আগস্টে ফের সুদের হার
বৃদ্ধির অনুমান শেয়ার বাজারে

সংবাদসংস্থা   ১৪ই জুন , ২০১৮

মুম্বাই, ১৩ই জুন— ফের সুদের হার বাড়াতে পারে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। মে-র মূল্যবৃদ্ধি সূচক দেখে সুদের হার উপরে ওঠার অনুমান করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ। মে-র হিসাব অনুযায়ী খুচরো বাজারে মূল্যবৃদ্ধির হার বেড়ে হয়েছে ৪.৮৭শতাংশ, চার মাসে সবচেয়ে বেশি। দেশে সুদের হার এখন ঠিক করে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গভর্নরের নেতৃত্বাধীন মুদ্রানীতি কমিটি। পেট্রল-ডিজেলে দাম চড়া হারে বাড়ছে। অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার প্রবণতা দেখে ‘রেপো’ হার বাড়িয়েছে কেন্দ্র।

‘রেপো রেট’-এ বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলিকে ঋণের বিনিময়ে সুদ পায় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। গত ৬ই জুনের বৈঠকে কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদী সরকারের মেয়াদে প্রথমবার রেপো রেট ৬শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৬.২৫শতাংশ করেছে মুদ্রানীতি কমিটি। ফরাসি শেয়ার দালাল সংস্থা বি এন পি পরিবাসের অনুমান জুলাইয়ের শেষেই ফের বাড়তে পারে সুদের হার। ৩১শে জুলাই থেকে ১লা আগস্ট মুদ্রানীতি পর্যালোচনায় ফের বসার কথা রয়েছে কমিটির।

মূল্যবৃদ্ধির হার অবশ্য কেবল বোঝায় যে কোনও পণ্যের দাম কতটা বেড়েছে। আগের বছরের একই সময়ের দামস্তরের তুলনা করে মূল্যবৃদ্ধির হার হিসাব করা হয়। বাজারে সবচেয়ে সমস্যা হচ্ছে আয়ের তুলনায় প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বেড়ে চলায়। জ্বালানির খরচ বাড়ার হাত ঘুরে ব্যাপক হারে বাড়ছে যাতায়াত খরচ। খরচ বাড়ছে শিক্ষা এবং স্বাস্থ্যে। নাকাল আমজনতার ক্ষোভের মুখে পড়ছে কেন্দ্রে আসীন বি জে পি। বিভিন্ন রাজ্যে উপনির্বাচনে তা টেরও পাওয়া যাচ্ছে।

জার্মানির শেয়ার দালাল সংস্থা ডয়েশ ব্যাঙ্কেরও অনুমান আগস্টে বৈঠকের পর ফের সুদের হার বাড়াবে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। মূল্যবৃদ্ধিতে লাগাম টানতে মুদ্রানীতি নিয়ামকরা সুদের হার বাড়ানোর পথ বেছে নেবেন। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের রেপো হার বৃদ্ধির ফলে বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলিও তাদের গ্রাহকদের বিভিন্ন ঋণের জন্য সুদের হার বাড়াবে। টাকার জোগান কমানোর চেষ্টা হবে অর্থনীতিতে। ডয়েশ ব্যাঙ্কের অনুমান আগস্টে ফের ০.২৫শতাংশ হারেই বাড়বে ‘রেপো’।

ব্যাঙ্ক অব আমেরিকা মেরিল লিঞ্চের অনুমান অবশ্য আলাদা। তাদের অনুমান, এখন বেশ কিছুদিন সুদের হার অপরিবর্তিত রাখবে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। গত বছরের মে মাসে খুচরো বাজারে মূল্যবৃদ্ধির হার ছিল ২.১৮শতাংশ। এবছর জ্বালানি এবং ফল, সবজি, শস্যপণ্যের দাম বেড়েছে সেটা ঠিক। তবে মূল্যসূচক চড়া হয়েছে গত বছরের মে-তে নেমে থাকা দামস্তরের সঙ্গে তুলনার কারণে। গত বছর মে-তে খুচরো বাজারে দামবৃদ্ধির হার ছিল ২.১৮শতাংশ।

৬ই জুনের বৈঠকে মুদ্রানীতি কমিটি সুদের হার বাড়ানোর পাশাপাশি মূল্যবৃদ্ধির অনুমানও ০.৩০শতাংশ বাড়িয়েছিল। অপরিশোধিত তেলের দামবৃদ্ধি এবং দেশের খুচরো বাজারে মূল্যসূচকে বৃদ্ধির প্রবণতা থাকায় সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। খুচরো বাজারে দামের সূচক সি পি আই এপ্রিলে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪.৫৮শতাংশে। মার্চে এই হার ছিল ৪.২৮শতাংশ। চলতি অর্থবর্ষে এপ্রিল-সেপ্টেম্বর পর্বে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক খুচরো বাজারে মূল্যবৃদ্ধির হার ৪.৭-৫.১শতাংশের মধ্যে বেঁধে রাখার লক্ষ্য ঘোষণা করেছে।

চাপ বাড়াতে সুদের হার বৃদ্ধির সিদ্ধান্তে ক্ষোভ জানিয়েছে বিভিন্ন বণিকসভা। সি আই আই বলেছে, কড়া মুদ্রানীতিতে বিনিয়োগ মার খাবে। ব্যাঙ্কঋণ বাবদ বাড়তি হারে সুদ দিতে হবে বলে ব্যবসা করার খরচ বাড়বে। ফলে, অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হার কমতে পারে।

যদিও আর্থিক বাজারে বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতো, মূল্যবৃদ্ধির চিত্র খতিয়ে দেখলে বোঝা যাচ্ছে কেবল খাদ্য বা জ্বালানির দামের হার বাড়ছে না। এই পণ্যগুলিতে দামের ওঠানামা দ্রুতই হয়। কিন্তু অন্য বিভিন্ন পণ্যেও মূল্যবৃদ্ধির হার বাড়ছে। ফলে আগস্টে সুদের হার ফের সম্ভবত বাড়াতেই হচ্ছে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নেতৃত্বাধীন মুদ্রানীতি কমিটিকে।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement