বিশ্বকাপ!
অভিভূত
ট্রেট আন্রল্ড

সংবাদসংস্থা   ১৮ই মে , ২০১৮

লন্ডন, ১৭ই মে— গ্যারেথ সাউথগেটের দল নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। অভিজ্ঞদের ঠাঁই হয়নি। তরুণদের সুযোগ হয়েছে। জাতীয় দলে না খেললেও সাউথগেটের দলে ডাক পেয়েছেন ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আর্নল্ড। উনিশ বছরের তরুণ এই রাইটব্যাকই আপাতত চর্চার কেন্দ্রে। ইংল্যান্ড কোচ যে নতুনদের সুযোগ দেবেন তা অনেক আগে থেকেই স্পষ্ট ছিল। মার্চ মাসেই জাতীয় ক্যাম্পে ডেকে পাঠিয়েছিলেন লিভারপুলের এই ফুটবলারকে।

ট্রেন্ট আর্নল্ডের বিশ্বকাপের দলে ডাক পাওয়াকে ‘অবিশ্বাস্য’ বলেই অভিহিত করেছেন লিভারপুল কোচ। ট্রেন্ট আর্নল্ড যে বিশ্বকাপের জন্য ডাক পেয়েছেন, সেই খবরও দিয়েছিলেন যুর্গেন ক্লপ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রস্তুতির জন্য দক্ষিণ স্পেনের মারবেলাতে আবাসিক শিবির করবে লিভারপুল। বুধবার সকালে মারবেলাতে উড়ে যাওয়ার আগে ট্রেন্ট আর্নল্ডকে এই খবর শুনিয়েছিলেন লিভারপুল ক্লপ। সাউথগেটের দলে সুযোগ পেলেও, বিশ্বকাপের প্রথম একাদশে সুযোগ পাওয়া সহজ নয়। কারণ ইংল্যান্ড রক্ষণে ট্রেন্ট আর্নল্ডকে লড়তে হবে কিয়েরান ট্রিপিয়ার এবং কাইল ওয়াকারের সঙ্গে।

লিভারপুল আকাদেমির ছাত্র ট্রেন্ট আর্নল্ড পুরো মরশুম জুড়েই ক্লপের দলকে ভরসা জুগিয়ে এসেছেন। সামনে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল। লিভারপুলের ঘরের ছেলে হিসাবে ট্রেন্ট আর্নল্ডই একমাত্র প্রথম একাদশে সুযোগ পাকাপাকি জায়গা করে নিয়েছেন। ক্রমশ তারকা হয়ে উঠলেও আর্নল্ডকে থাকতে হয় মা এবং দাদার সঙ্গেই। প্রিমিয়র লিগে সুখ্যাতি পাওয়ার পরেই তারকারা ঘর ছাড়েন। লিভারপুলের সঙ্গে মোটা অঙ্কে চুক্তি থাকলেও, বাড়ি ছাড়ার অনুমতি নেই আর্নল্ডে। দিনের শেষে বাড়ি ফিরতেই হবে। কিভাবে লিভারপুল আকাদেমিতে সুযোগ পেয়েছিলেন তাও শুনিয়েছেন নিজে। লিভারপুল কমিউনিটি সামার ক্যাম্প আয়োজন করে, এবং আর্নল্ডের স্কুলে আমন্ত্রণ পত্র পাঠায়। আর্নল্ডের ক্লাসের প্রায় সব বাচ্চাই হাত তোলে ক্যাম্পে যাবে বলে। কিন্তু ক্যাম্পে খুব অল্প সংখ্যক খুদেকেই নেওয়া হবে। তাই লটারি করেন স্কুলের শিক্ষক। আর লটারিতেই নাম ওঠে আর্নল্ডের। তারপর শুরু হয় আকাদেমিতে যাওয়া। আর প্রথমদিনের অনুশীলন দেখার পরেই আর্নল্ডকে সপ্তাহে তিন-চারবার অনুশীলনে যেতে বলা হয়।

তরুণ ফুটবলারদের দলে নেওয়ার পক্ষে অবশ্য যুক্তি দিয়েছেন কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। ‘আমরা সারাক্ষণ অভিজ্ঞতার কথা বলি কিন্তু অভিজ্ঞতা যদি ভালো না হয় তাহলে মানুষের বিশ্বাসে আঘাত লাগে। ...আমি এটাকে ফাটকা হিসেবে দেখি না। আমার মনে হয় আমরা নির্ভীকভাবেই খেলতে পারব’ জানিয়েছেন ইংল্যান্ড কোচ। তরুণ বয়সে বিশ্বকাপের দলে সুযোগ পাওয়া নিয়ে আর্নল্ড জানিয়েছেন, ‘আমি বিশ্বকাপে যাচ্ছি এটা অবিশ্বাস্য আমার কাছে, বিশেষ করে এত ছোট বয়সে। এর মানে এই মরশুমটা সত্যিই আমার ভালো কেটেছে।’

Featured Posts

Advertisement