শিলিগুড়ির সার্বিক উন্নয়নে
এবার দিল্লি যাচ্ছেন মেয়র

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৩ই জুন , ২০১৮

শিলিগুড়ি, ১২ই জুন – শিলিগুড়ির সার্বিক উন্নয়নে চলতি মাসের ১৪ ও ১৫ তারিখ দিল্লিতে দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে শিলিগুড়ির মেয়র, বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্য আলোচনা করবেন। তিনি দেখা করবেন কেন্দ্রীয় জল সম্পদ, নদী উন্নয়ন এবং গঙ্গা পুনরুজ্জীবন দপ্তরের মন্ত্রী নীতিন গড়করির সঙ্গে। বামফ্রন্ট সরকারের আমলে তৎকালীন পৌর ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী অশোক ভট্টাচার্য মহানন্দা অ্যাকশন প্ল্যান তৈরি করেছিলেন। ঐ প্রকল্পের জন্য কেন্দ্র প্রথম পর্যায়ে বেশ কিছু টাকা দিলে তাতে কাজও এগিয়েছিল অনেকটা। পরবর্তীকালে গঙ্গা রিভার বেসিন অথরিটির কাছে একটি অভিযোগ জমা পড়ে। যেখানে দাবি করা হয় গঙ্গা নয় শিলিগুড়ি শহরের মধ্যে দিয়ে বয়ে যাওয়া মহানন্দা আসলে ব্রহ্মপুত্রের উপনদী। এরপর তিনি কেন্দ্রের কাছে বারবার তথ্য, প্রমাণ সহকারে চিঠি লিখলে দিল্লি সেকথা স্বীকার করে নেয়। অশোক ভট্টাচার্যের কথায়, মহানন্দা নদীকে গঙ্গা রিভার বেসিন অথরিটির অন্তর্ভুক্ত করতে পারলে অন্তত এক হাজার কোটি টাকার আর্থিক সাহায্য পাওয়া যাবে। একই সঙ্গে শিলিগুড়িতে সোয়ারেজ এবং ড্রেনেজ সিস্টেমও চালু করা সম্ভব হতো। তাঁর অভিযোগ, শিলিগুড়িতে রাজ্যের একজন মন্ত্রী থাকলেও তিনি শিলিগুড়ির সার্বিক উন্নয়ন নিয়ে কেন্দ্রের কাছে কোনও আবেদনই আজ পর্যন্ত করে উঠতে পারেননি। রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রীর বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে রয়েছে শিলিগুড়ি পৌর নিগমের ১৪টি ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডগুলিতে জলের সমস্যা থাকলেও যেহেতু শিলিগুড়ি পৌর নিগম বামফ্রন্ট দ্বারা পরিচালিত তাই নিজের বিধানসভা কেন্দ্র হওয়া সত্ত্বেও সেই সমস্যা নিয়ে তিনি রাজ্য সরকারের কাছে মুখ খুলতে নারাজ। তাই এবার সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করির কাছে গিয়ে মহনন্দাকে গঙ্গা রিভার বেসিন অথরিটির অন্তর্ভুক্ত করানোর দাবি জানাবেন শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। বামফ্রন্ট সরকারের আমলে মহানন্দা অ্যাকশন প্ল্যানের জন্য এস জে ডি এ (শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নয়ন পর্ষদ) কে নোডাল এজেন্সি হিসাবে ঠিক করেছিল তৎকালীন সরকার। কেন্দ্র মহানন্দা অ্যাকশন প্ল্যানের জন্য টাকা বরাদ্দ করে থাকলে তা চলে যাবে শাসক দলের দখলে থাকা এস জে ডি এ-র কাছে। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে অশোক ভট্টাচার্য বলেন, টাকাটা এস জে ডি এ পেলেও আমার মূল উদ্দেশ্য শিলিগুড়ির উন্নয়ন। কাজ যেই করে থাকুক উদ্যোগতো সবাই মিলে নিতে হবে।

দিল্লিতে গিয়ে তিনি একই সঙ্গে দেখা করবেন কেন্দ্রীয় নগর উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী হারদীপ সিং পুরির সঙ্গে। তাঁর অভিযোগ গ্রিন বেঞ্চের সদস্য থেকে পরিবেশবিদ এমনকি শিলিগুড়ি শহরের বাসিন্দা, রাজ্যের মন্ত্রী হয়েও সমালোচনা করেন শিলিগুড়ির উন্নয়ন নিয়ে। অথচ আসল চিত্রটা হলো শিলিগুড়ি পৌর নিগমের প্রতি রাজ্য সরকারের অবহেলা, অসহযোগিতা এবং অসাংবিধানিক আচরণ। মঙ্গলবার শিলিগুড়ি পৌর নিগমে সাংবাদিক সম্মেলন করে মেয়র অশোক ভট্টাচার্য বলেছেন, মাস তিনেক আগে সমস্ত কাউন্সিলরদের নিয়ে আমরা প্রাপ্য টাকা আদায়ে গিয়েছিলাম পৌর ও নগর উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের কাছে। সে সময় তিনি আশ্বস্ত করলেও আমরা মাত্র তিনটি প্রকল্প খাতে সামান্য পরিমাণ টাকা পেয়েছিলাম। যেমন হাউসিং ফর অল প্রকল্পের জন্য কেন্দ্র সুডাকে (স্টেট আর্বান ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি) ২৮ কোটি টাকা শিলিগুড়ি পৌর নিগমের জন্য পাঠালেও শিলিগুড়িকে সে টাকা থেকে মাত্র ৬কোটি টাকা দিয়েছে রাজ্য সরকার।

Featured Posts

Advertisement