গণনাকেন্দ্রগুলির দখল নিয়ে
প্রহসনের ভোটে একতরফা
জয় পেল তৃণমূল

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৮ই মে , ২০১৮

বর্ধমান, ১৭ই মে — ভোটের দিন বুথ দখল করে ছাপ্পা মেরেও তৃণমূল নিশ্চিন্তে ছিল না তাই বৃহস্পতিবার গণনাকেন্দ্রের দখল নিয়ে ফের ছাপ্পা মেরে প্রহসনের পঞ্চায়েত ভোটে এক তরফা জয়ী হয়েছে শাসকদল। এদিন শুরুতে আক্রমণ করে বিরোধীদের উপর কোথাও আবার ভোট গণনাকেন্দ্রে ঢোকার পর সি পি আই (এম) কর্মীদের উপর আক্রমণ করে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। এমনই ৬টি গণনাকেন্দ্রের দখল নিয়ে পুলিশ ও প্রশাসনের সহায়তায় এদিন তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনী অবাধে কারচুপি করে বিরোধীদের হারিয়ে দিয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বি ডি ও জানিয়েছেন, প্রথম দফায় শত খানেক ভোট গণনার পরই দেখা যায় তৃণমূল হারছে, এরপরই তৃণমূলের গুন্ডারা ভোট গুনতে বাধা দিয়ে শাসকদল জিতেছে বলে সার্টিফিকেট লিখিয়ে নেয়। এমন ঘটনা অনেক ঘটেছে।

এদিন পূর্বস্থলী-২ ব্লকে সি পি আই (এম) কর্মীদের ঢুকতেই দেয়নি। শুরুতেই লুটেরা সশস্ত্র বাহিনী হামলা চালিয়ে গণনাকেন্দ্র থেকে মারধর করে সরিয়ে দেয়। তারপর পুলিশ ও প্রশাসনের সহায়তায় কেন্দ্রের দখল নিয়ে অবাধে কারচুপি করে ভোটে জিতেছে শাসকদল। মেমারি-১ ব্লকে সি পি আই (এম) এজেন্ট ও প্রার্থীরা ভেতরে ঢুকে ভোট গননার শুরুতেই তাঁদের উপর হামলা হয়। কপালে বন্দুক ঠেকিয়ে তৃণমূলের খুনে বাহিনী বলে ‘বেরিয়ে যা না হলে লাশ পড়ে যাবে’। পুলিশ ছিল নীরব দর্শক। একই পদ্ধতিতে কালনা-২ ব্লকে মারধর করে বের করে দেয় শাসকদলের গুন্ডাবাহিনী। জামালপুরেও তৃণমূল গণনাকেন্দ্র দখল নিয়ে গণনায় কারচুপি করেছে। এখানেও গণনাকেন্দ্র ছিল বিরোধী শৃন্য। কালনা-১, পূর্বস্থলী-১ ব্লকে গননাকেন্দ্রে তৃণমূলের সশস্ত্র বাহিনী ভেতরে ঢুকে মারতে মারতে সি পি আই (এম) প্রার্থী ও এজেন্টদের বের করে দিয়ে কারচুপি করে জিতেছে। অন্যদিকে ভাতারে সকাল থেকেই দুষ্কৃতী বাহিনী জড়ো হয়ে গণনাকেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দেয় শাসকদলের গুন্ডাবাহিনী। সেই বাধা মোকাবিলা করেই গণনাকেন্দ্রে সি পি আই (এম) প্রার্থী ও এজেন্টরা ঢুকে পড়লে তাঁদের লক্ষ্য করে ইট, পাথর ছুঁড়তে শুরু করে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। এই হামলায় ৪জন আহত হয় সি পি আই (এম) প্রার্থী ও কাউন্টিং এজেন্ট। এদিন গণনাকেন্দ্রের মধ্যে বিরোধীদের প্রাপ্তভোট ফের ছাপ্পা মেরে বাতিল করিয়ে জিতেছে তৃণমূল। ভয় দেখিয়ে বি ডি ও-দের সার্টিফিকেট লিখে দিতে বাধ্য করা হয়।

গণনায় কারচুপির তীব্র নিন্দা করেছেন সি পি আই (এম) পূর্ব বর্ধমান জেলার সম্পাদক অচিন্ত্য মল্লিক। তিনি বলেছেন, মনোনয়ন লুট, ভোট লুট করেও নিশ্চিন্ত নয়, শাসকদলকে তাই গণনাকেন্দ্রে ঢুকে কারচুপির আশ্রয় নিতে হয়েছে। এতে জনগণের রায় প্রতিফলিত হয়নি।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement