মেহতাব হোসেন এবং
শেষ ৪৮ ঘণ্টা

সংবাদসংস্থা   ২৪শে মে , ২০১৮

হঠাৎ যেন ময়দানের সেই হারিয়ে যাওয়া দলবদলের উত্তাপ ফিরে এল। সৌজন্যে মেহতাব হোসেন। সোমবার দুপুর থেকে বুধবার দুপুর। ৪৮ ঘণ্টায় বারবার পালটেছে চিত্রনাট্য। কলকাতায় খেললে ইস্টবেঙ্গলেই খেলবেন। প্রিয় ক্লাবে খেলেই অবসর নেবেন। এমনটাই জানিয়েছিলেন মেহতাব। এরই মধ্যে মোহনবাগান ফুটবল সচিবের সঙ্গে একটি রক্তদান শিবিরে দেখা হয়েছিল মেহতাব হোসেন। সেখানেই মেহতাবকে খেলার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কথাবার্তা বেশিদূর এগয়নি। শেষ দুদিনে তাহলে এমন কি হলো যার জন্য মেহতাব যোগ দিলেন মোহনবাগানে? শেষ দুদিনের ঘটনা পরপর।

সোমবার দুপুর: ইস্টবেঙ্গলের এক শীর্ষকর্তার ফোন মেহতাবকে। ক্লাবে আসার জন্য অনুরোধ করেন।

সোমবার সন্ধ্যা: ক্লাবে আসেন মেহতাব। (ইস্টবেঙ্গল ছেড়ে দেওয়ার পর বহুবারই লাল হলুদ তাঁবুতে এসেছেন মেহতাব। ক্লাবের জিমেও সময় কাটাতেন)। আলোচনায় বসেন ইস্টবেঙ্গল শীর্ষকর্তা এবং ইস্টবেঙ্গল সচিবের সঙ্গে। সূত্রের খবর আলোচনায় মেহতাব জানান গোটা মরশুম নয়, দু’তিনটে ম্যাচ খেলবেন লাল হলুদ জার্সিতে। তারপরই অবসর নেবেন। মাত্র কয়েকটি ম্যাচ খেলার জন্য তিনি ক্লাব থেকে কোন অর্থ নেবেন না। আই পি এল শেষ হওয়ার পরই ক্লব তাঁবুতে সাংবাদিক সম্মেলন করবেন মেহতাব। ততদিন জামশেদপুর কর্তাদের সঙ্গেও কথা বলবেন। ইস্টবেঙ্গল শীর্ষ কর্তার বক্তব্য মেহতাব নিজেই ইস্টবেঙ্গলে খেলে অবসর নিতে চেয়েছিলেন। নিজেই বলেছেন ক্লাবের আর্থিক দুঃসময়ে তিনি কোন অর্থ নেবেন না।

সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার দুপুর: সোশ‌্যাল মিডিয়ায় চাউর হয়ে যায় বেতন ছাড়াই ইস্টবেঙ্গলে খেলবেন মেহতাব। ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদেরই একটি অংশ শুরু করেন ব্যঙ্গ, বিদ্রুপ। মোহনবাগানে সই করার জন্য ইস্টবেঙ্গলের একাংশের সমর্থককে দায়ী করেছেন মেহতাব নিজেই।

মঙ্গলবার বিকাল: সাংবাদিক সম্মেলনে মোহনবাগান ফুটবল সচিব ঘোষণা করে দেন মেহতাব তাঁকে মোহনবাগানে খেলার জন্য কথা দিয়েছেন। তিনি জোর দিয়ে বলেন মেহতাব মোহনবাগানেই খেলবেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা: মোহনবাগানের সাংবাদিক সম্মেলনের বিষয়টি জেনেই ইস্টবেঙ্গল শীর্ষকর্তা ফোন করেন মেহতাবকে। কিন্তু তাঁকে ফোনে পাওয়া যায়নি। মেহতাবের স্ত্রী ইস্টবেঙ্গল শীর্ষকর্তাকে জানান মেহতাব অনুশীলনে গেছেন।

মঙ্গলবার রাত: হঠাৎ মেহতাবের বাড়িতে হাজির হন মোহনবাগান ফুটবল সচিব। মেহতাবকে বলেন, ‘আমি সবার সামনে ঘোষণা করে দিয়েছি। এবার তোমার সিদ্ধান্ত।’ রাতেই পাকা হয়ে যায় মেহতাবের মোহনবাগানে খেলা।

বুধবার সকাল: মোহনবাগান ফুটবল সচিব জানান দুপুরে মেহতাব ক্লাব তাঁবুতে সাংবাদিক সম্মেলন করবেন। তারপর আবার শুরু নতুন নাটক। মেহতাবের বাড়িতে সকাল ১০টা নাগাদ হাজির হন ইস্টবেঙ্গলের এক তরুন কর্তা। সঙ্গে কর্মসমিতির এক সদস্যের ছেলে। শুরু হয় বোঝানোর পালা। মেহতাবকে অনুরোধ করা হয় ক্লাবে গিয়ে কথা বলার জন্য। ইস্টবেঙ্গলের সেই তরুণ কর্মকর্তার গাড়িতে উঠে পড়েন মেহতাব।

খবর চলে যায় মোহনবাগান ফুটবল সচিবের কাছে। প্রায় জনা পনেরো ছেলে নিয়ে মেহতাবের বাড়ির দিকে রওনা হন তিনি। ফোন করে অপেক্ষা করতে হয় মেহতাবকে। গাড়ি থেকে নেমে আসেন মেহতাব। দুপুর সওয়া দুটো নাগাদ মেহতাবকে নাটকীয়ভাবে নিজের গাড়িতে তুলে নেন মোহনবাগান ফুটবল সচিব। এরপরই মোহনবাগান ক্লাবে আসেন মেহতাব। সাংবাদিক সম্মেলনেই জবনিকা পড়ে টানটান চিত্রনাট্যের।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement