রেশন দোকানগুলিই হবে শপিং মল
উত্তরবঙ্গে প্রথম জলপাইগুড়িতে

নিজস্ব সংবাদদাতা   ১৪ই জুন , ২০১৮

জলপাইগুড়ি, ১৩ই জুন— রাজ্যের একেবারে প্রত্যন্ত গ্রামের মানুষকেও আর বাজার করার জন্য শহরের শপিং মলে আসতে হবে না। রাজ্য সরকার এবার রেশন দোকানগুলিকেই বিগ বাজার বা শপিং মল বানাতে চলেছে বলে জানালেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। বুধবার জলপাইগুড়িতে এক সরকারি অনুষ্ঠানে এসে সাংবাদিকদের কাছে এই কথা বলেন মন্ত্রী। খাদ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্য সরকার ফিউচার গ্রুপের সাথে চুক্তি করে খাদ্যদপ্তরের রেশন দোকান গুলিতেই বিগ বাজার বা শপিং মল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতেও এই বিগ বাজার হচ্ছে। উত্তরবঙ্গের মধ্যে জলপাইগুড়িতেই প্রথম এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। মানুষের নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন ব্র্যান্ড কোম্পানির জিনিস এবার রেশন দোকানেই পাওয়া যাবে। এর ফলে গ্রামের মানুষকে আর শহরে আসতে হবে না। ন্যায্যমূল্যেই তারা জিনিসপত্র কিনতে পারবেন বলে খাদ্যমন্ত্রী জানান।

এই শপিং মল কাম রেশন দোকানেই পাওয়া যাবে নিত্যপ্রয়োজনীয় ৫০০টি আইটেম। 'রৌদ্র বৃষ্টি' নামেই এই মলগুলি পরিচিত হবে। ফিউচার গ্রুপের লোকেরাই রেশন দোকান সাজিয়ে দেবে। রেশন দোকানে চাল, ডাল, তেলের সঙ্গে সানরাইজ, ডালডা, ব্রিটানিয়া, আই টি সি-সহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দ্রব্যসামগ্রী থাকবে। প্রথম পদক্ষেপ উত্তর ২৪পরগনায় নেওয়া হলেও উত্তর বঙ্গের সব জেলাতেই এই মল গড়ে তোলা হবে। উত্তরবঙ্গে প্রায় সাড়ে আট হাজার রেশন দোকান আছে বলে জানান তিনি।

ধান কেনার ক্ষেত্রে সরকারি লক্ষ্যমাত্রা সম্পর্কে খদ্যমন্ত্রী বলেন, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার জেলায় ন্যায্যমূল্যে ধান কেনার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে পারেনি রাজ্য সরকার। সরকারি ধান কেনার ব্যাপারে ফড়েদের দৌরাত্ম্যও যথেষ্ট ছিল বলে স্বীকার করতে বাধ্য হলেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সরকারিভাবে এবছর মাত্র ২৫ শতাংশ ধান কেনার জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Current Affairs

Featured Posts

Advertisement