ওরলিতে দীপিকার
ফ্ল্যাটের বহুতলে
ভয়াবহ আগুন

বিশেষ সংবাদদাতা   ১৪ই জুন , ২০১৮

মুম্বাই, ১৩ই জুন— ফের অগ্নিকাণ্ড মুম্বাইয়ের অভিজাত এলাকায়। বুধবার দুপুরে এই মহানগরের ওরলিতে বহুতল আবাসন বিউমঁদে টাওয়ার্সে ভয়াবহ আগুন লাগে। এই আবাসনেই থাকেন বলিউডের অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। তবে আগুনে কেউ হতাহত হননি। দমকলের দশটি ইঞ্জিন দ্রুত ঘটনাস্থ‍‌লে পৌঁছে দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় আগুন আয়ত্তে আনে। আগুনে যখন আবাসনের একাংশ জ্বলছে, তখন দমকল কর্মীরা একে একে অন্তত ৯৫ জন বাসিন্দাকে বের করে আনেন।

ওরলির আপ্পাসাহেব মারাঠা মার্গে বিরাট এলাকাজুড়ে রয়েছে ৩৪ তলার আবাসন বিউমঁদে টাওয়ার্স। তিনটি টাওয়ার বা বহুতল নিয়ে এই আবাসন। এদিন ওই আবাসনের ৩৩তলায় একটি ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাটে আগুন লাগে। সেখান থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখে বাসিন্দারা দমকলে খবর দেন। আবাসনটির ২৬তলায় দীপিকার দুটি ফ্ল্যাট রয়েছে। একটিতে তিনি থাকেন এবং আরেকটিতে আছে তাঁর অফিস। আগুনে তাঁর দুটি ফ্ল্যাটেরও কোনও ক্ষতি হয়নি বলে জানা গিয়েছে। আগুন লাগার সময়ে দীপিকা নিজের ফ্ল্যাটে ছিলেন কি না, তা জানা না গেলেও পরে অভিনেত্রী টুইটারে লিখেছেন, তিনি নিরাপদে আছেন। প্রতিবেশী ও দমকল কর্মীদের ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

একে বহুতলের ৩৩তলায় আগুন, তার সঙ্গে উচ্চতা বেশি হওয়ায় হাওয়ার তোড়ে দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা। সেই কারণে এক সময়ে হেলিকপ্টার থেকে জল ফেলে আগুন নেভানোর কথা ভাবা হয়েছিল বলে মহারাষ্ট্র সরকারের এক আধিকারিক জানিয়েছেন। কিন্তু দমকলের তরফে বলা হয়, কপ্টারের পাখার হাওয়ায় আগুন আরও বেড়ে যেতে পারে। তাই সে ভাবনা বাতিল হয়। আগুন নেভাতে দমক‍‌লের দশটি ইঞ্জিনের সঙ্গে ব্যবহার করা হয় দুটি হাইড্রোলিক সিঁড়ি, যেগুলি ভাঁজ খুলে মাটি থেকে ৩৩-৩৫ তলা উচ্চতায় পৌঁছে যেতে পারে। ৫টি বৃহদাকার জলের ট্যাঙ্ককেও কাজে লাগানো হয়েছে। তবে আগুন ঠিক কীভাবে লাগল, তা এদিন রাত পর্যন্ত জানাতে পারেনি দমকল দপ্তর বা মুম্বাই পুলিশ।

Featured Posts

Advertisement