিন নির্বাচনী বিধি ভেঙে কোচবিহারের বুথে বুথে প্রবেশ ও ডাউয়াগুড়ির বুথ ক্যাম্পাসে এক বিরোধী এজেন্টকে চড় মারেন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। সেই ঘটনায় এবারে জড়িয়ে গেল উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের গাড়ির চালকের নাম। সেদিন ওই ড্রাইভারই নাকি মন্ত্রীর গাড়ি চালিয়ে নিয়ে বুথে বুথে ঘুরেছেন। তাকে মন্ত্রীর পাশে থেকে দাদাগিরিও করতে দেখা গেছে। অভিযুক্ত চালক প্রদীপ গোয়ালা এবং মন্ত্রী কেউই নাকি এই কাজে কোনও অপরাধ খুঁজে পাচ্ছেন না। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের গাড়ির চালক প্রদীপ গোয়ালার বক্তব্য, মন্ত্রীকে তো আর না বলা যায় না, তিনি বলাতেই গাড়ি চালিয়েছি। তাঁর সঙ্গেই বুথেও গিয়েছিলাম। আর মন্ত্রী বলছেন, তার গাড়ি চালানো সরকারি কাজের মধ্যেই পড়ে। এতে অন্যায়ের কিছু নেই।

সোমবার পঞ্চায়েত ভোট চলাকালীন সময়ে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ডাউয়াগুড়ির এক বুথের ২০০ মিটারের মধ্যে ঢুকে বিরোধী এজেন্টকে চড় মারেন। সেই ভিডিও সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই উপাচার্যের গাড়ির চালককে চিনতে পারেন অনেকেই। এরপরই প্রশ্ন ওঠে, একাজে উপাচার্যের পদের অমর্যাদা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের একাংশের অভিমত, আইনত ওই চালক বাইরে গিয়ে এভাবে গাড়ি চালাতে পারেন না। উপাচার্যের পদ অত্যন্ত সম্মানের। তার গাড়ির চালক মন্ত্রীর সাথে বুথে ঢুকে দাদাগিরি করছে এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তিকে কলুষিত করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে,অভিযুক্ত উপাচার্যের গাড়ির চালক চুক্তিভিত্তিক কর্মী। সেদিন তিনি ছুটিতে ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বলছে, ছুটিতে থাকলেও ওই কর্মী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ভেঙেছে। কারণ ছুটিতে থাকলেও এভাবে তিনি অন্যত্র গাড়ি চালাতে পারেন না।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement